সোমবার, ১১ সেপ্টে ২০১৭ ১১:০৯ ঘণ্টা

স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

Share Button

স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

সিলেট রিপোর্ট:  সিলেট নগরীর চারাদিঘীরপাড়ের এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের এক কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন এক নির্যাতিতার মামা। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী হচ্ছেন নগরীর চারাদিঘীরপাড়ের আল আমিন আবাসিক এলাকার বাসিন্দা মো. তুফু মিয়ার ছেলে আব্দুল আহাদ সুমন ওরফে আহাদ মির্জা (২২)। 

নগরীর দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোগলাবাজার থানার অন্তর্গত গোটাটিকর এলাকার বাসিন্দা নির্যাতিতার মামা গত ১৭ আগস্ট সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলাটি (২৩(০৮)১৭) দায়ের করেন। মামলায় আহাদ মির্জাকে প্রধান আসামীসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জনকে আসামীকে করা হয়েছে। তবে এ মামলায় এখনো কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। 

মামলার অভিযোগে নির্যাতিতার মামা উল্লেখ- মোগলাবাজার থানার রুস্তমপুর এলাকার স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী (১৫)। নির্যাতিতা নগরীর চারাদিঘীরপাড়ে আত্মীয়ের বাসায় বসবাসরত ছিলেন। বিগত কিছুদিন ধরে চারাদিঘীরপাড়ের তুফু মিয়ার ছেলে আহাদ মির্জা (২২) ওই ছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে। বিষয়টি ওই ছাত্রীর স্বজনরা বুঝতে পারেন। পরে তারা ওই ছাত্রীকে তারা আহাদ মির্জার কাছ সরিয়ে রাখেন। গত ১১ আগস্ট বেলা ৩টার সময় নির্যাতিতা ওই স্কুল ছাত্রী চারাদিঘীরপাড়ের বাসার দোতলার ভাড়াটিয়া বাসায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যায়। এসময় আহাদ মির্জা দলবল নিয়ে মাইক্রোবাসে করে ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে। পরদিন ১২ আগস্ট ১৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মুহিত জাবেদ ও ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সিকন্দর আলীর সহয়তায় আহাদ মির্জার বাসা থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। 

নির্যাতিতার মামা দাবি করেছেন- তার ভাগ্নিকে উদ্ধারের সময় বলেছে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে আহাদ মির্জা। পাশাপাশি মোবাইলফোনে ধর্ষণের ভিডিওচিত্রও ধারণ করেছে। এগুলো ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার হুমকিও দেয় আহাদ মির্জা।

সিলেট রিপোর্ট/সু-সিভি,সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৭

এই সংবাদটি 1,017 বার পড়া হয়েছে