রোগীর মৃত্যুতে চিকিৎসদের উপর হামলা, মৃতের ছেলের কারাদণ্ড

প্রকাশিত: ৪:৫৬ অপরাহ্ণ, জুন ১৮, ২০১৬

রোগীর মৃত্যুতে চিকিৎসদের উপর হামলা, মৃতের ছেলের কারাদণ্ড

Shelyt-OsmaniHospitalপ্রথম বাংলা নিউজ : সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সি.সি.ইউ (করোনারি কেয়ার ইউনিট) তে এক রোগীর মৃত্যুকে ঘিরে  চিকিৎসক ও স্বজনদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এই সংঘর্ষের পর মৃতের ছেলেকে চিকিৎসক লাঞ্ছনার অভিযোগে তিন মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। শনিবার (১৮ জুন) ভোরে হৃদরোগে আক্রান্ত এক রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রমতে জানা যায়- শনিবার ভোর ৪টায় হৃদরোগে আক্রান্ত ৫৫ বছর বয়স্ক আতিকুর রহমান মারা যান। গত ১৬ জুন থেকে হার্ট ফেইলিউর হয়ে তিনি ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। শনিবার ভোরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে করোনারি কেয়ার ইউনিট স্থানান্তর করা হয়। সেখানেই তাঁর মৃত্যু ঘটে। তাদের বাড়ি ওসমানীনগর উপজেলার শেরপুর।

আতিকুর রহমানের মৃত্যুর সংবাদ পাওয়ার পর তার ছেলে ও স্বজনরা চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে চড়াও হন বলে অভিযোগ উঠে।

এ সময় দায়িত্ব পালন করা সহকারী রেজিস্টার ডাঃ পলাশ চন্দ্র দে ও কর্তব্যরত ডাঃ আবতাহির রহিম তাহা বলেন- মৃত্যু সংবাদ পেয়ে ছেলে মকবুল মিঞা ও তার স্বজনরা চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ এনে চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে চড়াও হয়ে হামলা চালান।

খবর পেয়ে অন্য চিকিৎসক ও নার্সরা জড়ো হয়ে মকবুল মিঞাকে(২২) মারধর করে কর্তব্যরত পুলিশের কাছে তোলে দেন। এসময় চিকিৎসক লাঞ্ছনার প্রতিবাদে কর্তব্যরত সকল চিকিৎসক কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়ে ‘অভিযুক্ত’ মকবুল মিঞার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন।

পরিস্থিতি সামাল দিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে এবং ইন্টার্ন চিকিৎসকদের দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে মোবাইল কোর্ট (ভ্রাম্যমাণ আদালত) এসে  বিচার প্রক্রিয়া শেষে অভিযুক্তকে মকবুল মিয়াকে তিনমাসের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করেন। এই আদেশের পর কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাঁদের কর্মসূচী স্থগিত করেছেন ।

এই সংবাদটি 5 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com