Sylhet Report | সিলেট রিপোর্ট | দেওবন্দে পড়ার দাবির পদ্ধতি নিয়ে ভিন্নমত মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়ার
বুধবার, ২৩ মে ২০১৮ ০১:০৫ ঘণ্টা

দেওবন্দে পড়ার দাবির পদ্ধতি নিয়ে ভিন্নমত মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়ার

Share Button

দেওবন্দে পড়ার দাবির পদ্ধতি নিয়ে ভিন্নমত মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়ার

মাইনুদ্দীন মানিক,সিলেট রিপোর্ট: বাংলাদেশের কওমি শিক্ষার্থীদের ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ মাদরাসায় বৈধভাবে পড়তে যাওয়ার সুযোগ দেয়ার দাবিতে সোমবার প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে কওমি ছাত্র শিক্ষক পরিষদ। এ দাবি আদায়ে আগামী ২৭ মে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদানেরও উদ্যোগ নিয়েছে সংগঠনটির নেতৃবন্দ। গণমাধ্যমে এ সংবাদ প্রচার হওয়ার পরই এ দাবি আদায়ের পদ্ধতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কওমি অঙ্গনেরই একটি মহল। সোশ্যাল মিডিয়ায় কওমি মাদরাসার এক শ্রেণির শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা এ দাবি আদায়ের পদ্ধতি নিয়ে সমালোচনা করছেন। তাদের দাবি, দারুল উলূম দেওবন্দে পড়তে যাওয়ার সুযোগের বিষয়টি বাংলাদেশ সরকারের হাতে নেই।
মানববন্ধন বা স্মারকলিপি প্রদান এ দাবি আদায়ের কার্যকর কোনো পন্থাও নয়।
একমাত্র দারুল উলূম দেওবন্দ ও ভারত সরকারের হাতেই বিষয়টি রয়েছে। এরসঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের জড়িত থাকার বিষয়টি গৌণ।
এ বিষয়টি নিয়ে রাজধানী মিরপুরের জামিয়া হোসাইনিয়া আরজাবাদ মাদরাসার প্রিন্সিপাল ,মুজাহিদে মিল্লাত আল্লামা শামছুদ্দীন কাসেমি রহঃ সুযোগ্স বড় সাহেবজাদা ও দারুল উলূম দেওবন্দের সাবেক শিক্ষার্থী মাওলানা_বাহাউদ্দীন_যাকারিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরাও চাই বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা যেন দেওবন্দে পড়তে যাওয়ার সুযোগ পায়। তবে এ দাবি আদায়টি রাজপথে আন্দোলনের বিষয় নয়। এ দাবির সঙ্গে আমাদের কোনো আপত্তি নেই; দাবি আদায়ের পদ্ধতি নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। যারা আন্দোলন করছে তারা বাংলাদেশের শীর্ষ আলেম উলামা ও বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া কিংবা কওমি মাদরাগুলোর সম্মিলিত শিক্ষাবোর্ড আল হাইয়াতুল উলইয়ার মাধ্যমে দারুল উলূম দেওবন্দের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারে।  মূলত দারুল উলূম দেওবন্দ উদ্যোগ নিলেই এ দাবি আদায় সহজ হবে।

এই সংবাদটি 1,033 বার পড়া হয়েছে