বৃহস্পতিবার, ২৮ জুন ২০১৮ ১০:০৬ ঘণ্টা

গাজীপুরের নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বেগ প্রকাশ ক‌রছে: বার্নিকাট

Share Button

গাজীপুরের নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বেগ প্রকাশ ক‌রছে: বার্নিকাট

ডেস্ক রিপোর্ট: খুলনার মতো গাজীপুরের নির্বাচন প্রহসনমূলক ঘটনা ঘটেছে মন্তব্য ক‌রে বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাট বলেছেন, ‘গাজীপুরের এ নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগের প্রকাশ ক‌রে‌ছে।’

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ডিপ্লোম্যাটিক সাংবাদিক অ্যাসেসিয়েশনের (ডিক্যাব) এক মত বিনিময়সভায় তার দেশের উদ্বেগের কথা জানান বার্নিকাট। ডিকাব টকে বাংলাদেশকে রোহিঙ্গা সংকট, নিরাপত্তা ও ব্যবসা-বাণিজ্যে মার্কিন সহযোগিতা নিয়ে বার্নিকাট আলোকপাত করেন।তবে আগের নির্বাচনের চেয়ে খুলনা-গাজীপুরে সহিংসতা কম হওয়া এবং সব দলের অংশগ্রহণ স্বস্তির ব্যাপার বলে তিনি মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘গাজীপুর সির্টি করপোরেশন নির্বাচনে ব্যালট পেপার চুরি, ভুয়া ভোট প্রদান, শতাধিক পোলিং এজেন্টকে বের করে দেয়া ও গ্রেপ্তারসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। ফলে সিটি নির্বাচন এমন হলে জাতীয় নির্বাচনেও তার প্রভাব পড়বে বলে।’

বার্নিকাট বলেন, ‘গণতন্ত্রিক দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন খুবই প্রয়োজন, তবে সেটি শুধু ভোটের দিন নয়, এর কার্যক্রম অনেক আগে থেকেই শুরু করতে হবে। জনগণ যাতে তার পছন্দের মানুষকে ভোট দিতে পারে সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।’

উল্লেখ্য, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নতুন নেতৃত্ব বেছে নিতে মঙ্গলবার করপোরেশনের ৪২৫টি ভোট কেন্দ্রে ভোট হয়। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। নৌকা প্রতীকে তিনি চার লাখ ১০ ভোট পেয়েছেন। অপরদিকে বিএনপির মেয়র প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার পেয়েছেন এক লাখ ৯৭ হাজার ৬১১ ভোট।

ভোট ডাকাতি, জাল ভোট ও অনিয়মের অভিযোগ এনে ওই ফল প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপি। আর আওয়ামী লীগ বলছে, নেতিবাচক আন্দোলন জনগণ পছন্দ করে না, এটা গাজীপুরে প্রমাণ হয়েছে। বিএনপি জনগণের রায়কে প্রত্যাখ্যন করে গণতন্ত্রের রীতিনীতিকে অবজ্ঞা করেছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বার্নিকাট বলেন, সম্প্রতি মাদক নির্মূল অভিযানে শুরু হয়েছে। এটিকে একটি ভালো উদ্যোগ হিসেবে আমরা সাধুবাদ জানাই। এ অভিযানে প্রায় ১৫০ জন মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। অথচ যারা মাদক চোরচালানের মূল হোতা তারা ধরা-ছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছেন। তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

বাংলাদেশের জিএসপি সুবিধা ফিরিয়ে দেয়া হবে কি না জানতে চাইলে যুক্তরাষ্ট্রের দূত বলেন, আগের চাইতে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পে অনেক উন্নতি হয়েছে। তবে এখনও অনেক পোশাক কারখানায় নিরাপত্তা ও অবকাঠোমোগত সমস্যা রয়েছে। সেসব বিষয়ে পরিবর্তন জরুরি। বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে না গেলে বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের ক্ষতি হতে পারে।

জাতিসংঘের স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে উত্তরণ হওয়ায় তিনি বাংলাদেশের প্রশংসা করেন। তবে তার মতে, বাংলাদেশে শক্তিশালী গণতন্ত্র ও অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রার জন্য গ্রহণযোগ্য এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অপরিহার্য।

এই সংবাদটি 1,048 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com