শনিবার, ১১ মে ২০১৯ ০৩:০৫ ঘণ্টা

সিলেট চেম্বারের উদ্যোগে গৌহাটি ইয়াং ইন্ডিয়ানসদের সাথে ভিডিও কনফারেন্স

Share Button

সিলেট চেম্বারের উদ্যোগে গৌহাটি ইয়াং ইন্ডিয়ানসদের সাথে ভিডিও কনফারেন্স

সিলেট রিপোর্ট: সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি ও জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ’র যৌথ উদ্যোগে ভারতের আসামের গৌহাটির ইয়াং ইন্ডিয়ান টিমের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে দু’দেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্যের সম্ভাবনা ও বিনিয়োগ নিয়ে আলোচনা হয়। প্রথমবারের মতো আয়োজিত ভিডিও কনফারেন্সে বক্তারা বলেন এ ধরনের উদ্যোগের মাধ্যমে দু’দেশের মধ্যে বিনিয়োগ সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচনের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

শুক্রবার (১০-০৫-২০১৯) দুপুরে সিলেট চেম্বারের কনফারেন্স হলে ভিডিও কনফারেন্সে উপস্থিত ছিলেন সিলেটে নিযুক্ত ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার মিঃ এল. কৃষ্ণমূর্তি। অন্যদিকে গৌহাটি ইয়াং ইন্ডিয়ানসদের সাথে যুক্ত ছিলেন গৌহাটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের সহকারী হাই কমিশনার ড. শাহ মহম্মদ তানভীর মনসুর।

প্রায় দু’ঘন্টা ব্যাপী ভিডিও কনফারেন্সে পারষ্পরিক বিনিয়োগ ও ব্যবসা-বাণিজ্যের সমৃদ্ধির জন্য সরাসরি আলোচনার উপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়। সিলেটে মেডিকেল সেক্টর, ট্যুরিজম সেক্টর এবং ইলেক্ট্রনিক্স সিটিতে বিনিয়োগের প্রস্তাব তুলে ধরেন সিলেট চেম্বার ও জুনিয়র চেম্বারের নেতৃবৃন্দ। আগামী জুন মাসে ইয়াং ইন্ডিয়ানস টিমকে সিলেট সফরে আমন্ত্রণ জানানো হয়। এছাড়া বাংলাদেশী পণ্যের তালিকা ও মূল্য এবং গৌহাটি ব্যবসায়ীদের চাহিদাপত্র বিনিময়ের সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় সিলেট চেম্বার সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ বলেন, এধরনের ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভারতের সাথে আমাদের নতুন সেতু বন্ধনের সূচনা হলো। সিলেট বিনিয়োগের বিপুল সম্ভাবনাময় স্থান উল্লেখ করে তিনি ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের সিলেটের বিভিন্ন সম্ভাবনাময় খাতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, আমরা একসাথে কাজ করলে দু’দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য’কে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবো।

গৌহাটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের সহকারী হাই কমিশনার ড. শাহ মহম্মদ তানভীর মনসুর আলোচনায় অংশ নিয়ে বলেন, তরুণ উদ্যোক্তা ব্যবসায়ীদের এই ভিডিও কনফারেন্স সম্ভাবনার ধার উন্মেচিত করবে। তিনি জানান, আসামে বাংলাদেশী পণ্যের বিশেষ করে জামদানী শাড়ী, পাটজাত পণ্য ও তৈরি পোশাকের চাহিদা রয়েছে। আগামী জুন জুলাই’র মধ্যে গৌহাটি-ঢাকা বিমানের ফ্লাইট চালু হবে। তিনি বলেন, পারষ্পারিক মতবিনিময়ের মাধ্যমে দু’দেশের বিনিয়োগের সম্ভাবনা খুজে বের করা সম্ভব হবে। এছাড়া বাংলাদেশ থেকে রপ্তানিতে যেসব বাধা আছে সেগুলো দূরীকরণে তিনি ভূমিকা রাখার আশ্বাস দেন।

জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ’র ভাইস প্রেসিডেন্ট সালেহীন এফ. নাহিয়ান’র সঞ্চালনায় ভিডিও কনফারেন্সে আলোচনায় অংশ নেন সিলেট চেম্বারের পরিচালক পিন্টু চক্রবর্তী, পরিচালক ফালাহ উদ্দিন আলী আহমদ, সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবির, জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ’র প্রেসিডেন্ট ইরফান ইসলাম ও সিলেট চ্যাপ্টারের প্রেসিডেন্ট মেহনাজ হুদা।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিলেট চেম্বারের পরিচালক সাহিদুর রহমান, জুনিয়র চেম্বার সিলেট’র ভাইস প্রেসিডেন্ট মাহদি সালেহীন, সেক্রেটারি মাসনুন আকীব বারভূঁইয়া, পরিচালক ফয়েজ উল্লাহ, পরিচালক তানভীর, পরিচালক আবু হুরায়রা মাহিদ, ট্রেজারার সাকিব বক্স, জুনিয়র চেম্বারের সদস্য সাইদ আহমেদ, হোটেল স্টার প্যাসিফিকের পরিচালক ইরফান সালেহীন, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, ওকাস সভাপতি সাংবাদিক খালেদ আহমদ।

