বুধবার, ১৩ জুন ২০১৮ ১২:০৬ ঘণ্টা

আযাদ দ্বীনী এদারার পরীক্ষায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাফল্য

Share Button

আযাদ দ্বীনী এদারার পরীক্ষায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাফল্য

সিলেট রিপোর্ট: দেশের প্রাচীনতম কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড আযাদ দ্বীনী এদারায়ে তালিম বাংলাদেশের ১৪৩৯ হিজরি সনের চূড়ান্ত পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১২ জুন) বেলা ১২টায় সিলেট নগরীর সুবহানীঘাটস্থ এদারার নিজস্ব কার্যালয়ে সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাওলানা সৈয়দ আব্দুর রহমান বোর্ডের মহাসচিব মাওলানা শায়খ আবদুল বছীরের কাছে ফলাফল হস্তান্তর করেন। সৈয়দ আব্দুর রহমান বোর্ডের মহাসচিব মাওলানা শায়খ আবদুল বছীরের কাছে ফলাফল হস্তান্তর করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন,বোর্ডের প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা এনামুল হক বহরগ্রামী, শুরা সদস্য মাওলানা ইউসুফ খাদিমানী, মাওলানা আহমদ ছগীর, মাওলানা আব্দুল গাফ্ফার প্রমুখ।

জানাগেছে, মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৯ হাজার ৩৮৪ জন, পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ৯ হাজার ৯৯ জন। এরমধ্যে পাস করেছে ৭ হাজার ৫০ জন, মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ১ হাজার ১৩৬ জন, প্রথম বিভাগে পাস করেছে ২ হাজার ২৬৩ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছে ১ হাজার ৪৪৮ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ২ হাজার ২০৩ জন, পাসের হার ৭৭ দশমিক ৪৪ শতাংশ।
সূত্র মতে, ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ি পুরুষ শাখায় ফযিলত (স্নাতক) জামাতে মোট পাস করেছে ৬৬৯ জন, এরমধ্যে মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ২৯ জন, প্রথম বিভাগ পেয়েছে ২০৯ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছেন ২৪০ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ১৯১ জন, পাসের হার ৭৭ দশমিক ৮৮ শতাংশ।
সানোবিয়্যা উলয়া (উচ্চ মাধ্যমিক) মোট পাস করেছে ৭৩১ জন, এরমধ্যে মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ১১৫ জন, প্রথম বিভাগ পেয়েছে ২৯২ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছেন ১৫২ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ১৭২ জন, পাসের হার ৭৮ দশমিক ১৮ শতাংশ।
সানোবিয়্যা আম্মাহ (মাধ্যমিক) মোট পাস করেছে ৮১৮ জন, এরমধ্যে মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ৭৬ জন, প্রথম বিভাগ পেয়েছে ২৮৭ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছেন ২১৮ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ২৩৭ জন, পাসের হার ৮০ দশমিক ৫১ শতাংশ।
মুতাওয়াসসিতা (নিম্ন মাধ্যমিক) মোট পাস করেছে ১ হাজার ১৪০ জন, এরমধ্যে মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ১৭১ জন, প্রথম বিভাগ পেয়েছে ৩৯৪ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছেন ২৭২ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ৩০৩ জন, পাসের হার ৮৫ দশমিক ১৩ শতাংশ।
ইবতেদাইয়্যাহ (প্রাথমিক) মোট পাস করেছে ২ হাজার ৫৭৩ জন, এরমধ্যে মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ৩০৪ জন, প্রথম বিভাগ পেয়েছে ৭১৪ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছেন ৪২১ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ১ হাজার ১৩৪ জন, পাসের হার ৭২ দশমিক ৬৪ শতাংশ।

হিফয (তাহফিযুল কোরআন) মোট পাস করেছে ৮৩৯ জন, এরমধ্যে মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ৪৩৪ জন, প্রথম বিভাগ পেয়েছে ২৯৪ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছেন ৮১ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ৩০ জন, পাসের হার ৮৬ দশমিক ০৫ শতাংশ।
এদিকে মহিলা শাখার ফযিলত (স্নাতক) মোট পাস করেছে ১১০ জন, এরমধ্যে মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ১ জন, প্রথম বিভাগ পেয়েছে ৩৪ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছেন ৩১ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ৪৪ জন, পাসের হার ৬৬ দশমিক ২৬ শতাংশ।
সানোবিয়্যা (উচ্চ মাধ্যমিক) মোট পাস করেছে ৬২ জন, এরমধ্যে মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ১ জন, প্রথম বিভাগ পেয়েছে ১২ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছেন ১৪ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ৩৫ জন, পাসের হার ৬৪ দশমিক ২৫ শতাংশ।
মুতাওয়াসসিতাহ (মাধ্যমিক) মোট পাস করেছে ১০৮ জন, এরমধ্যে মুমতাজ (এ প্লাস) পেয়েছে ৫ জন, প্রথম বিভাগ পেয়েছে ২৭ জন, দ্বিতীয় বিভাগ পেয়েছেন ১৯ জন, তৃতীয় বিভাগ পেয়েছে ৫৭ জন, পাসের হার ৬১ দশমিক ৭১ শতাংশ। উল্লেখ্য, বোর্ডের বিস্তারিত ফলাফল জানতে www.azaddiniadarah.com-এ।

