বৃহস্পতিবার, ১০ নভে ২০১৬ ০৩:১১ ঘণ্টা

অমর কীর্তি আঞ্জুমান, কীর্তিমানের মৃত্যু নেই

Share Button

অমর কীর্তি আঞ্জুমান, কীর্তিমানের মৃত্যু নেই

মুহাম্মদ রুহুল আমীন নগরী: খাদিমুল কুরআন হযরত মাওলানা ক্বারী আলী আকবর সিদ্দীক (ভানুগাছী হুজুর) আমাদের মাঝে আজ নেই। তিনি বিগত     ৮ মার্চ ২০১৬ ঈসায়ী মঙ্গলবার বাদ ফজর সিলেটের একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাইহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তার বয়েস হয়েছিল ৭০ বছর। তিনি স্ত্রী, চার ছেলে, চার মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী ও আত্মীয়-স্বজন রেখে গেছেন। ঐদিন দক্ষিণ সুরমার গোটাটিকরস্থ আঞ্জুমান কমপ্লেক্সে শায়খুল কুররা মাওলানা আলী আকবর সিদ্দীকের জানাযা শেষে আঞ্জুমান কমপ্লেক্সেই তাকে সমাহিত করা হয়। মরহুম মাওলানা আলী আকবর সিদ্দীক আঞ্জুমানে তালিমুল কুরআন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালনের পর মৃত্যুপর্যন্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেগেছেন। আঞ্জুমানের সভাপতির পাশাপাশি জামিয়া তা’লীমুল কুরআন গোটাটিকর, সিলেট ও সরইবাড়ী ইসলামিয়া আরাবিয়া হাফিজিয়া মাদরাসা এবং ভানুগাছ জামিয়া তাজবীদুল কুরআন মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা মুহতামিমের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। রমজান মাসে কোরআন শিক্ষা কার্যক্রমের অন্যতম সংগঠন আঞ্জুমানে তা’লীমুল কুরআন বাংলাদেশের ৩৫ বছর পূর্তি ও দুইদিন ব্যাপী দস্তারবন্দী মহাসম্মেলন আজ (১০ নভেম্বর)  বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে।  আঞ্জুমানের ৩৫ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠিত এই মহাসম্মেলনে পাঁচ হাজার কারী’কে সম্মাননা স্বরূপ পাগড়ী ও নারীদের ওড়না প্রাদান করা হবে। সিলেট নগরীর দক্ষিণ সুরমার গোটাটিকরস্থ আঞ্জুমান কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনে অতিথি হিসেবে অংশ নেবেন আল্লামা আবুল হাসান আযমী সাহেব ভারত, শেখ হুমুদ বিন আহমদ আল আহমারী সৌদিআরব, ড. মাওলানা শহিদুল ইসলাম ফারুকী মালয়েশিয়া। তাফসীর পেশ করবেন- আল্লামা আব্দুল মুমিন শায়খে ইমামবাড়ী, শায়খুল হাদীস আল্লামা খলিলুর রহমান বর্ণভী, শায়খুল হাদীস আল্লামা আব্দুল বারী ধর্মপুরী, শায়খুল হাদীস আল্লামা মুখলিছুর রহমান কিয়ামপুরী, শায়খুল হাদীস আল্লামা মুহিবুল হক গাছবাড়ী, শায়খুল হাদীস আল্লামা আব্দুস শহীদ গলমুকাপনী, শায়খুল হাদীস আল্লামা নূরুল ইসলাম খান, শায়খুল হাদীস আল্লামা জুবায়ের আহমদ ইন্দেশ্বরী, মুফতী সাঈদ নূর মানিকগঞ্জ, মুফতি আবুল কালাম জাকারিয়া, প্রিন্সিপাল মাওলানা মজদুদ্দীন আহমদ, মাওলানা মুহিউল ইসলাম বুরহান, মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী সাবেক এমপি, মাওলানা তাফাজ্জুল হক আজিজ ঢাকা, মাওলানা মুজিবুর রহমান চট্রগ্রামীসহ দেশের প্রখ্যাত উলামায়ে কিরাম। মনোমুগ্ধকর তিলাওয়াত পরিবেশন করবেন, হাটহজারী মাদরাসার ক্বিরাআত বিভাগীয় প্রধান, আঞ্জুমান কেন্দ্রীয় সনদ জামাতের সিনিয়র প্রশিক্ষক ক্বারী জহিরুল হক, আন্তর্জাতিক পুরস্কারপ্রাপ্ত, বিশ্বের ৭২টি দেশে অনুষ্ঠিত হিফজ প্রতিযোগিতায় একাধিকবার ১ম স্থান অধিকারী অসংখ্য ছাত্রের উস্তাদ, ক্বারী নাজমুল হাসান, ঢাকা, হাফিজ জাকারিয়া, ক্বারী আশিক মোস্তাফি, ক্বারী আব্দুর রহীম আজমী, ক্বারী আসলাম বিন জহির, ক্বারী আব্দুল্লাহ আল মামুন, হাফিজ ক্বারী সাকিব হাসান সহ জাতীয় পর্যায়ের খ্যাতিমান ক্বারীগন। আঞ্জুমানের কর্ণধার মরহুম আলী আকবর (র) আমাদের মাঝে নেই ,কিন্তু রয়েছে তাঁর অমর কির্তী। আর এসব কীর্তিতেই তিনি বেচেঁ থাকবেন যুগযুগান্তরে।
