বুধবার, ১৬ অক্টো ২০১৯ ০১:১০ ঘণ্টা

জৈন্তাপুর সীমান্তে বাংলাদেশীসহ শতাধিক গরু নিয়ে গেছে ভারতীয় খাসিয়ারা

Share Button

জৈন্তাপুর সীমান্তে বাংলাদেশীসহ শতাধিক গরু নিয়ে গেছে ভারতীয় খাসিয়ারা

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি :: জৈন্তাপুর উপজেলার নিজপাট ইউনিয়নের টিপরাখলা সীমান্ত থেকে এক ব্যক্তিসহ শতাধিক গরু ধরে নিয়ে গেছে ভারতীয় খাসিয়ারা। এই নিয়ে সীমান্তে দু-দেশের নাগরিকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এই ঘটনায় সীমান্ত এলাকায় বিজিবি সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত ১২অক্টোবর জৈন্তাপুর উপজেলার নিজপাট ইউনিয়নের টিপরাখলা সীমান্তের বাসিন্দা হারিছ উদ্দিনের ছেলে ১ সন্তানের জনক ফিরোজ মিয়া (৩৮) ভারতের এসপিটিলা এলাকার হেওয়াই বস্তির বাসিন্দা চংকর খাসিয়া’র স্ত্রী ৫ সন্তানের জননীকে প্রেমের সুবাধে বাংলাদেশে নিয়ে এসে আত্মগোপনে চলে যান। এঘটনাকে কেন্দ্র করে জৈন্তাপুর উপজেলার জৈন্তাপুর সীমান্তের ১২৮৮নং আন্তর্জাতিক পিলার এলাকায় দু’দেশের পতাকা বৈঠক হয় এবং ২দিনের মধ্যে ভারতীয় নারীকে ফেরত দেয়ার আশ্বাস দেয়া হয়। আশ^াস দিলেও ফিরোজসহ তার প্রেমিকাকে কোথাও খুঁজে পাওয়া না যাওয়ায় ফেরত দেয়া সম্ভব হয়নি। ফিরোজের পরিবারের সাথে বিষয়টি নিয়ে আলাপকালে তারা জানান ঘটনার দিন থেকে আমরা তাকে কোথাও খুঁজে পাচ্ছিনা। সে বাংলাদেশে না অন্য কোথাও আছে আমাদের জানা নেই।

দু’দিন পেরিয়ে যাওয়ার পর ভারতীয় নারীকে ফেরত না দেয়ায় গতকাল মঙ্গলবার বেলা ২টায় ১২৮৮নং আন্তর্জাতিক পিলারের ৩এস পিলার থেকে ৬এস পিলার এলাকা দিয়ে ভারতীয় হেওয়াই বস্তির খাসিয়ারা বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশ করে টিপরাখলা গ্রামের তজম্মুল আলীর ছেলে আব্দুন নুর (৪৫)সহ প্রায় শতাধিক গরু ধরে নিয়ে যায় সীমান্তের ওপারে।

এদিকে, ভারতীয় খাসিয়ারা বাংলাদেশী নাগরিকসহ গরু ধরে নিয়ে যাওয়ার সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ১৯ বিজিবি’র জৈন্তাপুর ক্যাম্পের ক্যাম্প কমান্ডার আব্দুল কাদির, নিজপাট ইউপির সদস্য মনসুর আহমদ, আব্দুল হালিম।

অপরদিকে, গরু ধরে নিয়ে যাওয়া এবং নারীকে ফিরিয়ে না দেয়াকে কেন্দ্র করে জৈন্তাপুরের টিপরাখলা সীমান্তে দু- দেশের নাগরিকদের মধ্যে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহূর্তে উত্তেজনা চরম আকার ধারণ করার সম্ভাবনা রয়েছে।

এ ব্যপারে ১৯বিজিবি’র জৈন্তাপুর ক্যাম্প কমান্ডার আব্দুল কাদির জানান, আমি ১২ অক্টোবরের ঘটনার পর ভারতীয় বিএসএফ’এর মধ্যস্থতায় খাসিয়াদের সাথে আলাপ করে দু’দিনের মধ্যে ভারতীয় নারীকে ফিরিয়ে দেয়ার আশ্বাস দেই। তারা আমাদের কথা গুরুত্বের সাথে আমলে নেয়। কিন্তু ফিরোজের পরিবার আমাদের কথা না রাখায় ভারতীয় খাসিয়ারা উত্তেজিত হয়ে বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশ করে আব্দুন নুরসহ বেশ কিছু গরু ধরে নিয়ে যায়। আমি বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। খাসিয়ারা বাংলাদেশীদের গরু ধরে নিতে না পারে সে জন্য সীমান্তে টহল জোরদার করা হয়েছে।

এই সংবাদটি 1,009 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com