মঙ্গলবার, ০১ নভে ২০১৬ ১০:১১ ঘণ্টা

আলেম ওলামা না থাকলে ইসলামের নাম নিশানাও থাকবে না : প্রিন্সিপাল হাবীব

Share Button

আলেম ওলামা না থাকলে ইসলামের নাম নিশানাও থাকবে না : প্রিন্সিপাল হাবীব

যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি:  বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের আমীর প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবীবুর রহমান বলেছেন, স্বীকৃতি হলেও ইসলাম থাকবে না হলেও ইসলাম থাকবে। কিন্তু ওলামায়ে কেরাম না থাকলে এদেশে ইসলামের নাম নিশানাও থাকবে না।তিনি বলেন, আমরা কাওমী মাদরাসা শিক্ষার স্বীকৃতি চাই ।স্বীকৃতির নামে সরকারের নিয়ন্ত্রণ চাই না। হাবীবুর রহমান বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস যুক্তরাজ্য শাখার উদ্যোগে বাংলাদেশে বর্তমান সরকারের ইসলাম বিরোধী শিক্ষানীতি ২০১০ ও বিতর্কিত শিক্ষা আইন২০১৬ বাতিল, পাঠ্যসূচি সংশোধন এবং ক্বাওমী মাদ্রাসার স্বাধীনতা ও স্বকীয়তা বজায় রেখে শিক্ষা সনদের সরকারী স্বীকৃতি বাস্তবায়নের দাবীতে গত ৩০ অক্টোবর (রবিবার) পূর্ব লন্ডনের ওয়াটার লিলি হলে আয়োজিত ওলামা-মাশায়েখ সম্মেলনে প্রধান অতিথির  ভাষনে এসব কথা বলেন।

তিনি আলেম উলামাদের ঐক্যের উপর গুরুত্বারোপ করে  দায়িত্বশীল উলামায়ে কেরামদের উদ্দেশ্য করে বলেন, দাওরায়ে হাদীসের স্বীকৃতি নিবেন নাকি পুরো সিস্টেমের স্বীকৃতি নিবেন তা সকলে বসে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নিতে হবে। ঐক্যবদ্ধ ভাবে যা হয় তা সকলকে মেনে নেয়ার মধ্যেই সামগ্রিক কল্যাণ রয়েছে।ওলামায়ে কেরামদের মধ্য বিচ্ছিন্নতা থাকলে ইসলাম সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগস্থ হবে।

তিনি কাওমী মাদরাসা স্বীকৃতি বাস্তবায়নের দাবী জানিয়ে বলেন, কাওমী মাদরাসার স্বাধীনতা ও স্বকীয়তা বজায় রেখে সরকারি স্বীকৃতি দিতে হবে।

প্রিন্সিপাল হাবীব আরো বলেন,  সংখ্যাগরিষ্ট মুসলমানের বাংলাদেশে ইসলামী তাহযিব তামাদ্দুন এর আলোকেই শিক্ষানীতি ও পাঠ্যসূচি প্রণয়ন করতে হবে। স্কুলের পাঠ্যপুস্তকে বিদায় হজ্জের সহ ইসলামের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বস্তু বাদ দিয়ে হিন্দুত্ববাদ ও শিরকী বিষয় সমূহ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তা কোন ভাবেই আমরা মেনে নেব না। ইসলামী শিক্ষা কে বাদ দিয়ে যে শিক্ষানীতি করা হয়েছে তা অবিলম্বে বাতিল এবং বিতর্কিত পাঠ্যসূচি সংশোধন করতে হবে।

সংগঠনের সভাপতি শায়খুল হাদীস  মাওলানা রেজাউল হকের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক মাওলানা ফয়েজ আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বৃটেনের অন্যতম শীর্ষ আলীম মাওলানা শায়েখ আছগর হোসাইন, টাওয়ার হ্যামলেট কাউন্সিল অফ মস্কের চেয়ারম্যান হাফিজ মাওলানা সামছুল হক, মুজাহিরুল উলুম লন্ডনের চেয়ারম্যান মাওলানা শায়েখ জমশেদ আলী, ফোর্ড স্কয়ার মাদরাসার শায়খুল হাদীস মাওলানা আব্দুর রহমান, মুসলিম চ্যাপলেইন ইউনিভার্সিটি হসপিটাল ওয়েলস,কার্ডিফ ইমাম ফরিদ আহমদ খান, জামেয়া মুজাহিরুল লন্ডন এর প্রিন্সিপাল মাওলানা ইমদাদুর রহমান মাদানী, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম এর আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও ইউ কে সভাপতি মাওলানা শুয়াইব আহমদ।

