সোমবার, ০৯ এপ্রি ২০১৮ ০২:০৪ ঘণ্টা

‘সারাদেশে দাবানলের মতো আন্দোলন ছড়িয়ে পড়বে’

Share Button

‘সারাদেশে দাবানলের মতো আন্দোলন ছড়িয়ে পড়বে’

ডেস্ক রিপোর্ট:  দুপুরের মধ্যে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা আটক হয়েছেন তাদের মুক্তি না দিলে সারাদেশে দাবানলের মতো আন্দোলন ছড়িয়ে পড়বে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ এ ঘোষণা দেয়। এর আগে সকাল থেকেই কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার এলাকায়। ‘কোটা-কোটা, সংস্কার সংস্কার’ স্লোগানে আন্দোলনকারীরা পুরো ক্যাম্পাসে মিছিল করে। এছাড়াও সকাল থেকেই শাহবাগ, টিএসসি এবং দোয়েল চত্বর এলাকায় শিক্ষার্থীরা বিক্ষিপ্তভাবে স্লোগান দেয়। সকাল দশটার পর থেকেই ভিড় বাড়তে থাকে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের।

তবে  দুপুর দেড়টার  পর হাজারো  শিক্ষার্থী জড়ো হন সেখানে। এ সময় পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে আন্দোলনের মুখে পুলিশ ক্যাম্পাস ত্যাগ করে হাইকোর্টের সামনে অবস্থান নেয়।
গতকাল রাতভর সংঘর্ষের পর যে কোন পরিস্থির আশঙ্কায় সতর্ক অবস্থায় রয়েছে র‌্যাব-পুলিশ। জলকামান ও রাইট ভ্যান নিয়ে শাহবাগ এলাকায় অবস্থান নিতে দেখা গেছে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যদের। একই দৃশ্য টিএসসি এলাকাতেও। সকাল এগারোটায় সরকার পক্ষের সঙ্গে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈঠকের কথা থাকলেও তা হয়নি । দুপুর বারোটার দিকে আন্দোলনকারীদের মিছিল শাহবাগের দিকে এগুলো পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরে মিছিলটি টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে গিয়ে অবস্থান নেয়। এর আগে খন্ড খন্ড মিছিল ক্যাম্পাসের বিভিন্ন হল থেকেও এসে যোগ দিতে থাকে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে। ওদিকে, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মধুর ক্যান্টিন এলাকায় ছাত্রলীগের নেতৃত্বে একটি মিছিলের প্রস্ততি চলছিল।
এর আগে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা সকাল সাতটার দিকে দোয়েল চত্বর এলাকায় জড়ো হওয়ার চেষ্টা করলে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। সকাল থেকে সেখানে জড়ো হওয়া কয়েক হাজার শিক্ষার্থীকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ লাঠিপেটা ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। পুরো এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল থেকে কার্জন হল ও দোয়েল চত্বর এলাকায় অবস্থান নিতে থাকেন শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনকারীদের অভিযোগ ছাত্রলীগ পুলিশের পাশাপাশি লাঠি নিয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়। ছাত্রলীগের মিছিল থেকে গুলির অভিযোগও করেছেন আন্দোলনকারীরা। উল্লেখ্য, কাটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে গতকাল রোববার রাত আটটা থেকে পুলিশের সংঘর্ষ, ধাওয়া, পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হন। রাতে উপাচার্যের বাসভবনে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় আন্দোলনকারীরা।

এই সংবাদটি 1,097 বার পড়া হয়েছে