বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসে ২০১৭ ১০:১২ ঘণ্টা

মুক্তাদিরের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের

Share Button

মুক্তাদিরের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের

সিলেট রিপোর্ট: বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সিলেট-১ আসনের সম্ভাব্য এমপি প্রার্থী খন্দকার আবদুল মুক্তাদিরের বিরুদ্ধে সিলেটে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়েছে। সোমবার রাতে সিলেটের জালালাবাদ থানায় এ মামলা দায়ের করেন সিলেট জেলা বারের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর ও আওয়ামী লীগ নেতা নুরে আলম সিরাজী। এদিকে মামলা দায়েরের পর বিএনপি নেতা আবদুল মুক্তাদির জানিয়েছেন, তিনি প্রধান অতিথি হয়ে অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন। অন্য কিছু হলে তিনি কিছুই জানেন না। গত ১লা ডিসেম্বর সিলেট সদর উপজেলার শিবেরবাজারে হাটখোলা ইউনিয়নে পরিষদ কার্যালয়ে
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সহ সভাপতি আজির উদ্দিনকে সংবর্ধনা দেয় সিলেট সদর বিএনপি। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির।
এ সময় ইউনিয়ন পরিষদের দেয়ালে টানানো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি উল্টিয়ে রাখা হয় বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে। ছবি উল্টিয়ে রাখার বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর আওয়ামী লীগের ভেতরে তোলপাড় শুরু হয়। এ ঘটনার ছবি সংগ্রহ করে ঘটনার পরদিনই সংক্ষুব্ধ হয়ে জালালাবাদ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন নুরে আলম সিরাজী। পুলিশ মামলাটির প্রাথমিক তদন্তের পর সোমবার গভীর রাতে বিশেষ ক্ষমতা আইনে ওই মামলা রেকর্ড করে। সিলেট মহানগর পুলিশের এডিসি (মিডিয়া) আব্দুল ওয়াহাব জানিয়েছেন, বিশেষ ক্ষমতা আইনে খন্দকার মুক্তাদির সহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা হয়েছে। পুলিশ পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ করবে বলে জানান তিনি। গতকাল বুধবার সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি রেজিস্ট্রিভুক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন আদালতের জিআরও ফয়েজ। মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির ছাড়াও এজাহারভুক্ত আসামি করা হয়েছে সিলেট সদর উপজেলার ২ নং হাটখোলা ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মো. আজির উদ্দিন এবং জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাশেমসহ ৮ জনকে। অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে সিলেট সদর হাটখোলা-জালালাবাদের ৬০ থেকে ৭০ জনকে। এদিকে মামলার আসামি জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি চেয়ারম্যান মো. আজির উদ্দিন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। তাকে গ্রেপ্তারে ইতিমধ্যে দেশের সবক’টি বিমানবন্দর ও ইমিগ্রেশন চেকপোস্টে ইনফরমেশন দিয়ে রাখা হয়েছে। মামলা দায়েরের পর খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির গতকাল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন ‘চেয়ারম্যানের বিদায়ী সংবর্ধনায় আমি গিয়েছি। এর বেশি কিছু জানি না।’ তিনি বলেন, ‘আমার জনপ্রিয়তায় ইর্ষান্বিত হয়ে একটি মহল নানাভাবে মামলা করার পাঁয়তারা করছিলো। যেহেতু রাজনীতি করি, দমিয়ে রাখার জন্য এই মামলা দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু আমি আইনি লড়াই চালিয়ে যাবো। মামলা করে দমিয়ে রাখা যাবে না।’

এই সংবাদটি 1,016 বার পড়া হয়েছে