শুক্রবার, ১৬ জুন ২০১৭ ১১:০৬ ঘণ্টা

লন্ডনের গ্রেনফেল্ড টাওয়ার বিল্ডিং নিয়ে আব্দুল কাদির সালেহ’র অনূভূতি

Share Button

লন্ডনের গ্রেনফেল্ড টাওয়ার বিল্ডিং নিয়ে আব্দুল কাদির সালেহ’র অনূভূতি

সিলেট রিপোর্ট: দূর্ঘটনা কবলিত লন্ডনের গ্রেনফেল্ড টাওয়ার বিল্ডিং পর্রিদশন করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশীগন। যে ভবনটি একদিন আগে ছিলো প্রাণ চঞ্চল তা আজ পরিত্যক্ত বিরান ঘর । বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা আব্দুল কাদির সালেহ গতকাল ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন। এসর্ম্প্রক তিনি বলেন, গত ১৪ জুন রাতে পুড়ে কংকাল হয়ে যাওয়া লন্ডনের ২৪ তলা টাওয়ার ব্লক বিল্ডিং । মাওলানা আব্দুল কাদির সালেহ জানান, আমরা ক’জন এসেছিলাম এই মৃত পাড়ার হারিয়ে যাওয়া মানুষদের আত্মার আর্তনাদ আর জীবনের শেষ দীর্ঘ নি:শ্বাসের ঘ্রাণ ও স্পর্শ নিতে । অবস্থা দেখে যে কোন মানুষের চলা বলা স্তব্দ হয়ে যাওয়ার কথা । শত শত নারী পুরুষ আসছেন , ঘুরে ঘুরে দেখছেন। বিল্ডিংএর চার পার্শ্বে পুলিশের ব্লক কর্ডন । সবাই হতবাক। কারো মুখে কথা নেই । সবাই শোকে মুহ্যমান । আমরা স্থানীয় রেসিডেন্টদের সাথে কথা বলেছি । কথা বলেছি পুলিশ ও সাংবাদিকদের সাথে । এখনও মৃতের সংখ্যা পরিষ্কার নয় । বিল্ডিং এখনও জ্বলছে । থেকে থেকে ভেতর থেকে ধোঁয়া আসছে । বাতাসে ভিন্ন গন্ধ মন ও চেতনাকে আনমনা করে তোলে । আমরা বিল্ডিং অনতি দূরে পুলিশে কর্ডন ও সাংবাদিক গ্যালারীর পাশে দাঁড়িয়ে হাত তুললাম মহান আল্লাহর দরবারে । দোয়া করলাম । পাশেই কমিউনিটি চার্চের ওয়ালে সবাই লিখছেন মন্তব্য দোয়া । আমরাও লিখলাম May Allah bless all of them. আমরা ছিলাম – মাওলানা এ কে মওদুদ হাসান, হাফিজ মাওলানা শফিকুর রহমান, ব্যারিস্টার নজির আহমদ, মাওলানা রেজাউল করীম, জনাব আব্দুল মজিদ ,মাওলানা সাজ্জাদ আনসারী ও মাওলানা আমীরুল ইসলাম । বিল্ডিংএর নিকটবর্তি মসজিদে আলমানার এ ইফতারও মাগরিবের নামাজ আদায়ের পর সাক্ষাৎ হলো মসজিদের চেয়ারম্যান শায়খ আব্দুল করীম ত্রিপোলিওয়ীর সাথে ।তিনি সাক্ষাত করিয়ে দিলেন এক ভাইর সাথে ,যিনি এই অগ্নিকান্ডে তাঁর স্ত্রী সহ দুই সন্তান হারিয়েছেন । আমি মোসাফাহা করে তাকে সমবেদনা জানাতেই সে বললো ‘ আলহামদুলিলাহ, এটা আল্লাহর মর্জি ।’ তার সবর আর তাওয়াক্কুল দেখে আমি মুগ্ধ হলাম । চেয়ারম্যান আব্দুল করীম আমাদেরকে নিয়ে গেলেন তার অফিস কক্ষে । আরবী বিরিয়ানী হুমুস ও মিষ্টি সহ আমাদের খাওয়ালেন । আমরা চলে আসলাম কিন্তু
মনের গহীনে বয়ে নিয়ে এলাম একরাশ বেদনার হাহাকার ।

এই সংবাদটি 1,033 বার পড়া হয়েছে