শনিবার, ০৭ এপ্রি ২০১৮ ০৩:০৪ ঘণ্টা

সরকারের চিকিৎসার দরকার নেই খালেদার: মওদুদ

Share Button

সরকারের চিকিৎসার দরকার নেই খালেদার: মওদুদ

ডেস্ক রিপোর্ট :

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে সরকারের চিকিৎসা করানোর কোনো প্রয়োজন নেই-বলেছেন মওদুদ আহমদ। তিনি ব্যক্তিগত চিকিৎসক দিয়ে দলীয় প্রধানকে চিকিৎসা করানোর দাবি জানিয়েছেন।

আর এই চিকিৎসা করানোর স্বার্থে দলীয় প্রধানের মুক্তিও দাবি করেছন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত হওয়ার পর থেকে পুরান ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন বিএনপি নেত্রী। ৫৮ দিন পর সেখান থেকে বের করে শনিবার সকালে নেয়া হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে।

বিএনপি নেত্রীকে কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল নিয়ে কেবিন ব্লকের ৫১২ নম্বর কক্ষে নেয়া হয়। এরপর তার এক্সরে করা হয়।

বেলা সাড়ে ১১টা থেকে দেড়টা অবধি তিনি সেখানে ছিলেন। দেড়টার পর বিএনপি নেত্রীকে আবার কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে আনার খবরে তার বেশ কয়েকজন আইনজীবী যান বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে। এদের একজন মওদুদ। তিনি বলেন, ‘আমরা দাবি করব তাকে (খালেদা জিয়া) অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দিয়ে চিকিৎসা করানোর। সরকারের তার চিকিৎসা করানোর কোনো প্রয়োজন নেই। ওনি বের হয়ে ওনি ঠিক করবেন কীভাবে চিকিৎসা করাবেন।’

‘তবে আমরা নির্দিষ্ট করে বলতে পারছি না ওনাকে কেন এক্সরে করানো হচ্ছে, কেন বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা করানো হচ্ছে।’

মওদুদ বলেন, ‘নির্জন কারাগারে রাখার কারণে তার (খালেদা জিয়া) মানসিক অবস্থার পাশাপাশি শারীরিক অস্থার অবনতি হয়েছে। তাকে যে চিকিৎসা দেয়া হয়েছিল, সেটা যথেষ্ট হয়। আমরা সবাই উদ্বিগ্ন।’

‘নির্জন কারাবাসে রাখার জন্য যে অবস্থা তৈরি হয়েছে, সেটার দায় কখনও সরকার এড়াতে পারে না।’

খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে বিএনপির একেকজন নেতা একেক ধরনের দাবি করছেন। তাহলে তাদের মধ্যে কোনো সমন্বয়হীনতা আছে কি না-এমন প্রশ্নে মওদুদ বলেন, ‘কোনো ধরনের সমন্বয়হীনতা নেই। আমরা এতদিন বলে আসছি ওনি অসুস্থ, সবাই আমরা একই কথা বলছি। এর বাইরে তো আমাদের কিছু করার নেই।’

এ সময় মওদুদের সঙ্গে বিএনপি নেতা আমানউল্লাহ আমান, মাহবুব উদ্দিন খোকন, সানাউল্লাহ মিয়া, মাসুদ উদ্দিন আহমেদ, সাখাওয়ার হোসেন শায়ন্ত, খালেদার ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর বউ শর্মিলা রহমান, কোকোর ছোট মেয়ে জাহিয়া রহমান প্রমুখ হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন। তবে তারা কেউ বিএনপি নেত্রীর দেখা পাননি।

বিএনপি নেত্রীকে কারাগার থেকে হাসপাতালে আনা এবং নেয়ার পথে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য কড়া পাহারায় থাকে। দুই ঘণ্টা হাসপাতালে থাকা অবস্থায় ভেতরেও ছিল নিরাপত্তার কড়াকড়ি।

এই সংবাদটি 1,006 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com