বিশ্বনাথে যুবদল নেতা হত্যা মামলায় তিন জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত: ৩:১১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৪, ২০১৯

বিশ্বনাথে যুবদল নেতা হত্যা মামলায় তিন জনের যাবজ্জীবন

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি
বিশ্বনাথে যুবদল নেতা ফুল মিয়া হত্যার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় সাবেক ইউপি সদস্য সহ তিনজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। রবিবার দুপুরে সিলেটের অতিরিক্ত দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক মো. আমিরুল ইসলাম চাঞ্চল্যকর এ মামলার রায় ঘোষণা করেন। রায়ের পাশাপাশি আসামিদের প্রত্যেককে দশ হাজার টাকা অর্থদন্ড ও অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। বাদী পক্ষের আইনজীবী আবদুল লতিফ বলেন, আদালত রায় ঘোষণার পর সাজাপ্রাপ্ত আসামীদেরকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- বিশ্বনাথ উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার ও মুছেধর গ্রামের মৃত ছিফত উল্লাহর পুত্র দুদু মিয়া (৪৫), একই গ্রামের তেরা মিয়ার পুত্র দেলোয়ার হোসেন উরফে পারেছ (২৯) এবং সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ থানার চন্ডিপুর গ্রামের মৃত জগত চন্দ্র দাশের পুত্র জয়ন্ত দাশ (৩২)। আদালতে বিচারাধীন অবস্থায় মামলার আসামি ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা থানার লালমা গ্রামের মৃত আব্দুস ছোবাহানের পুত্র হেলাল উদ্দিন (৪০) মারা যাওয়ায় এবং অপর আসামী বিশ্বনাথ উপজেলার তবলপুর গ্রামের মৃত নূর ইসলামের পুত্র জামাল উদ্দিন (৩০) এর বিরুদ্ধে অপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত।
মামলার বিবরণীতে জানা যায়, ২০১২ সালের ২৬ জানুয়ারি দিবাগত রাতে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয় বিশ্বনাথ উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়ন যুবদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও মছেধর গ্রামের মাসুক মিয়ার পুত্র ফুল মিয়া (২৯)। পরদিন সকালে ফুল মিয়ার বাড়ির পার্শ্ববর্তী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ফুল মিয়ার পিতা মাসুক মিয়া বাদী হয়ে সাবেক ইউপি সদস্য দুদু মিয়াকে প্রধান আসামি করে বিশ্বনাথ থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১২ সালের ৩১ মে বিশ্বনাথ থানার তৎকালীন পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) চান মিয়া পাঁচজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। মামলাটি দীর্ঘ প্রায় ৭বছর বিচারাধীন থাকার পর রবিবার রায় প্রদান করেন আদালত।

এই সংবাদটি 9 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com