সোমবার, ০৪ ডিসে ২০১৭ ১০:১২ ঘণ্টা

ধর্মপাশায় প্রভাষক খুন, মানববন্ধন

Share Button

ধর্মপাশায় প্রভাষক খুন, মানববন্ধন

সিলেট রিপোর্ট:
সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলায় প্রভাষক আবু তৌহিদ জুয়েলের খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে কাকিয়াম ও খলাপাড়া গ্রামবাসী উদ্যোগে ৪ ডিসেম্বর সোমবার বেলা ১১টায় উপজেলার সেলবরষ ইউনিয়নের কাকিয়াম গ্রাম থেকে এক বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। বিক্ষোভ মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলার বাদশাগঞ্জ পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে মানববন্ধনে মিলিত হয়। মানববন্ধন কাকিয়াম ও খলাপাড়া গ্রামবাসী ছাড়াও ছাত্র, শিক্ষক ও অভিভাবক সহ রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ অংশ গ্রহণ করেন।
বড়ইহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক নজরুল ইসলাম বাচ্চু’র সভাপতিত্বে ও সেলবরষ ইউপি যুবলীগের সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন সাকু’র সঞ্চালনায় মানববন্ধন চলাকলে বক্তব্য রাখেন নিহত প্রভাষক জুয়েলের বড়ভাই সিলেট মদন মোহন কলেজের প্রভাষক সোহেবুর রহমান শুয়েব, কাকিয়ামের বাসিন্দা ও উপজেলার পাইকুরহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ আনোয়ারুল হক, আবুল কালাম আজাদ হিরু, হারুন ওর রশিদ, মোনায়েম, জালাল উদ্দিন, সৈয়দ নূরুল এহিয়া শাহীন, ধর্মপাশা উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক শাহ আব্দুল বারেক ছোটন, ইউপি যুবলীগ সভাপতি আবু সায়েম, যুবলীগ নেতা খাইরুল ইসলাম, দোলা মিয়া, যুবদল নেতা মুখলেছুর রহমান, ব্যবসায়ী আল আমিন, হেলাল মিয়া, মোফাজ্জল, আকিকুর মেম্বার প্রমূখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, অবিলম্বে প্রভাষক হত্যা মামলার অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি আওতান আনতে হবে। বক্তারা সন্ত্রাসী হামলার সাথে জড়িতদের ফাঁসি দাবি করেন। খুনীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনা না হলে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বাদশাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ হতে বাদশাগঞ্জ বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিক্ষোভ মিছিলটি শেষ হয়।
উল্লোখ্য, গত ১ ডিসেম্বর শুক্রবার ধর্মপাশা উপজেলার সেলবরষ ইউনিয়নের কাকিয়াম গ্রামে বাড়ির সীমানা বিরোধের জের ধরে গাজী শামসুদ্দিন ও আব্দুর রাজ্জাক অতর্কিত ভাবে জামালগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক আবু তৌহিদ জুয়েল এর হামলা চায়। জুয়েল ঘঠনাস্থলে অচেতন হয়ে যায় এ সময় স্থানীয়রা আবু তৌহিদ জুয়েলকে নিয়ে ধর্মপাশা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত ডা. থাকে মৃত্যু বলে ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় প্রভাষক জুয়েলের বড় ভাই ওইদিন বিকেলে ১১ জনকে আসামি করে ধর্মপাশা থানায় মামলা দায়ের করেন। যার নং ০১,তারিখ ০১.১২.২০১৭ইং।
এ মামলায় ওই দিনই পুলিশ আব্দুল খালেক ও তার ছেলে আব্দুর রাজ্জাক ও আব্দুল হেলিমকে গ্রেফতার করে।
এ ব্যাপারে ধর্মপাশা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুরঞ্জিত তালুকদার বলেন, কলেজ শিক্ষক খুনের ঘটনায় তার বড় ভাই শুয়েব বাদী হয়ে ১১ জন কে আসামী করে মামলা করেছেন। ৩ জন আসমামী গ্রেফতার করে বিঞ্জ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে, বাকীদের দ্রুত গ্রেফতারের প্রচেষ্টা চলছে।

এই সংবাদটি 1,033 বার পড়া হয়েছে