সোমবার, ০৩ ডিসে ২০১৮ ০৬:১২ ঘণ্টা

টঙ্গীর ইজতেমা মাঠের ঘটনার সঠিক তদন্ত ও দোষীদের শাস্তি দাবি করেছে জমিয়ত

Share Button

টঙ্গীর ইজতেমা মাঠের ঘটনার সঠিক তদন্ত ও দোষীদের শাস্তি দাবি করেছে জমিয়ত


সিলেট রিপোর্ট:  টঙ্গীর ইজতেমা মাঠের জোড়ে শরীক হওয়া নিরীহ সাধারণ মুসল্লী, আলেম-উলামা ও মাদ্রাসা ছাত্রদের উপর অতর্কিত নিষ্ঠুর হামলার কঠোর প্রতিবাদ করেছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ। একই সাথে হতাহতদের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করে অবিলম্বে ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত এবং দোষীদের কঠোর শাস্তি দাবি করেছে জমিয়ত। দলটির পক্ষ থেকে গতকালকের ঘটনাকে অত্যন্ত দুঃখজনক আখ্যা দিয়ে এর পেছনে ইন্ধনদাতা হিসেবে আন্তর্জাতিক ইসলামনির্মূলবাদি চক্রকেই দায়ী করেছে।
 গণমাধ্যমে প্রেরিত এক যৌথ বিবৃতিতে জমিয়তে উলাময়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র সভাপতি আল্লামা আব্দুল মুমিন শায়েখে ইমামবাড়ি ও মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী এসব কথা বলেন।
জমিয়ত শীর্ষ নেতৃদ্বয় আরো বলেন, গতকালকের ঘটনা তাবলীগ জামাআতের ইতিহাসে এক কালো অধ্যায় হয়ে থাকবে। আন্তর্জাতিক ইসলাম নির্মূলবাদি চক্র দীর্ঘ দিন ধরে মুসলমানদের ঐক্য বিনষ্ট, আদর্শচ্যুত করা, দাওয়াত-তাবলীগ থেকে দূরে সরিয়ে দেওয়া, ইসলামী শিক্ষা বন্ধ এবং উলামায়ে কেরামকে জনবিচ্ছিন্ন করতে বহুমুখী ষড়যন্ত্র চালিয়ে আসছে। এই ষড়যন্ত্রকারিরা প্রবল ক্ষমতা লিপ্সু, দুনিয়ালোভী ও আদর্শচ্যুত তাবলীগের ছোট্ট একটা নেতৃত্বকে ব্যবহার করে বর্তমান সংকট তৈরি করেছে। এই অংশটার নেতৃত্ব দিচ্ছে দিল্লীর সাদ কান্ধলভী এবং এদেরকে আড়াল থেকে উৎসাহ যুগিয়ে যাচ্ছে ইহুদীবাদ, সাম্রাজ্যবাদ ও স্যেকুলারিজম শক্তি। গতকাল টঙ্গীতে যে মর্মন্তুদ ঘটনা ঘটেছে, এটা ষড়যন্ত্রকারীদের সাজানো পরিকল্পনারই একটা অংশ।
জমিয়ত নেতৃদ্বয় বলেন, দাওয়াত ও তাবলীগ হলো, ঈমান-আমাল শিখা, দ্বীনের প্রচার-প্রসার এবং ভ্রাতৃত্ববোধ চর্চার অন্যতম প্ল্যাটফর্ম। তাবলীগের সকল সাথী ভাইকে এটা বুঝতে হবে যে, দ্বন্দ্ব-সংঘাত ও গায়ের জোর খাটানো তাবলীগের মৌলিক চেতনার সম্পূর্ণ বিপরীত। প্রকৃত তাবলীগ অনুসারী কখনো ভাইয়ের মাথায় আঘাত করতে পারেন না। বুঝতে হবে- যারা এটা করছে তারা তাবলীগে বেশধারী অনুপ্রবেশকারী। আর যারা না বুঝে এতে জড়িয়ে পড়েছেন, তাদের কর্তব্য দ্রুত তাওবা করে দ্বন্দ্ব-সংঘাতের পথ থেকে নিজেকে ফিরিয়ে আনা।
জমিয়ত সভাপতি ও মহাসচিব আরো বলেন, তাবলীগ জামাতের প্রতিষ্ঠাতা হযরতজ্বী মাওলানা ইলিয়াস (রাহ.) হযরতজ্বী মাওলানা ইউসুফ কান্ধলভী (রাহ.) এবং হযরতজ্বী মাওলানা ইন’আমুল হাসান (রাহ.)এর নির্দেশিত উসূল তাবলীগের সকল সাথী ভাইকে মেনে চলতে হবে। যেই মোবারক জামাতে ‘ভাই’ ছাড়া কাউকে সম্বোধন করা হয় না, সেই জামাতের এক সাথে আরেক সাথীর মাথায় আঘাত করছে, এমন দৃশ্য কল্পনায়ও আনা যায় না। যারা দিল্লীর একজন ক্ষমতা লিপ্সু ও বিতর্কিত আক্বিদা পোষণকারীর অনুসরণ করতে গিয়ে আপন ভাইয়ের মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত করতেও দ্বিধা করছেন না, তারা যে সীরাতুল মুস্তাকিমের উপর নেই এটা তো সহজবোধ্য বিষয়।
আমাদের দেশে মোবারক এই বিশাল জামাতের অনুসারীগণ আল্লাহর ওয়াস্তে নিজেরা কোনরূপ দ্বন্দ্ব সংঘাতে জড়িয়ে পড়ে ইসলাম ও মুসলমানদের ক্ষতি করবেন না। দিল্লীর বিতর্কিত এক লোকের অনুগামীতার পথ ছেড়ে দেশের হক্কানী উলামায়ে কেরাম ও কাকরাইল শূরার নির্দেশনা মেনে চলুন।
আল্লামা আব্দুল মুমিন শায়েখে ইমামবাড়ি ও আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী গতকালকের ঘটনায় নিহতদের রুমের মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তুপ্ত পরিবারের সদ্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন। আহতদের যথাযথ চিকিৎসার জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানান। ভবিষ্যতে যেন এমন অপ্রীতিকর পরিস্থিতির শিকার কাউকে হতে না হয়, সেদিকে সকলের সজাগ দৃষ্টি কামনা করেন।
জমিয়ত নেতৃদ্বয় তাবলীগের জামাতকে সকল ষড়যন্ত্র ও ফিতনা থেকে হেফাজতের জন্য মহান আল্লাহর সাহায্য কামনা করে সকলকে দোয়া করতে বলেন।

এই সংবাদটি 1,007 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com