কৃতকার্য শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৭১৬০জন। তন্মধ্যে ছাত্র ৬৭৭০জন। কৃতকার্য ছাত্রী ৩৯০ জন। প্রকাশিত ফলাফলে পুরুষ ও মহিলা শাখার ৯টি ক্লাসের মোট সমন্বিত পাসের হার হচ্ছে ৭৭ দশমিক ৪৪ শতাংশ।
আমাদের প্রতিনিধিদের প্রেরিত তথ্যে কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের ফলাফল এখানে দেয়া হলো:

আঙ্গুরা মুহাম্মদপুর

আব্দুল্লাহ আল ইমরান চৌধুরী জানান, ঐতিহ্যবাহী ইসলামী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জামিয়া মাদানিয়া আঙ্গুরা মুহাম্মদপুর ১৫৩৮-৩৯ হিজরী শিক্ষাবর্ষের কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় তার সাফল্যের ধারা অব্যাহত রেখেছে। প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও বোর্ডপরীক্ষায় কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল অর্জন করেছে জামিয়া।
দেশের প্রাচীনতম শিক্ষাবোর্ড আযাদ দ্বীনী এদারায়ে বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় ৬ মারহালায় মোট ৪৬ টি মুমতাজ লাভ করেছে জামিয়ার ছাত্ররা। এর মধ্য থেকে এদারা বোর্ডের সর্বোচ্চ জামাত ফজিলত ২য় বর্ষে বোর্ডে প্রথম স্থান, সানাবিয়্যাহ উলইয়া ২য় বর্ষে বোর্ডে ৩য় স্থান এবং ইবতিদায়ী ৫ম বর্ষে বোর্ডে যথাক্রমে ১ম, ২য় ৩য় ও ৪র্থ স্থান অর্জন করেছে জামিয়া। তানযীমুল মাদারিস বোর্ডে ৩ মারহালায় মোট ৩৯ টি মুমতাজ অর্জন করেছে জামিয়ার ছাত্ররা। উক্ত বোর্ডে এটি সর্বোচ্চ রেজাল্ট। দুই বোর্ডে সর্বমোট ৮৫ টি মুমতাজ লাভ করে নিজেদের সুনাম অক্ষুণ্ণ রেখেছে জামিয়ার সন্তানরা।
আমরা রাব্বে কারীমের বেহদ শুকরিয়া আদায় করছি। যোগাযোগের সুবিধাবঞ্চিত গ্রামীণ পরিবেশে অবস্থান করেও জামিয়া সিলেটের অন্যতম শীর্ষ প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিবছর নিজের শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ দিয়ে যাচ্ছে। শত বাধা আর হাজার প্রতিকূলতা ডিঙ্গিয়ে জামিয়ার সূর্যসন্তানেরা সর্বক্ষেত্রে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখছে- এটা মহান রাব্বুল আলামীনের অপার মেহেরবানি, আসাতিজায়ে কেরামের আন্তরিক মেহনত এবং ছাত্রদের রাতদিনের পরিশ্রমেরই ফল। জামিয়ার সাফল্যের এ ধারা অব্যাহত থাকুক। এগিয়ে যাক প্রাণের জামিয়া। মানুষ গড়ার এই পবিত্র মেহনত চলতে থাকুক শতাব্দীর পর শতাব্দী।

জামিয়া ইসলামিয়া আব্বাসিয়া কৌড়িয়া :

উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রেখেছে ঐতিহ্যবাহী দ্বীনী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জামিয়া ইসলামিয়া আব্বাসিয়া কৌড়িয়া ইসলামাবাদ,বিশ্বনাথ সিলেট ১৪৩৮-৩৯ হিজরী শিক্ষাবর্ষের কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল অর্জন করেছে।
দেশের প্রাচীনতম শিক্ষাবোর্ড আযাদ দ্বীনী এদারায়ে তা’লীম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় ৬ মারহালায় মোট ৩৪ টি মুমতাজ লাভ করেছে জামিয়ার ছাত্ররা।
সংক্ষেপে জামিয়ার ছাত্রদের ফলাফল :
মিশকাত : মুমতাজ ১.
মুখতাসার : মুমতাজ ৯.
কাফিয়া : মুমতাজ ৪.
নাহবেমীর : মুমতাজ ৫.
ইবতিদায়ী ৫ম : মুমতাজ ৪.
হিফজ তাকমীল : মুমতাজ ১১.
মোট মুমতাজপ্রাপ্ত ছাত্র : ৩৪।
জামেয়া বহরগ্রাম