ইয়াং ইন্ডিয়ানস টিমের পক্ষ থেকে যুক্ত ছিলেন অভিমান্যু খেত্বাত, গৌরভ জেইন, সৈলেশ বাহেতী, অর্চিত বর্ধন থার্ধ, সৌরভ পানসারি, হামাদ এম.এ.আর. বারলস্কর, অমিত কুমার মুর, উৎকর্ষ অগারওয়াল ও নূরজাহান সাইকিয়া প্রমুখ।

এই সংবাদটি 1,065 বার পড়া হয়েছে

কানাইঘাট প্রতিনিধি :: কানাইঘাটে কবরস্থানের পাশ থেকে রিক্সা চালক আলমগীরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।  শুক্রবার উপজেলার ঝিঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের দর্জিমাটি গ্রামের কবরস্থানের পাশের একটি গাছ থেকে আলমগীরের লাশ উদ্ধার করে কানাইঘাট থানা পুলিশ।  নিহত আলমগীর উপজেলার ঝিঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের তিনচটি নয়া গ্রামের আবুল হুসেনের ছেলে।  জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে রাতের খাবার খেয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান আলমগীর । শুক্রবার সকালে আলমগীরকে ঘরে না পেয়ে খোঁজাখুজি শুরু করেন পরিবারের সদস্যরা । একপর্যায়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মা কুলসুমা বেগম তাদের পাশ্ববর্তী নিজ দর্জিমাটি গ্রামের কবরস্থানের পূর্বপাশে একটি গাছের সাথে গলায় রশি লাগানো ঝুলন্ত অবস্থায় আলমগীরকে দেখতে পান। খবর পেয়ে সাড়ে ১২টার দিকে থানার সেকেন্ড অফিসার স্বপন চন্দ্র সরকার একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে রিক্সা চালক আলমগীরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে সুরতাল রিপোর্ট তৈরী শেষে ময়না তদন্তের জন্য সিওমেক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন।  আলমগীরের বাবা দরিদ্র রিক্সা চালক আবুল হোসেন জানান, তার ছেলের সাথে কারো শত্রুতা নেই। সে কেন আত্মহত্যা করেছে এ ব্যাপারে তিনি সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য দিতে পারেন নি।  লাশ উদ্ধারকারী সেকেন্ড অফিসার এস.আই স্বপন চন্দ্র সরকার জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে আলমগীর আত্মহত্যা করেছে। ময়না তদন্তের রিপোর্টের পর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।
কানাইঘাট প্রতিনিধি :: কানাইঘাটে কবরস্থানের পাশ থেকে রিক্সা চালক আলমগীরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার উপজেলার ঝিঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের দর্জিমাটি গ্রামের কবরস্থানের পাশের একটি গাছ থেকে আলমগীরের লাশ উদ্ধার করে কানাইঘাট থানা পুলিশ। নিহত আলমগীর উপজেলার ঝিঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের তিনচটি নয়া গ্রামের আবুল হুসেনের ছেলে। জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে রাতের খাবার খেয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান আলমগীর । শুক্রবার সকালে আলমগীরকে ঘরে না পেয়ে খোঁজাখুজি শুরু করেন পরিবারের সদস্যরা । একপর্যায়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মা কুলসুমা বেগম তাদের পাশ্ববর্তী নিজ দর্জিমাটি গ্রামের কবরস্থানের পূর্বপাশে একটি গাছের সাথে গলায় রশি লাগানো ঝুলন্ত অবস্থায় আলমগীরকে দেখতে পান। খবর পেয়ে সাড়ে ১২টার দিকে থানার সেকেন্ড অফিসার স্বপন চন্দ্র সরকার একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে রিক্সা চালক আলমগীরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে সুরতাল রিপোর্ট তৈরী শেষে ময়না তদন্তের জন্য সিওমেক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন। আলমগীরের বাবা দরিদ্র রিক্সা চালক আবুল হোসেন জানান, তার ছেলের সাথে কারো শত্রুতা নেই। সে কেন আত্মহত্যা করেছে এ ব্যাপারে তিনি সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য দিতে পারেন নি। লাশ উদ্ধারকারী সেকেন্ড অফিসার এস.আই স্বপন চন্দ্র সরকার জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে আলমগীর আত্মহত্যা করেছে। ময়না তদন্তের রিপোর্টের পর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।
WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com