বৃহস্পতিবার, ২২ মার্চ ২০১৮ ০৩:০৩ ঘণ্টা

সব কৃতিত্ব জনগণের: প্রধানমন্ত্রী

Share Button

সব কৃতিত্ব জনগণের: প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট :

বুভুক্ষু মানুষের বাংলাদেশ কীভাবে পাল্টে গিয়ে উন্নয়নশীল দেশে রূপান্তর হলো, সেই চেষ্টার কথা তুল ধরলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে এখন যত সহজে সব কিছু বলা যায়, যাত্রা পথ যে ততটা সহজ ছিল না, সেটিও মনে করিয়ে দিয়েছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের সব কৃতিত্ব দিয়েছেন দেশের জনগণকে। বলেছেন, সরকার প্রথ প্রদর্শন মাত্র।

উন্নয়নের ধারা যেন থমকে না যায়, অর্জন যেন ধরে রাখা যায়, তারও তাগাদা দেন প্রধানমন্ত্রী।

স্বল্প আয়ের দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের স্বীকৃতিপত্র পেয়েছে বাংলাদেশ। গত ১৬ মার্চ জাতিসংঘ এই স্বীকৃতিপত্র হস্তান্তর করে বাংলাদেশকে। আর এই আনন্দে আজ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠানমালা।

সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রীকে এই অর্জনের জন্য সংবর্ধনা দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশের উন্নয়নের বিষয়ে একটি ভিডিওচিত্র উপস্থাপন করা হয়। এরপর অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত পুরো প্রেক্ষাপট বর্ণনা করেন।

এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে জাতিসংঘের স্বীকৃতিপত্র তুলে দেন অর্থমন্ত্রী। পরে প্রধানমন্ত্রী একটি স্মারক ডাক টিকিট এবং পরে ৭০ টাকা মূল্যমানের একটি স্মারক নোট উদ্বোধন করেন।

এরপর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বিরোধীদলীয় নেতা, ১৪ দল, শিক্ষাবিদ, ব্যবসায়ী, শিল্পী, সাহিত্যিক খেলোয়াড়, তিন বাহিনীর প্রধান শিশু, প্রতিবন্ধী, শ্রমজীবীদের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, বাঙালিকে দেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না। আজকে আমাদের যে উত্তরণ, আমরা যে উন্নয়নশীল দেশ, আমার সেই কথাটাই আমার বারবার মনে পড়ে।’

উন্নয়নের জনগণকে সব ‍কৃতিত্ব দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি মনে করি বাংলাদেশের জনগণই হচ্ছে মূল শক্তি। তারা পারে সব ধরনের অর্জন করতে।’

‘আমরা সরকারে থেকে পথ প্রদর্শক হিসেবে কাজ করেছি, পথ দেখিয়েছি। কিন্তু যারা কাজ করেছে, কৃষক, শ্রমিক মেহনতি মানুষ থেকে শুরু করে, আমাদের পেশাজীবী, সরকারি কর্মচারীরা অত্যন্ত আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করেছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে যে উন্নয়নের ধারাটা শুরু হয়েছে, এটা যেন অব্যাহত থাকে, সেটাই কামনা করি।’

‘আমি বিশ্বাস করি আমরা ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ হিসেবে এই দেশকে আমরা গড়ে তুলতে সক্ষম হব।’

বাংলাদেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে উঠবে বলেও আশাবাদী শেখ হাসিনা। বলেন, ‘তখন তো আর বেঁচে থাকব না। আজকের আজকের প্রজন্ম, নিশ্চয় তারা এগিয়ে নেবে, ২০৪১ সালের মধ্যে দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ হবে শ্রেষ্ঠ দেশ।’

এই সংবাদটি 1,015 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com