বৃহস্পতিবার, ১২ জুলা ২০১৮ ০৫:০৭ ঘণ্টা

বিএনপি ভোটে আসবে, ধারণা সিইসিরও

Share Button

বিএনপি ভোটে আসবে, ধারণা সিইসিরও

ডেস্ক রিপোর্ট :

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মতোই প্রধান নির্বাচন কমিশনার-সিইসি কে এম নুরুল হুদাও মনে করেন আগামী জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে।

৩০ জুলাই রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটকে সামনে সামনে রেখে বৃহস্পতিবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক শেষে এ আশার কথা বলেন সিইসি।

নির্বাচন কমিশন ভবনে এই বৈঠকে পুলিশের মহাপরিদর্শক জাবেদ পাটোয়ারি, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ ছাড়াও গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআই, ডিজিএফআই এর প্রধানরা যোগ দেন।

বেলা ১১টা থেকে একটা পর্যন্ত এই বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের মুখোমুখি হন সিইসি। এ সময় তাকে প্রশ্ন রাখা হয় আগামী জাতীয় নির্বাচন নিয়ে।

খালেদা জিয়া কারাগারে, এই অবস্থায় বিএনপি ভোটে আসবে কি না- এমন প্রশ্ন ছিল নুরুল হুদার কাছে।

জবাব আসে, ‘আমি আশা করি বিএনপিকে নির্বাচনে আসবে। আর তিনি যে কারাগারে, এ বিষয়ে আমাদের নির্বাচন কমিশনের কিছু করার নেই।’

গত ৫ জুলাই দলের সংসদীয় দলের সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও দলের সংসদ সদস্যদেরকে বলেন, আগামী নির্বাচন হবে অংশগ্রহণমূলক। আর বিএনপি এতে অংশ নেবে।

৭ জুলাই দলের বিশেষ বর্ধিত সভাতেও দলের ইউনিয়ন নেতাদেরকে ঢাকায় ডেকে এনে শেখ হাসিনা বলেন, আগামী নির্বাচন হবে কঠিন। এখানে সবাই দ্বন্দ্ব-বিরোধ ভুলে যেন এক হয়।

নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের দাবি পূরণ না হওয়ায় ২০১৪ সালের দশম সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়নি বিএনপি। তবে নির্দলীয় সরকারের দাবি পূরণ না হওয়ার পরও আগামী নির্বাচনে তাদের অংশগ্রহণ ঝুঁকিপূর্ণ এই কারণে যে, তাতে তাদের নিবন্ধন বাতিল হতে পারে। আর সে ক্ষেত্রে দলীয়ভাবে কোনো নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগ থাকবে না তাদের। কারণ, নিবন্ধন আইন অনুযায়ী পরপর দুই বার ভোট বর্জনকারী দলের নিবন্ধন বাতিলের সুযোগ আছে।

বিএনপি অভিযোগ করছে, দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে তারা সমান সুযোগ পাবে না। এই বিষয়টি নিয়েও সিইসির কাছে প্রশ্ন ছিল একজন সাংবাদিকের।

জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ প্রচারে থাকলেও বিএনপি প্রচারে নেই। আবার তারা সভা সমাবেশের অনুমতি চেয়ে প্রত্যাখ্যাত হচ্ছে একাধিকবার। এই অবস্থায় নির্বাচনে সবার জন্য সমান সুযোগ আছে কি না-এমন প্রশ্নে নুরুল হুদা বলেন, ‘সবার জন্য সমান সুযোগ আছে, এটা থাকবে।’

তিন সিটি নির্বাচন নিয়ে বৈঠকের আলোচ্য বিষয় নিয়েও কথা বলেন সিইসি। বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে তিন সিটি নির্বাচন সুষ্ঠু করতে যা যা প্রয়োজনীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তার সবই করবে।’

সিইসি জানান, আইন শৃঙ্খল বাহিনীর কর্মকর্তারা তাকে জানিয়েছেন আগামী ৩০ জুলাইয়ের ভোট নিয়ে কোনো কোনো রকমের ঝুঁকি বা আশঙ্কা নেই।
গত ২৬ জুন গাজীপুর ও ১৫ মে খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে বিএনপির পক্ষপাতের অভিযোগের বিষয়েও কথা বলেন সিইসি। বলেন, ‘অভিযোগ আসবে, তবে এটার সত্যতা কতটুকু সেটা যাচাই করতে হবে।’

গাজীপুর সিটি নির্বাচনে কী হয়েছে, তার তদন্ত করে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার কী জানিয়েছেন- এমন প্রশ্নে জবাব আসে, ‘সেই রিপোর্ট এখনও পায়নি কমিশন।’

এই সংবাদটি 1,025 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com