শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯ ০৩:০৩ ঘণ্টা

লিডিং ইউনিভার্সিটির তৃতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠিত

Share Button

লিডিং ইউনিভার্সিটির তৃতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠিত

সিলেট রিপোর্ট :

উৎসবমূখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে লিডিং ইউনিভার্সিটির তৃতীয় সমাবর্তন । বুধবার দক্ষিন সুরমাস্থ কামালবাজারে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত সমাবর্তনে ৪৭৩৪ জন শিক্ষার্থীদেরকে ডিগ্রী প্রদান করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৩২০৭ জন স্নাতক এবং ১৫২৭ জনকে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে পড়াশুনা সম্পন্ন করেছেন।

মহামান্য রাষ্ট্রপতি মনোনীত প্রতিনিধি হিসেবে লিডিং ইউনিভার্সিটির তৃতীয় সমাবর্তন সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। সমাবর্তন বক্তা ছিলেন জাহাঙ্গীর নগর ইউনিভার্সিটির প্রাক্তন উপাচার্য ও বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সাবেক সদস্য প্রফেসর ড. শরীফ এনামুল কবির। সমাবর্তনে চ্যান্সলর গোল্ড ম্যাডেল পেয়েছেন বিবিএ পোগ্রামের গ্রাজুয়েট মউপিয়া সেন।

সভাপতির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান গ্রাজুয়েটদেরকে ভবিষৎ দেশপ্রেমের মন্ত্রে উজ্জীবিত হবার আহবান জানিয়ে বলেন, ‘আজ আপনাদের স্বীকৃতির দিন। এই দিন আপনাদের জন্য বড়োই আনন্দের দিন, গৌরবের দিন। আপনাদের এই আনন্দ আজ আমাদেরকেও স্পর্শ করছে। আজ আপনারা যে এই স্বীকৃতি পাচ্ছেন, তা আপনাদের দীর্ঘদিনের পরিশ্রম ও অপেক্ষার ফল। সমাবর্তন যেকোন ¯œাতকের জীবনে একটি স্মরণীয় অধ্যায় তৈরি করে দেয়। এই অধ্যায় তৈরি হবে নানা ঘটনা ও মুহূর্তের সমন্বয়ে। আমরা এই অধ্যায়ের অংশ হিসেবে এখানে জড়ো হয়েছি।’

তিনি বলেন, আপনারা ভাগ্যবান যে, এই সমাবর্তন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হচ্ছে আমাদের মহান স্বাধীনতার মাসে। স্বাধীনতা কথাটির সঙ্গে নিবিড়ভাবে জড়িয়ে আছে আমাদের বাঙালির জীবনচেতনা। স্বাধীনতার চেতনা, আজ আমাদের অস্তিত্বের সমার্থক। যে জীবনে স্বাধীনতা নেই, সেই জীবন অর্থহীন। আজকের এ সমাবেশে আমি খুঁজে পাচ্ছি স্বাধীনতার সেই অমলিন প্রতিচ্ছবি।’

অনুষ্ঠানে সম্মানিত সমাবর্তন বক্তা জাহাঙ্গীর নগর ইউনিভার্সিটির প্রাক্তন উপাচার্য ও বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সাবেক মেম্বার প্রফেসর ড. শরীফ এনামুল কবির, লিডিং ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত চেয়ারম্যান ড. সৈয়দ রাগীব আলী এবং লিডিং ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ডক্টর মোঃ কামরুজ্জামান চৌধুরী, সিন্ডিকেট ও একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্যবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত শিক্ষকম-লী, কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ, প্রিয় ¯œাতকবৃন্দ ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দদেরকে ধন্যবাদ জানিয়ে সমাবর্তনের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

সমাবর্তন বক্তা প্রফেসর ড. শরীফ এনামুল কবির বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সমাজের বিভিন্ন স্তর থেকে আগত উচ্চশিক্ষায় উৎসাহী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য সব ধরনের জ্ঞানচর্চার উন্মুক্ত ক্ষেত্র। মনের বদ্ধ দুয়ার খুলে বিশ্বকে জানার, গবেষণা ও উদ্ভাবনের সম্ভাবনার আলো দেখানোর প্রকৃত জায়গা হচ্ছে এই বিশ্ববিদ্যালয়। সমাবর্তন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেওয়া হয় শিক্ষার্থীদের কঠোর অধ্যবসায় ও নিষ্ঠার মাধ্যমে অর্জিত ডিগ্রিকে। আজ যারা এই ৩য় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে উপস্থিত, তাদের জন্য এই অনুষ্ঠান অত্যন্ত মূল্যবান, অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

গ্রাজুয়েটদের এই সাফল্যকে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, তরুণ শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার সুযোগ তৈরি করে দেওয়ার জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল সিলেটে প্রথম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় লিডিং ইউনিভার্সিটি। সেই বিশ্ববিদ্যালয় আজ ধীরে ধীরে সাফল্যের সিঁড়ি বেয়ে ১৮ বছরে পদার্পণ করেছে। সাফল্যের পথচলার প্রতিফলন আজকের এই ৩য় সমাবর্তন। আমার বিশ্বাস এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যে জ্ঞান, দক্ষতা, দূরদর্শিতা ও মূল্যবোধ তোমরা অর্জন করেছ তা পারিবারিক ও সামাজিক, সর্বোপরি কর্মজীবনের পাথেয় হয়ে থাকবে।

এতে আরো বক্তব্য রাখেন লিডিং ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সম্মানিত চেয়ারম্যান ড. সৈয়দ রাগীব আলী এবং লিডিং ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ডক্টর মোঃ কামরুজ্জামান চৌধুরী। সমাবর্তন মার্শাল হিসেবে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন লিডিং ইউনিভার্সিটির রেহিস্ট্রার মেজর (অব) মো: শাহ আলম, পিএসসি।

অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনায় ছিলেন ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম এবং ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের শিক্ষক তাহরিমা চৌধুরী জান্নাত। বিকালে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন জনপ্রীয় ব্যান্ড সোলস। তাছাড়াও ছিল ময়মনসিংহের লোকগীতি এবং লিডিং ইউনিভার্সিটির নিজস্ব ব্যান্ড অরফিয়াস এবং ব্যান্ড কমিউনিটির পরিবেশনা।

এই সংবাদটি 1,023 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com