সোমবার, ০৮ জুলা ২০১৯ ১০:০৭ ঘণ্টা

মাওলানা এম. এ মান্নানের ভুল শুধরে দিলেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী

Share Button

মাওলানা এম. এ মান্নানের ভুল শুধরে দিলেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী

সিলেট রিপোর্টঃ

হাটহাজারী মাদ্রাসার সহযোগী পরিচালক ও হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সংগ্রামী মহাসচিব, উস্তাদে মুহতারাম আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী হাফিজাহুল্লাহ গতকাল ৭.৭.২০১৯ ইংরেজী রোজ রবিবার বাদ মাগরিব বুখারী শরীফের দরসে ‘হাদীস সংকলনের ইতিহাস ও সর্বশেষ সাহাবী কে’? শীর্ষক আলোচনায় অতীত একটি স্মৃতির কাহিনী বর্ণনা করেন।

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, সাহাবাদের যুগ ১১০ হিজরী সনে সমাপ্ত হয়। সর্বশেষ সাহাবী হলেন হযরত আবুত তোফায়েল (মৃত্যু- ১১০ হি.)। অথচ অনেক আলেম, শিক্ষাবিদও এ তথ্যে ভুল করে বসেন। চলুন, হযরতের মুখ থেকেই সেই স্মৃতিচারণ শুনি।

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, “হাটহাজারী মাদ্রাসার শতবার্ষিকী মাহফিলে দেশ-বিদেশের খ্যাতনামা আলেম, ওলামা, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবি, কলামিস্ট মঞ্চে উপস্থিত। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে আমন্ত্রিত ছিলেন দৈনিক ইনকিলাবের প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা এম. এ মান্নান মরহুম। সম্মেলনে তাঁকে হাটহাজারী মাদ্রাসার পক্ষ থেকে সম্মাননা পাগড়ী ও দেওয়া হয়।

বক্তৃতায় তিনি হাদীসের গুরুত্ব, হাদীস সংকলনের ইতিহাস ইত্যাদি নিয়ে চমৎকার আলোচনা করছিলেন। অনেক সুন্দর ও তাৎপর্য ছিল তাঁর বক্তব্য। সবাই মনযোগ সহকারে তাঁর বক্তব্যে শ্রবণ করছিলেন।

আমি সে সময় ফটিকছড়ি বাবুনগর মাদ্রাসায় অধ্যাপনার দায়িত্বে ছিলাম। কিন্তু হাটহাজারী মাদ্রাসার শতবার্ষিকী তে আমাকে স্টেজ পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয়।

মাওলানা আবদুল মান্নান মরহুম হাদীস সংকলনের ইতিহাস বর্ণনা করতে গিয়ে এক পর্যায়ে বললেন,
آخر من مات الصحابة فهو انس
‘সর্বশেষ যে সাহাবী ইন্তেকাল করেন তিনি হলেন হযরত আনাস রাযি.। মূলত এটি একটি ভুল তথ্য। সঠিক তথ্য হল সর্বশেষ সাহাবী হলেন হযরত আবুত তোফায়েল রাযি.। তাঁর ইন্তেকাল ১১০ হিজরী।

সে সময় আমি পাকিস্তানের বিখ্যাত মুহাদ্দিস ও পৃথিবীবিখ্যাত হাদীসবিশারদ আল্লামা ইউসুফ বান্নুরী রহ. থেকে উলুমুল হাদীস পড়াশোনা করে এসেছি মাত্র কয়েকবছর হলো। আপনাদের মতো নওজোয়ান। মনকে কোনভাবেই স্থির করতে পারছিলামনা। কারণ হাটহাজারীর মতো সুবিখ্যাত মাদ্রাসার শতবার্ষিকী সম্মেলনের মঞ্চ থেকে একটি ভুল তথ্য প্রচারিত হবে। এর দ্বারা উম্মুল মাদারিসের সুনাম ক্ষুন্ন হবে এটাতো মেনে নেয়া যায়না। এছাড়াও মঞ্চে চট্টগ্রাম, ঢাকা সহ দেশের শীর্ষস্থানীয় উলামায়ে কেরাম উপস্থিত। তাঁরাও কেউ প্রতিবাদ করছিলেননা।

আমি কাগজে মাওলানা এম এ মান্নান মরহুম কে লিখে দিলাম।
ان آخر من مات الصحابة انس فهو خطأ ولکن آخر من مات الصحابة فهو ابو الطفيل (المتوفی: ۱۱۰هجری)
নিশ্চয় সর্বশেষ সাহাবী হযরত আনাস রাযি. নন সর্বশেষ সাহাবী হলেন হযরত আবুত তোফায়েল। (তাঁর মৃত্যু: ১১০ হিজরী) কাগজের
নিচে আমি লিখে দিলাম- মুহাম্মদ জুনায়েদ।

আমি কাগজটি লিখে তাঁকে দিলাম। আমি যেহেতু স্টেজ পরিচালক ছিলাম অনেকে মনে করলো তাঁর বক্তৃতা সমাপ্তির জন্য কাগজ দিচ্ছি অথচ তিনি হাদীস সংকলেন সুন্দর আলোচনা করছিলেন। আমার উস্তাদে মুহতারাম শায়খুল হাদীস আল্লামা আজিজুল হক রহ. আমার উপর ক্ষেপে গেলেন। পরে যখন জানতে পারলেন মাওলানা এম এ মান্নান মরহুমের ভুল তথ্য ছিল এটা জেনে তিনি অনেক খুশি হন এবং তিনি (শায়খুল হাদীস আল্লামা আজিজুল হক রহ.) বললেন, ‘আমার ছাত্র ভুল না ধরলে কে ধরবে?

মাওলানা এম এ মান্নান মরহুম নিজের ভুল শুধরিয়ে নিয়েছিলেন এবং মাহফিল শেষে জিজ্ঞেস করেছিলেন, জুনায়েদ কে? সবাই বলেছিল- তিনি আল্লামা ইউসুফ বান্নুরীর শাগরিদ (শিষ্য)। পরে তিনি আমাকে খুঁজেছিলেন। কিন্তু তাঁর সাথে আর সাক্ষাত হয়নি।

ঘটনার বর্ণনা শেষে বুখারীর দরসে ছাত্রদের উদ্দেশ্যে আল্লামা বাবুনগরী বলেন- আপনারাও ভুল হলে শুধরিয়ে দিবেন এবং তা অবশ্যই আদবের সাথে, ভদ্রতার সাথে। ঘটনাটি ১৯৯৫ সালের বলে উল্লেখ করেন তিনি। দারুল উলুম দেওবন্দর শতবার্ষিকীর ১৫ বছর পরের ঘটনা।

(আল্লামা বাবুনগরীর বুখারীর দরস থেকে নেয়া- ০১)
ইনশাআল্লাহ! হুজুরের দরসগুলো ধারাবাহিক আপডেট করব ইনশাআল্লাহ।
শ্রুতিলিখন: হাফেজ আহমদ ইসলামাবাদী
ছাত্র: দাওরায়ে হাদীস, হাটহাজারী মাদ্রাসা।

এই সংবাদটি 1,092 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com