সোমবার, ১০ সেপ্টে ২০১৮ ০৯:০৯ ঘণ্টা

কওমি বিল সংসদে উত্থাপিত হলো

Share Button

কওমি বিল সংসদে উত্থাপিত হলো

সিলেট রিপোর্ট: সকল জল্পনা কল্পনার অবসানঘটিয়ে জাতীয় সংসদের চলতি অধিবেশনেই কওমি মাদরাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্সের মান দিতে বিল উত্থাপিত হলো। সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেবে বলে জানাগেছে। আজ সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাত পৌনে ন’টায় এই বিল উত্থাপিত হয়। জাতীয় সংসদের ২২তম অধিবেশনের দ্বিতীয় দিন সোমবার
রাতে বিলটি উত্থাপন করেন শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া সংসদ অধিবেশনে বিলটি উত্থাপনের পর পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয় এবং আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে এ বিষয়ে প্রতিবেদন পেশ করতে বলা হয়েছে।
বিলটির বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, কওমি মাদরাসার ১৫ লক্ষ শিক্ষার্থীকে স্বীকৃতি দিয়ে তাদের শিক্ষার মান নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
এর আগে সংসদে এ বিল উত্থাপন করা হলে সময় সল্পতার কারণে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম এর বিরোধিতা করেন। তিনি বলেন, মাত্র ১০ মিনিট আগে আমরা বিলটি হাতে পেয়েছি যা তিন দিন আগে পাওয়ার কথা ছিল।এ সময় মাননীয় স্পীকারের বিশেষ পাওয়ারে এ অধিবেশনেই তিন স্তর পার করে তা শিক্ষামন্ত্রণালয়ে পাঠানোর অনুমতি দেন।

প্রসঙ্গত,এর আগে ২০১৭ সালের ১১ এপ্রিল কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসকে মাস্টার্স সমমর্যাদা ঘোষণা করে সরকার। ঐ দিন গণভবনে আলেমদের এক অনুষ্ঠানে কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড বেফাকের (বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ) চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমদ শফীর উপস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ঘোষণা দেন। পরে শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করে। এর আলোকেই এ সংক্রান্ত আইনের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। এতে বলা হয়, কওমি মাদ্রাসার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে এবং দারুল উলুম দেওবন্দের মূলনীতিগুলোকে ভিত্তি করে এই সমমান দেয়া হল। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, এ সমমান দেয়ার লক্ষ্যে বেফাক সভাপতি (পদাধিকার বলে) আল্লামা শফীর নেতৃত্বে কমিটি গঠন করে দেয়া হয়। এর পরে গত ১৩ আগস্ট ২০১৮ মন্ত্রীসভায় কওমী সনদের খসড়া আইনটি অনুমোদ লাভকরে।

এই সংবাদটি 1,165 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com