Sylhet Report | সিলেট রিপোর্ট | সৈয়দ মবনু’র অপ্রয়োজনীয় ভাবনা, প্রয়োজনীয় হয়েগেলো?
মঙ্গলবার, ৩১ জুলা ২০১৮ ০৪:০৭ ঘণ্টা

সৈয়দ মবনু’র অপ্রয়োজনীয় ভাবনা, প্রয়োজনীয় হয়েগেলো?

Share Button

সৈয়দ মবনু’র অপ্রয়োজনীয় ভাবনা, প্রয়োজনীয় হয়েগেলো?

সৈয়দ মবনু:

২১ জুলাই আমি আমার ফেসবুক ওয়ালে লিখেছিলাম -সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ২০১৮ নিয়ে মবনু’র অপ্রয়োজনীয় ভাবনা—-‘।

এতে বলেছিলাম, সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জামায়াত যদি পনেরো হাজারের বেশি ভোট লাভ করে তবে তা হবে তাদের বিজয়। যদিও কেউ কেউ পরিসংখ্যান সম্পর্কিত ধারাণা ছাড়া জামায়াতের বিজয়ের কথা বলছেন, আবার কেউ কেউ ভোটের মিথ্যাচারের অংশ হিসাবে বিজয়কে নিশ্চিত বলে চিতকার দিচ্ছেন, প্রকৃত সিলেট সিটি জামায়াতের সমর্থক ভোটার পনেরো হাজারের বেশি নয়। এর অতিরিক্ত তারা যদি একটি ভোট পায় সেটাই তাদের বিজয়। সিলেট সিটি কর্পোরেশনে আরিফ চৌধুরীকে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিম শেষ পর্যন্ত সমর্থন করেছেন। এতে আরিফ চৌধুরীর দশ-পনেরো হাজার ভোট নিশ্চিত হয়েছে। বিএনপি নাকি চেষ্টা করছে জামায়াতের প্রার্থীকে বসানোর। যারা এই চেষ্টা করছেন, তারা কোন উদ্দেশ্যে চেষ্টা করছেন তা জানি না। তারা ভাবছেন, জামায়াত বসে গেলে বিএনপির দশ-পনেরো হাজার ভোট বৃদ্ধি পাবে, কিন্তু তা ভুল। কারণ, জোটের রাজনীতিতে জামায়াত বসে গেলেও আরিফ চৌধুরীকে ভোট দেবে না। তাই জামায়াত প্রার্থী বসে গেলে আরিফ চৌধুরীর ভোট বৃদ্ধি পাবে পাঁচ হাজার। কিন্তু এই ঐক্য জামায়াত বিরোধীদেরকে আরিফ চৌধুরীর ভোট থেকে সরিয়ে নিবে। বিশেষ করে আলেম সমাজের যারা আকিদার বিশ্বাসী কিংবা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাধারীদের কাছে বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যাবে। ‘

#
ভোটের হিসাব :
ধানের শীষ ৯০,৪৯৬
নৌকা ৮৫,৮৭০
ঘড়ি (জামায়াত) ১০,৯৫৪
হাতপাখা (ইসলামি আন্দোলন) ২১৯৫
মই (সিপিবি বাসদ) ৯০০
হরিণ ২৯২
বাস ৫৮২

#
আমার কথা কি সত্য প্রমাণিত হয়নি? জামায়াত কি পনেরো হাজারের বেশি ভোট লাভ করেছে? জামায়াতি যারা এই লেখা পড়ে আমাকে গালি দিয়েছিলেন, মন্দকথা বলেছিলেন কিংবা শত্রু ভেবেছিলেন, তাদের সবার জন্য দোয়া রইলো।

এই সংবাদটি 1,073 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com