সোমবার, ২৯ অক্টো ২০১৮ ০১:১০ ঘণ্টা

সিলেটে অ্যাম্বুলেন্স চলাচলে বাধা, প্রশাসন নিরব

Share Button

সিলেটে অ্যাম্বুলেন্স চলাচলে বাধা, প্রশাসন নিরব

সিলেট রিপোর্ট: সারাদেশের সাথে সিলেটেও টানা দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে শ্রমিকদের কর্মবিরতি। দ্বিতীয় দিনে এসে পরিবহন শ্রমিকদের বেপরোয়া আচরণ থামছেই না। তাদেরকে থামানোর কোনও উদ্যোগও নিচ্ছে না পুলিশ প্রশাসন।

সোমবার সকাল থেকে নগরীর দক্ষিণ সুরমা এলাকাতে পরিবহন শ্রমিকরা ন্যাক্কারজনক আচরণ করেছেন যাত্রীদের সাথে। তারা রোগীবাহী বেশ কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্সের পথ আগলে দাঁড়িয়েছে।

অথচ দেশের যেকোন পরিস্থিতিতেও অ্যাম্বুলেন্স চলাচলে কোন বাধা নেই। কিন্তু পরিবহন শ্রমিকরা কোন বাধাই মানছে না। যেকোন মূল্যেই তাদের দাবি আদায়ে তারা ব্যস্ত। তাদের এমন আচরণে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে।

বেশ কয়েকজন যাত্রী ক্ষোভের সাথে জানিয়েছেন, পরিবহন শ্রমিকদের থামানো প্রয়োজন। কয়েকদিন পর পর তারা রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। তারা কাউকেই পরোয়া করেনা। এতো ক্ষমতা তারা কোথা থেকে পাচ্ছে? এমন প্রশ্ন অনেকের।

রিকশাও চলতে দিচ্ছেনা তারা। নগরীর প্রবেশ পথ শাহজালাল সেতু ও হুমায়ূন রশীদ চত্বর এলাকাতে রিকশা যাত্রীদের সাথে বাজে আচরণ করছে শ্রমিকরা। তারা রিকশা চালকদের মারধোরও করছে।

পাশাপাশি রিকশা থেকে যাত্রীদের নামিয়ে পায়ে হেটে চলাচল করতে বাধ্য করছে পরিবহন শ্রমিকরা।

এতে জনগণের ভোগান্তির মাত্রা চরমে পৌঁছেছে। কিন্তু এর বিপরীতে প্রশাসন নির্বিকার ভূমিকা পালন করছে।
প্রসঙ্গত, গত রবিবার মৌলভীবাজারের বড়লেখায় পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ৪৮ ঘন্টার কর্মবিরতি চলাকালে অ্যাম্বুলেন্স আটকা পড়ে এক শিশু মারা যায়। দুপুর আড়াইটার দিকে উপজেলার চান্দগ্রাম এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। নিহত কন্যাশিশুটি বড়লেখা সদর ইউনিয়নের অজমির গ্রামের কুটন মিয়ার মেয়ে। মাত্র ৭ দিন আগে শিশুটির জন্ম হয়েছিল। এখনও তার নাম রাখা হয়নি। এ নিয়ে নিন্দার ঝড় ওঠেছে।

এই সংবাদটি 1,072 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com