মঙ্গলবার, ০৬ আগ ২০১৯ ০৯:০৮ ঘণ্টা

জমিয়ত প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য ছিল মাসলাকী ও ধর্মীয় বিভাজন ভুলে মানুষের মধ্যে কাজ করা : আরশাদ মাদানী

Share Button

জমিয়ত প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য ছিল মাসলাকী ও ধর্মীয় বিভাজন ভুলে মানুষের মধ্যে কাজ করা : আরশাদ মাদানী

ডেস্ক রিপোর্ট:
ভারতে চলমান মুসলিম নির্যাতনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা ও অসহিষ্ণুতার প্রতিবাদে জমিয়তে উলামা হিন্দের জেনারেল সেক্রেটারি মাওলানা সাইয়্যিদ মাহমুদ মাদানীর আহ্বানে মুসলমান, হিন্দু, খ্রিস্টান শিখ এবং বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের উপস্থিতিতে ‘আমন ও একতা সম্মেলন’ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ভারতের জনপ্রিয় ডেইলি পত্রিকা সাহারা-এর সূত্রে জানা যায়, সোমবার (৫ আগস্ট) ভারতের দিল্লির তালকোটারা স্টেডিয়ামে ৫০ হাজার মানুষের উপস্থিতিতে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। জমিয়তে উলামা হিন্দ-এর সভাপতি ও দারুল উলূম দেওবন্দের মুহাদ্দিস মাওলানা সাইয়্যিদ আরশাদ মাদানী বলেন, জমিয়তে উলামা হিন্দ প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য ছিল মাসলাকী ও ধর্মীয় বিভাজন ভুলে মানুষের মধ্যে কাজ করা। দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা। তাই আমরা আমদের লক্ষ্য উদ্দেশ্যকে সামনে নিয়ে কাজ করবো। আমি নির্যাতন নিপীড়নের শিকার মুসলমানদেরকে বলছি, আপনারা ধৈর্য্য হারাবেন না। কারো উপর জুলুম করবেন না। অন্যের উপর জুলুম করে বেঁচে থাকার চেয়ে নিপীড়িত হয়ে মারা যাওয়া ভালো।

মাসলাকী ও ধর্মীয় বিভাজন ভুলে শান্তি, সম্প্রীতি, সৌহার্দ্যের আহ্বান জানিয়ে মাওলানা সাইয়্যিদ মাহমুদ মাদানী বলেন, ভারতের উগ্রবাদী হিন্দুরা ইসলামকে নিয়ে কটূক্তি করছে। মুসলমানদের উপর অমানবিক নির্যাতন-নিপীড়ন করছে। ভারতবর্ষের মাটিতে হিংসাত্মক ঘটনা চলছে-ঘটছে। এ সমস্ত হিংসাত্মক ঘটনার কারণে বিশ্বের দরবারে ভারত একটি নিতান্ত ঘৃণিত রাজ্যে পরিণত হয়ে ওঠছে। ভারতের মান-মর্যাদা ক্ষুণ্ন হচ্ছে। ভারত আমাদের দেশ। আমাদের জন্মভূমি। আমাদের জন্মস্থান। আমরা এটাকে অত্যন্ত ভালোবাসি। দেশের মর্যাদা রক্ষা করা এবং মর্যাদা আরও বৃদ্ধি করা আমাদের দায়িত্ব। বিশ্বের দরবারে দেশের দুর্নাম-বদনাম হোক এটা আমরা কোনভাবেই চাই না। তাই আমাদের উচিত মাসলাকী ও ধর্মীয় বিভাজন ভুলে শান্তি, সম্প্রীতি, সৌহার্দ্যের সাথে ভারতের মাটিতে বসবাস করা।

সব ধর্মের মানুষই শান্তি ও জীবনের নিরপত্তা চায় উল্লেখ করে জমিয়তে উলামা হিন্দের জেনারেল সেক্রেটারি বলেন, কোন ধর্মই আতঙ্কবাদ, সন্ত্রাস, খুন-রাহাজানি ইত্যাদি শিক্ষা দেয় না। সব ধর্মই শান্তি, সম্প্রীতি, সৌহার্দ্যের শিক্ষা দেয়। সকল ধর্মের মানুষই শান্তি ও জীবনের নিরাপত্তা চায়। ভারতের প্রত্যেকটা জেলায় শান্তি সম্প্রীতির চির সবুজ মঞ্চ প্রতিষ্ঠা করার কথা বলেন তিনি।

ভারতে চলমান মুসলিম নির্যাতনের ন্যাক্কারজনক ঘটনাগুলোর জন্য বিজেপি সরকারকে দায়ী করে জমিয়তে উলামা হিন্দের নেতা কারী সাইয়্যিদ মুহাম্মদ উসমান মানসুরপুরী বলেন, ইংরেজদের অন্যায় শাসনের বিরুদ্ধে যারা রুখে দাঁড়িয়েছিলেন তাদের মধ্যে সব ধর্মের মানুষের স্বপ্রণোদিত উপস্থিতি ছিল। ভারতের বর্তমান সরকার ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে মুসলমানদের অবদানের কথা ভুলে গেছে। ভুলে গেছে হযরত হুসাইন আহমদ মাদানী রহ.-এর ত্যাগ-তিতিক্ষার কথা। কিন্তু এই সরকার এখন মুসলমানদের উপর কেবল নির্যাতন করছে। মুসলমানদের দায়ভার গ্রহণ করছে না। ক্ষমতাসীন সরকারকে ধর্মীয় ভেদাভেদ ভুলে সকল ধর্মের মানুষকে সমান চোখের দেখার আহ্বান জানান তিনি।
এছাড়াও আনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দিয়েছেন, মুফতি খালিদ সাইফুল্লাহ রহমানী, মাওলানা সাইয়্যিদ মঈন হুসাইনি, মাওলানা সাইয়্যিদ মুহাম্মদ তানভির হাশিমি, মাওলানা আজদাদ নদভি, মাওলানা মতিনুল হক উসামা, মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরি, মাওলানা রহমতুল্লাহ, মাওলানা নাদিম আহমদ সিদ্দিকি, মাওলানা নিয়াজ আহমদ ফারুকি, মাওলানা মুআজ উদ্দীন কাসেমী, মাওলানা সাইয়্যিদ মুহাম্মদ আশরাফ, মাওলানা সাআদাতুল্লাহ হুসাইনি, মাওলানা মঈন হুসাইনি প্রমুখ।

এই সংবাদটি 1,104 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com