মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯ ০৩:০৬ ঘণ্টা

আবারো রাশেদ খান মেননের মুখোমুখি এম এ করিম ইবনে মুছাব্বির

Share Button

আবারো রাশেদ খান মেননের মুখোমুখি এম এ করিম ইবনে মুছাব্বির

সিলেট রিপোর্ট:বিশিষ্ট লেখক ও ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা এম এ করিম ইবনে মুছাব্বির আবারো মুখোমুখি হলেন বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের। মুসলমানদের ধর্মীয় পোশাক হিজাব নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করায় মেননকে পানজাবি লুঙ্গি ছেড়ে আদি যুগের বাসিন্দা হতে পরার্মশ দেন করিম ইবনে মুছাব্বির!
গত ১৫ জুন জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে গার্হস্থ্য নারী শ্রমিক ইউনিয়ন আয়োজিত কর্মস্থলে নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে আইএলও কনভেনশন প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে গৃহ শ্রমিকের অধিকার ও মর্যাদা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে আইন চাই শীর্ষক আলোচনা সভায় বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন ‘এখন এমন অবস্থা হয়েছে যে, এসব কাঠমোল্লাদের ব্যাপারে যা আর বলার না। এখন নাকি শাড়ি পরে নামাজ পড়া জায়েজ নয়, এটা হচ্ছে আমাদের দেশের পরিস্থিতি! আমাদের মা জননীরা শাড়ি পরে নামাজ পড়েছেন, আব্রু রক্ষা করেছেন। তাহলে আপনারা কেন সব উল্টাপাল্টা কথা বলবেন? হিজাব তো আর আমাদের দেশের সংস্কৃতি নয়। এটা সৌদি আরবের তাহলে এটা আমরা কেন পরবো? এমন হলে তো আমাদের মা, দাদী কেউ বেহেশতে যাবেন না।’
আর আগে মেনন কর্তৃক আল্লামা শাহ আহমদ শফিকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করার প্রতিবাদ জানিয়েছেন
জাতীয় সংসদের সাবেক ইমাম মাওলানা আবদুল করিম । তিনি তখন বলেছিলেন, সাবেক মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন সংসদে কাদিয়ানীদের পক্ষে এবং কওমি শিক্ষা ও আল্লামা শফী’র বিরুদ্ধে অশালীন ও উদ্দেশ্যপ্রনোদিত বক্তব্য রেখেছেন। তিনি পঞ্চগড়েও কাদিয়ানীদের পক্ষে বক্তব্য রেখেছেন। এসব কারণে মেনন আদৌ মুসলমান আছেন, না কাদিয়ানী হয়েছেন এ নিয়ে মানুষ সন্দেহ পোষন করেছেন।
এই মেননের বাবা জব্বার খানকে যুক্তফ্রন্টের সময় মাওলানা আতহার আলী রাহ. ও মাওলানা আতাউর রহমান খান রাহ. বঙ্গবন্ধুর পরামর্শে স্পিকার বানিয়েছেন। আলেমরা যার বাবাকে স্পিকার বানাল সেই লোক কিভাবে ইসলামের বিরুদ্ধে লাগামহীন কথা বলার দুঃসাহস পায় সেটা এখন ভাবার সময় এসেছে। সরকারকে তার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। মিনুতন্ত্র, ইনুতন্ত্র, নাস্তিকতন্ত্র এবং কাদিয়ানীতন্ত্র বাদ দিয়ে অবিলম্বে আল্লামা আহম শফীর কাছে তওবা করে রাশেদ খান মেননকে মুসলমান হওয়ার আহ্বান জানান সংসদ অধিবেশনের সাবেক কুরআন তিলাওয়াতকারী, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা বাসসের সাবেক স্টাফ রিপোর্টার মাওলানা আবদুল করিম। তিন বলেন, ইসলাম ও কওমিবিরোধী বক্তব্যের জন্য মেনন তার মন্তব্য প্রত্যাহার না করলে তাকে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। তাওহিদী জনতা তাকে ছাড় দেবে না।

এই সংবাদটি 1,259 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com