অন্যান্যদের মধ্য বক্তব্য রাখেন আশরাফুল উলুম বার্মিংহাম এর প্রিন্সিপাল হাফিজ মাওলানা শায়েখ ইকবাল হোসাইন,বিশিষ্ট টিভি আলোচক মুফতী হাবীব নুহ, ফোর্ড স্কয়ার মাদরাসার মুহাদ্দিস মুফতী মওসুফ আহমদ, মিডল্যান্ড মসজিদে তাক্বওয়া ইমাম ও খতিব ব্যারিষ্টার মাওলানা বদরুল হক, লন্ডন মাইল্যান্ড মসজিদের ইমাম ও খতিব হাফিজ মাওলানা নাজির উদ্দিন, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস যুক্তরাজ্য শাখার সহ-সভাপতি মাওলানা তাজুল ইসলাম, আলহাজ্ব আতাউর রহমান, মাওলানা শাহনূর মিয়া, জমিয়তে উলামা ইউরোপ,  কে সেক্রেটারী মাওলানা সৈয়দ তামিম আহমদ, লন্ডন লাইম হাউস মসজিদের ইমাম ও খতিব হাফিজ মাওলানা শিব্বির আহমদ, বিশিষ্ট কমিউনিটি লিডার মাষ্টার আলহাজ্ব আমীর উদ্দিন, লেখক ও সাংবাদিক আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান চৌধুরী, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস যুক্তরাজ্য শাখার সহ-সাধারন মুফতী ছালেহ আহমদ, মাওলানা নাজিম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা শরিফ আহমদ,বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা ফজলুল হক কামালী, লিডস শাখার সভাপতি মাওলানা সৈয়দ মশহুদ আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ছাদিকুর রহমান, লন্ডন মহানগরীর সভাপতি মিছবাহুজ্জামান হেলালী, সাধারন সম্পাদক মাওলানা আজিজুর রহমান, মিডল্যান্ড শাখার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহিবুর রহমান মাছুম, টাওয়ার হ্যামলেট শাখার সভাপতি হাফেজ মন্জুরুল হক,বার্মিংহাম শাখার সহ সভাপতি মাওলানা আহমদ হোসাইন, জামেয়া মদীনাতুল উলুম এর প্রিন্সিপাল মাওলানা সৈয়দ সুলতান মাহমুদ, জামেয়া ইসলামিয়ার শিক্ষক মাওলানা এনামুল হক খান, খিদমাহ একাডেমির ইমাম মাওলানা আবুল কালাম আজাদ, ইক্বরা মসজিদের ইমাম হাফিজ মনছুর আহমদ রাজা, আল আহরার সম্পাদক মাওলানা সালাম আহমদ, তরুন আলেম লেখক কে আই ফেরদৌস, বিলাল একাডেমির ইমাম মাওলানা শেখ আব্দুস সামাদ, মাওলানা লিয়াকত হোসাইন, মাওলানা আব্দুর রহমান ইউসুফ, মাওলানা মুহি উদ্দিন খান, মাওলানা মাহমুদুর রহমান প্রমূখ।

এই সংবাদটি 1,335 বার পড়া হয়েছে

বিশ্বের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস ম্যাগজিন। এই তালিকার শীর্ষ একশ নারীর মধ্যে প্রথম অবস্থানে রয়েছেন জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। তালিকার ২৯তম অবস্থানে রয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  বাংলাদেশের ইতিহাসে দীর্ঘকালীন সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি চতুর্থবারের মতো জয়ী হয়ে টানা তিনবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত নির্বাচনে তার দল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সংসদের ৩শ আসনের মধ্যে ২৮৮টিতেই জয় লাভ করে।  ১৯৮১ সাল থেকে টানা প্রায় ৩৮ বছর ধরে বাংলাদেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের দলীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালের ২৩ জুন প্রথমবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি। এরপর থেকেই শক্ত হাতে দলকে নিয়ন্ত্রণ করছেন শেখ হাসিনা। দেশের খাদ্য নিরাপত্তা, শিক্ষার উন্নয়ন এবং স্বাস্থ্যসেবার প্রতি জোর দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী।  ফোর্বসের তালিকায় প্রভাবশালী শীর্ষ ১০ নারীর তালিকায় আছেন অ্যাঙ্গেলা মেরকেল, ক্রিস্টিনে লেগারদে, নেন্সি পেলোসি, আরসুলা ভন দের লেয়েন, মেরি বারা, মেলিন্ডা গেটস, আবিগেইল জনসন, আনা পেট্রিসিয়া বোটিন, গিনি রোমেটি এবং মেরিলিন হিউসন। ২০১৮ সালে ফোর্বসের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকায় শেখ হাসিনার অবস্থান ছিল ২৬তম।
বিশ্বের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস ম্যাগজিন। এই তালিকার শীর্ষ একশ নারীর মধ্যে প্রথম অবস্থানে রয়েছেন জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। তালিকার ২৯তম অবস্থানে রয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের ইতিহাসে দীর্ঘকালীন সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি চতুর্থবারের মতো জয়ী হয়ে টানা তিনবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত নির্বাচনে তার দল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সংসদের ৩শ আসনের মধ্যে ২৮৮টিতেই জয় লাভ করে। ১৯৮১ সাল থেকে টানা প্রায় ৩৮ বছর ধরে বাংলাদেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের দলীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালের ২৩ জুন প্রথমবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি। এরপর থেকেই শক্ত হাতে দলকে নিয়ন্ত্রণ করছেন শেখ হাসিনা। দেশের খাদ্য নিরাপত্তা, শিক্ষার উন্নয়ন এবং স্বাস্থ্যসেবার প্রতি জোর দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। ফোর্বসের তালিকায় প্রভাবশালী শীর্ষ ১০ নারীর তালিকায় আছেন অ্যাঙ্গেলা মেরকেল, ক্রিস্টিনে লেগারদে, নেন্সি পেলোসি, আরসুলা ভন দের লেয়েন, মেরি বারা, মেলিন্ডা গেটস, আবিগেইল জনসন, আনা পেট্রিসিয়া বোটিন, গিনি রোমেটি এবং মেরিলিন হিউসন। ২০১৮ সালে ফোর্বসের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকায় শেখ হাসিনার অবস্থান ছিল ২৬তম।
WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com