সংক্ষিপ্ত পরিচয়: ১৯৪৬ সালের ৫ জুন চাঁদপুর জেলার হাজিগঞ্জ থানার বাখরপাড়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন শায়খুল কুররা মাওলানা আলী আকবর সিদ্দীক। পরবর্তীতে ১৯৫৩ সালে পিতা-মাতা মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ থানার ভানুগাছ সরইবাড়ী গ্রামে এসে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। তাঁর পিতা মরহুম মাওলানা রহীম উদ্দীন পাটওয়ারী (রহ.), মাতা মরহুমা বেগম আলতাফুন্নেছা। দাদা মরহুম মুহাম্মদ মুলাম গাজী পাটওয়ারী (রহ.)।
শিক্ষা : তিনি তাঁর জন্মস্থানেই প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করেন। পরে সরইবাড়ী মক্তবে আরবি ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। ১৯৬০ সালে বি-বাড়ীয়ার কসবা থানার ধজনগর গ্রামের ইসলামিয়া মাদরাসা থেকে ৫ম শ্রেণী পাশ করেন। ১৯৬২ থেকে ১৯৬৮ সাল পর্যন্ত হবিগঞ্জ জেলার মিরপুর জামিয়া হুসাইনিয়া মাদরাসায় অত্যন্ত সুনামরে সাথে আলিয়া চতুর্থ বর্ষ পর্যন্ত শিক্ষা লাভ করেন। উচ্চ শিক্ষা লাভের জন্য ১৯৬৯ সালে ঐতিহ্যবাহী জামিয়া ইসলামিয়া হুসাইনিয়া গহরপুর সিলেটে ভর্তি হয়ে ১৯৭১ সালে কৃতিত্বের সাথে দাওরায়ে হাদীস (মাস্টার্স সমমান) পাশ করেন।
১৯৬৪ সালে দেশের স্বনামধন্য ক্বারী হযরত ইব্রাহীম রহ. চাঁদপুরীর নিকট পূর্ণাঙ্গ (ক্বিরাআতে হাফস) প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে দারুল উলুম দেওবন্দের ক্বিরাআত বিভাগীয় প্রধাণ আল্লামা আবুল হাসান আজমীর কাছ থেকে ক্বিরাআতে “সাবআ আশারার” বিশেষ সনদ লাভ করেন।
অধ্যাপনা : ফারেগ হওয়ার পর ১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠা করেন সরইবাড়ী ইসলামিয়া আরাবিয়া মাদরাসা। পরে মৌলভীবাজার সদর থানার ভাদগাঁও ইমদাদুল উলুম মাদরাসার শিক্ষা সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। পরে বালাগঞ্জ ফিরোজাবাগ মাদরাসার শিক্ষা সচিব ও জামে মসজিদের ইমাম ও খতিবের দায়িত্ব পালন করেন। মৌলভীবাজার সদর থানার দামিয়া বাজার জামে মসজিদেও কিছুদিন ইমাম ও খতিবের দায়িত্ব পালন করেন। মৃত্যুপর্যন্ত স্বপ্রতিষ্ঠিত সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার গোটাটিকরস্থ জামিয়া তা’লিমুল কুরআন মাদরাসার মুহতামিমের দায়িত্ব পালন করেছেন। প্রাতিষ্ঠানিক সংশ্লিষ্টতা : তিনি বেশকিছু প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালনায় যুক্ত ছিলে। উল্লেখযোগ্য কয়েকটি হলো:
প্রতিষ্ঠাতা : আঞ্জুমানে তা’লীমুল কুরআন বাংলাদেশ।
কেন্দ্রীয় সভাপতি : আঞ্জুমানে তা’লীমুল কুরআন বাংলাদেশ।
মহা-পরিচালক : আদর্শ ফুরক্বানিয়া মক্তব এসোসিয়েশন বাংলাদেশ।
প্রতিষ্ঠাতা মুহতামিম : জামিয়া তা’লীমুল কুরআন গোটাটিকর সিলেট।
প্রতিষ্ঠাতা মুহতামিম : সরইবাড়ী ইসলামিয়া আরাবিয়া মাদরাসা কমলগঞ্জ, মৌলভীবাজার।
প্রতিষ্ঠাতা মুহতামিম : জামিয়া তাজবিদুল কুরআন, ভানুগাছ, মৌলভীবাজার।
মুহতামিম : হাফিজিয়া মাদরাসা, টেবলাই বাজার, দোয়ারা, সুনামগঞ্জ।
প্রধান উপদেষ্টা : আঞ্জুমানে জাকেরীন বাংলাদেশ। (তাসাউফ ভিত্তিক সংগঠন)।
সাবেক সভাপতি : আশরাফুল মাদারিস, ফেনিবিল, সুনামগঞ্জ।
উপদেষ্টা : ইত্তেহাদ সমাজকল্যাণ পরিষদ সরইবাড়ী, ভানুগাছ।
সাবেক পরিক্ষক (ইলমুল ক্বিরাআত): বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ।
সদস্য, শুরা ও আমেলা: তানজীমুল মাদারিস মৌলভীবাজার।
সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগাঠনিক সম্পাদক : হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ।
সাবেক সভাপতি : জাতীয় ইমাম সমিতি কমলগঞ্জ থানা শাখা, মৌলভীবাজার।
আধ্যাত্বিকতা : তিনি ছাত্রাবস্থায়ই ইলমে তাসাউফের উপর চর্চা শুরু করেন। নিয়মতান্ত্রিকভাবে ইলমে তাসাউফ অর্জনের লক্ষে খলিফায়ে মাদানী (র) কুতবে জামান শায়খ লুৎফুর রহমান বর্ণভী রহ.-এর নিকট বাইয়াত গ্রহণ করেন। শায়খের ইন্তেকালের পর তার বিশিষ্ট খলিফা হযরত মাওলানা শায়খ আব্দুর রহমান শাওক্বীর কাছ থেকে ইজাযত লাভ করেন।

 

এই সংবাদটি 1,037 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com