মঙ্গলবার, ০৭ আগ ২০১৮ ০১:০৮ ঘণ্টা

‘সে গরু কেটেছে, আমি তাকে কেটেছি’

Share Button

‘সে গরু কেটেছে, আমি তাকে কেটেছি’

কয়েকদিন আগে ভারতের রাজস্থানের আলোয়ারের এক ব্যক্তিকে গরুচোর সন্দেহে পিটিয়ে খুন করা হয়েছিল। সম্প্রতি ওই ব্যক্তির ওপর হামলাকারীদের নিয়ে একটি বিস্ফোরক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে এনডিটিভি। তাদের একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে দেখা যায় এক হামলাকারী নিহত ব্যক্তির প্রসঙ্গে বলছে, সে গরু কাটছিল, আমি তাকে কেটে দিয়েছি।এনডিটিভি’র প্রতিবেদকরা আরএসএস এবং অন্যান্য হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের গবেষণাকারীর ছদ্মবেশ নিয়ে দুই রাজ্যের দুটি গণপিটুনির ঘটনার স্থান পরিদর্শন করে।
প্রথম স্থানটি ছিল উত্তরপ্রদেশের হাপুর জেলার বাজেধা খুর্দ গ্রাম। সেখানে ১৮ জুন উত্তরপ্রদেশের হাপুর জেলায় এক মাংস ব্যবসায়ী কাসিম কুরেশিকে(৪৫) গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করা হয়। একই আক্রমণে গুরুত্বরভাবে আহত হন কৃষক সামিয়ুদ্দিন(৬৫)।
ওই ঘটনায় ন’জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের মধ্যে চারজন ছাড়া পেয়ে যায় জামিনে। ঘটনার অন্যতম অভিযুক্ত রাকেশ শিশোদিয়ার সঙ্গে বাজেধা খুর্দ গ্রামে দেখা করতে যায় এনডিটিভির দলটি।
আদালতে লিখিতভাবে শিশোদিয়া জানিয়েছিল তার এই ঘটনায় কোনও ভূমিকা নেই। তিনি কোনোভাবেই এর সঙ্গে জড়িত নয়। কিন্তু গোপন ক্যামেরায় নিজের অপরাধ বুক ফুলিয়ে স্বীকার করে নিয়ে বলে, জেল কর্তৃপক্ষের কাছেও নিজের অপরাধ সে স্বীকার করেছিল। পাঁচ সপ্তাহ জেলে থাকার পর এখন ওই অভিযুক্ত জামিনে মুক্ত।
শিশোদিয়া বলেছে,আমি তো জেলারের সামনেই বলে দিয়েছিলাম যে, ওরা গরু কাটছিল, তাই আমি ওদের কেটে ফেলেছি।তিনি জানান, প্রথমবার জেলে গেলাম আমি। আমার তো ভয়ে কুঁকড়ে থাকার কথা ছিল। কিন্তু, আমি সেইসব রেয়াত করিনি। আমাকে জেলার নিজেও জিজ্ঞাসা করেন যে, কোন মামলায় জেলে এলে তুমি। আমি সঙ্গে সঙ্গে বলে দিলাম ৩০২ আর ৩০৭ ধারায়। পুরো খুন আর অর্ধেক খুনের জন্য। ওরা গরু কাটছিল, আমি ওদের কেটে দিয়েছি। ব্যাস! আর কী!
শিশোদিয়া জানান ছাড়া পাবার এলাকায় তিনি নায়ক পরিচিতি পেয়েছেন।বলেন, আমাকে জেল থেকে আনতে তিন-চারটে গাড়ি গিয়েছিল। আমার নামে জিন্দাবাদ স্লোগান দেওয়া হয়। খুব গর্ব হচ্ছে আমার। এনডিটিভি

এই সংবাদটি 1,031 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com