মঙ্গলবার, ৩১ অক্টো ২০১৭ ০২:১০ ঘণ্টা

অশ্রুসিক্ত নয়নে ৬ যুবককে সমাহিত করলেন বিয়ানীবাজারবাসী

Share Button

অশ্রুসিক্ত নয়নে ৬ যুবককে সমাহিত করলেন বিয়ানীবাজারবাসী

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধিঃ অসহায় মানবতার পাশে দাঁড়াতে গিযে জীবন দিযে গেলেন সিলেটের ৬ যুবক। কক্সবাজারের উখিয়ায় অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের ত্রাণ সহায়তা দিয়ে আসার পথে সোমবার ভোরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নরসিংদী জেলার মাধবদী থানার কান্দাইল বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ব্যবসায়ীদের এর জানাজা আজ সকাল ১০ ঘটিকার সময় বিয়ানীবাজার সরকারী কলেজ মাঠে অনুষ্টিত হয়েছে। জানাজায় ইমামতি করেন বিয়ানীবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মুশাহিদ আলী। জানাজায় বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিকসহ সর্বস্তরের ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। একসাথে ৬ জন নিহতের ঘটনায় বিয়ানীবাজারে বিষাদের ছায়া নেমে এসেছে সর্বত্র। বিয়ানীবাজারের ব্যবসায়ীসহ হাজারো মানুষ চোঁখের জলে চিরবিদায় জানালেন তাদের প্রিয় মানুষদের। মর্মান্তিক এই সড়ক দূর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া হাফিজ ক্লথ স্টোরে স্বত্তাধিকারী হাফিজ উদ্দিন জানাজায় শরীক হয়ে নিহতদের মাগফেরাত কামনা করে ঘটনার বিবরণ দেয়ার সময় আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। এসময় এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়।
প্রসঙ্গত, বিয়ানীবাজারগামী মাইক্রোবাসের (ঢাকা মেট্টো চ- ১৬-০২৫২) সাথে বিপরীত দিক থেকে আসা বাসের সংঘর্ষে নিহত হন বিয়ানীবাজার পৌরশহরের জামান প্লাজার কসমেটিক্স ব্যবসায়ী ও মুড়িয়া ইউনিয়নের ছোটদেশ গ্রামের বাসিন্দা খায়রুল বাশার খান (৩৪), কাপড় ব্যবসায়ী ও মাথিউরা ইউনিয়নের মাথিউরা পূর্বপাড়ের বাসিন্দা রেজাউল করিম (৩২) কাপড় ব্যবসায়ী ও পৌর এলাকার শ্রীধরা গ্রামের বাসিন্দা জুবের আহমদ (৩২), মরটিন কয়েল\’র ডিলার শেওলা ইউনিয়নের কাকরদিয়া গ্রামের বাসিন্দা বুরহান উদ্দিন ইকবাল (৩১), পৌর এলাকার কসবা গ্রামের বাবুল হোসেন (৩০) ও খাসা গ্রামের গাড়িচালক বাবুল আহমদ (৩১)।
গাড়িতে থাকা অপর দুই কাপড় ব্যবসায়ী মাথিউরা ইউনিয়নের সুতারকান্দি গ্রামের বাসিন্দা হাফিজ উদ্দিন ও একই গ্রামের বাসিন্দা দেলওয়ার হোসেন আহত হন। তবে তারা আশঙ্কামুক্ত রয়েছেন।
উল্লেখ্যযে , রোহিঙ্গাদের দেখতে যাওয়ারসেময ফেসবুকে তারা সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন । এই প্রাথৃনাই যে তাদের জীবনের শেষ তাকে কে জানতো?

এই সংবাদটি 1,067 বার পড়া হয়েছে