জামেয়া বহরগ্রামের ছাত্ররা সাফল্যের ধারা অব্যাহত রেখেছে।
মোট পরীক্ষার্থী ২১১ জন। উত্তীর্ণ ::: ২০৬ জন। মুমতাজ ( A+) ৭৩ জন।
১ম বিভাগ ৭৭ জন।
২য় ” ২৬ ” ।
৩য় ” ৩০ ” ।
জামাত ভিত্তিক ফলাফল
১. হিফজ তাকমীল : মুমতাজ ৩১ টি।
২. ” ১৫ পারা : ” ৬ টি।
৩. সানভী উলইয়া ( মুখতাসার) ২ টি।
৪. সানভী আম্মাহ ২য় ( কাফিয়া) ৪ টি।
৫. সানভী আম্মাহ১ম(হেদায়াতুন্নাহু) ৫ টি।
৬. মুতাঃ ৩য় বর্ষ (নাহবেমীর) ৭ টি।
৭. মুতাঃ ২য় বর্ষ ( সরফ) ৯ টি।
৮. ইবতেদায়ী ৫ম বর্ষ ৪ টি।
৯. ইবতেদায়ী ৪র্থ বর্ষ ৫ টি।

জামিয়া হিদায়াতুল ইসলাম সিলেট

জামিয়া হিদায়াতুল ইসলাম সিলেট ‘আযাদ দ্বিনী এদারা বোর্ড পরীক্ষায় জামিয়ার ফলাফল নিম্নরুপ:
১ঃ নাহবেমীরে ৯জন ছাত্র অংশগ্রহণ করে, সবাই মুমতাজ লাভ করে।
২ঃইবতেদাইয়্যাহ পঞ্চমবর্ষে ১১জন অংশগ্রহণ করে, ১০জন মুমতাজ লাভ করে, আর ১জন প্রথম বিভাগ লাভ করে।
৩ঃ হিফজ তাকমীলে ৫জন অংশগ্রহণ করে, ৩জন মুমতাজ আর ২জন প্রথম বিভাগ লাভ করে।তিন বোর্ডে মোট ৬৩ জন ছাত্রঅংশগ্রহণ করে ৫২ জন মুমতায লাভ করে।

জামেয়া ইসলামিয়া আরাবিয়া শামীমাবাদ:

আযাদ দ্বীনি এদারেয়ে তা’লীম বাংলাদেশ-এর চূড়ান্ত পরীক্ষায় জামেয়া ইসলামিয়া আরাবিয়া শামীমাবাদ.সিলেট এর আশানুরূপ ফলাফল অর্জন করেছে। জানাগেছে, ১৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৪ জন মমতাজ ও ১ জন প্রথম স্থান অধিকার করে। জামেয়ার প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল হাফিজ মাওলানা সৈয়দ শামিম আহমদ তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ এবং মাদ্রাসার উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করেছেন।

মাদরাসাতুল মদীনা :
১৪৩৮-৩৯ হিজরী শিক্ষাবর্ষের কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় মাদরাসাতুল মদীনা সিলেট তার সাফল্যের ধারা অব্যাহত রেখেছে। প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও বোর্ডপরীক্ষায় কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল অর্জন করেছে মাদ্রাসা। দেশের প্রাচীনতম শিক্ষাবোর্ড আযাদ দ্বীনী এদারায়ে বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় ৪ মারহালায় মোট ২৪টি মুমতাজ লাভ করেছে মাদ্রাসার ছাত্ররা। তনযীমুল মাদারিস বোর্ডে ৩ মারহালায় মোট ১৮ টি মুমতাজ অর্জন করেছে মাদরাসার ছাত্ররা।
দুই বোর্ডে সর্বমোট ৪২ টি মুমতাজ লাভ করে নিজেদের সুনাম অক্ষুণ্ণ রেখেছে মাদরাসার সন্তানরা।

মারকাজুত তাহফিজ সিলেট

মারকাজুত তাহফিজ সিলেট সিলেট হিফজ তাকমীল: মুমতাজ ১৪ টি। তানযীমুল মাদারিস বোর্ডে হিফজে মুমতায ১৩ টি। বেফাকুল মাদারিসে হিফজ তাকমিলে মুমতাজ ১৫টি রাবিতাতুল মাদারিস সিলেটে হিফজে মুমতাজ ১০টি
সর্বমোট ৫২ টি।

এই সংবাদটি 1,146 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com