বৃহস্পতিবার, ১৫ নভে ২০১৮ ০৪:১১ ঘণ্টা

সুনামগঞ্জ-৩ আসনে শাহীনূর পাশা চৌধুরীর বিকল্প নেই

Share Button

সুনামগঞ্জ-৩ আসনে শাহীনূর পাশা চৌধুরীর বিকল্প নেই

এম আবু বকর সাদী, সিলেট রিপোর্ট:: জগন্নাথপুর – দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত সুনামগঞ্জ-৩ আসন। সংসদীয় এ আসনে ১৬ টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা রয়েছে। প্রত্যেকটি ইউনিয়ন ও একমাত্র পৌরসভার প্রায় সবকটি গ্রামে চষে গেছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি, সাবেক এমপি  অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরী। তিনি এ আসনে ধানের শীষ প্রতীকে একবার হয়েছিলেন এমপি। এর আগে একাধিক বার ভোটের মাঠে স্বাধীন বাংলার প্রথম পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রয়াত জাতীয় নেতা আবদুস সামাদ আজাদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। একবার বিজয়ী হয়েও পরাজয়ের স্বাদ গ্রহণ করতে হয়েছিলো তাঁকে। পরাজয় মাতায় নিয়ে রাজনীতির মাঠ থেকে সড়ে দাঁড়ান নি তিনি। সামাদ আজাদের মৃত্যুর পর সাবেক যুগ্ম সচিব (অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী) স্বতন্ত্র প্রার্থী এমএ মান্নানকে পরাজিত করেন ধানের শীষ প্রতীকে। এর পর অনুষ্ঠিত অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে আসেন এমএ মান্নান। তখন অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরীকে পরাজিত করে জগন্নাথপুর – দক্ষিণ সুনামগঞ্জের প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পেয়ে যান। এর পরে টানা দুবার সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ হয়ে মন্ত্রীসভায় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দুটি মন্ত্রনালয়ে স্থান পেয়ে যান। যদিও ৫ জানুয়ারির নির্বাচন বর্জন করেছিলো বিএনপি। ফলে সেই নির্বাচনে অংশ নিতে পারেন নি সাবেক এ সাংসদ। সরকার দলীয় এ নেতার আসনে বিএনপি থেকে লড়াই করতে মরিয়া বেশ কয়েক জন নেতা। তবে ভোটের ময়দানে এগিয়ে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোটের  শরিক সংগঠন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি, সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরী। তাঁকে ছাড়া বিকল্প প্রার্থী দিলে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আসতে পারবে না বিএনপি। এমনটাই রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা মনে করেন। তাঁদের মতে- অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরী একজন সাবেক এমপি। এছাড়া তিনি বেশ কয়েকটি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। তিনি সংসদীয় এলাকার প্রত্যোকটি এলাকায় সু পরিচিত। এছাড়া বিএনপি থেকে যারা নির্বাচন করতে চান তাঁরা কেউও ভোটের মাটে পরিচিত নয়। ভোটের ময়দানে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আসতে হলে শাহীনূর পাশার বিকল্প বিএনপি জোটে নেই বলে তাদের মন্তব্য। তারা আরও বলেছেন মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিএনপি আসতে হলে ভোটের মাটের পরিক্ষিত অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরীর বিকল্প নেই। এনিয়ে কথা হয় সাবেক সাংসদ অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরীর সঙ্গে। তিনি বলেছেন- “আমি সীমিত সময় দায়িত্বে ছিলাম। ওই সময় এলাকার উন্নয়নে নিজেকে উজাড় করে দিয়েছি। ব্যাপক উন্নয়নও করতে সক্ষম হয়েছি। আমার অনেক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারি নি। তাই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে আবারও জগন্নাথপুর-দক্ষিণ সুনামগঞ্জের প্রতিনিধি হয়ে সংসদে যেতে চাই।” একপ্রশ্নের জবাবে সাবেক এ সাংসদ বলেন- ” আমাদের জমিয়তের একটি অংশ ২০ দলীয় জোটের নাম ভাঙ্গিয়ে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে এবং আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। আসলে ওরা কেউ আমাদের জমিয়তের নয়। ওরা অপপ্রচার কারী। এদের রুখে দিয়ে আমার সংসদীয় এলাকার জনগণকে সাথে নিয়ে বিজয় নিশান উড়াব ইনশাল্লাহ।”

এই সংবাদটি 1,024 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com