উন্নয়ন দিয়েই ২৬ নং ওয়ার্ডকে সাজাতে চাই: হাসিবুর রহমান মানিক

প্রকাশিত: ৮:৩১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০১৯

ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের ৯২টি ওয়ার্ডের মধ্যে সবচাইতে তরুণ কাউন্সিলর মানিক। শুধু তাই না দক্ষিণ নগর ভবন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ সাঈদ খোকন যখন রাষ্ট্রীয় কোন সফর অথবা যে কোন কারণে যদি মেয়র পদে কাউকে দায়িত্ব পালন করতে হয় এতে সেই গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বটি যথাযথ ভাবে ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন আলহাজ্ব মোহাম্মদ হাসিবুর রহমান মানিক। যেমন গত ৭ অক্টোবর থেকে ১৪ অক্টোবর ২০১৯ এই তারিখ পর্যন্ত সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করেন সেই দায়িত্ব পাওয়ার পরপরই তাহার নির্বাচিত এলাকায় এক আনন্দের বন্যা ও মিস্টি খাওয়ার এক ধুমধামের সৃষ্টি হয় জনগণের মধ্যে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ২৬ নং ওয়ার্ডের জনপ্রতিনিধিত্ব করছেন তিনি। কল্যাণমুখী এই কাউন্সিলরকে এলাকার গরীব-দুঃখীরা ভালবেসে ডাকেন ‘জনতার কমিশনার’ বলে। তার এমন জনস্রোত দেখে কোন একটি মহল মাঠে নেমেছেন অপপ্রচারে।

সম্প্রতি এ কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও কতিপয় অনলাইন প্রোটাল ও একটি পত্রিকায় নিউজ করে নামমাত্র কিছু মনগড়া তথ্য দিয়ে অপপ্রচার করে আসছে একটি মহল। তিনি মানিক বলেন পরিশেষে এই দৈনিক পত্রিকার সম্পাদক সহ কতৃপক্ষ আমার কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন। তার বিরুদ্ধে এ ধরনের অপপ্রচার আজিমপুর, লালবাগ ২৬ নং ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষ দেখে হাস্যকরভাবে নিচ্ছেন। তারা মনে করেন, মানিক একজন কাউন্সিলর নয়, তিনি এলাকাবাসীর গৌরব। এমন কাউন্সিলর পেয়ে ২৬ নং ওয়ার্ড বাসি স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে পারেন বলে মনে করেন ওই এলাকার বাসিন্দারা।

আজ ৮ নভেম্বর শুক্রবার বিকেলে আজিমপুর এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজকর্ম ” ২৬ নং ওয়ার্ড জনগণের সেবামূলক কার্যক্রম ও জণগণের দাবি “,শীর্ষক এক আলোচনা সভা ও মতবিনিময়ের আয়োজন করে ” ওয়ার্ক ফোর জার্নালিস্ট ” এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক ও ডিইউজে ও বিএফইউজে-বাংলাদেশ কাউন্সিলর মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার সঞ্চালনা করেন সদস্য সচিব মাহি আল ফয়সাল খান, এতে উক্ত ওয়ার্ডের স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, সামাজিক ও বিভিন্ন পেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন। গণ্যমান্য,ব্যক্তিবর্গের মধ্যে মোঃ ইদ্রিস আলী, মোঃ চান মিয়া, মোঃ শাহা আলম, আবদুল মালেক, হাজী আবদুর রশীদ, ইয়াসিন আলী সরকার প্রমুখ। আজ বিকেলে ওয়ার্ডের বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজকর্ম পরিদর্শন শেষে স্থানীয় এলাকার জনগণের সাথে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত থেকে তিনি মানিক তাঁহার বক্তব্য একথা গুলো চ্যালেঞ্জ করেন এবং তার উন্নয়নের ধারাবাহিকতা কার্যক্রম তুলে দরেন। এতে উপস্থিত ছিলেন উক্ত ওয়ার্ডের
জানা গেছে,মানিক ছাত্র রাজনীতি থেকেই মূল ধারার রাজনীতিতে এসেছেন।বর্তমানে জনপ্রতিনিধি হয়ে হাল ধরে আছেন সুনামের সাথে।

২০১৫ সালের ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কাউন্সিলর নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেন। এ নির্বাচনেই তার জনপ্রিয়তা ফুটে উঠে। তার জনপ্রিয়তা ও জনস্রোতের ফলে ঐ নির্বাচনে বিপুল ভোটের বিশাল ব্যবধানে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীকে হারান।

সূত্র জানায়, জনপ্রতিনিধি হওয়ার পর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি মানিককে । যদিও মানিকের অভিযোগ,একটি মহল তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য সব সময় পেছনে লেগে থাকে। তারপরও নিজের মেধা, যোগ্যতা,সাংগঠনিক দক্ষতা আর মানুষকে ভালোবেসে সর্বস্তরের জনগণের আস্থা অর্জন করেছেন তিনি।

মোঃ শাহ আলম বলেন, ‘আমাদের জনতার কাউন্সিলর কাজ কর্মে যেমন তড়িৎকর্মা, চিন্তা চেতনাতেও তেমন উন্নত। তিনি প্রথমবারের মতো ইসলাম ধর্ম প্রধান দেশে ধর্মীয় চিন্তা ভাবনা থেকে এমন একটা স্তম্ভ নির্মাণ করার জন্য যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন আমরা স্বাগতম জানাই। তারিসাথে মানিকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে যারা এই সমস্ত বিষয়ে মন্তব্য করে শাহ আলম আরও বলেন এই সমস্ত নিউজ নিয়ে আমরা চিন্তিত না হতাশ ও না। এগুলো হাস্যকর মিথ্যা ষড়যন্ত্র। আমরা ওয়ার্ড বাসির পক্ষ থেকে এই ধরনের মিথ্যা অভিযোগের সত্যা প্রমাণ চাই আমরা চ্যালেঞ্জ করে নিলাম প্রমাণ দেখানোর জন্য।

কাউন্সিলর মানিক বলেন, লালবাগ ও আজিমপুর অত্র এলাকা ঐতিহ্যগতভাবেই এলাকার বাসিন্দারা ইসলামি ভাব গাম্ভীর্যের মধ্যে তাদের জীবন যাপন করে যাচ্ছেন। আল্লাহর কাছে আমি শুকরিয়া আদায় করছি যে, আমি এই ওয়ার্ডের প্রতিনিধিত্ব করতে পারছি। আমি সৌদি আরবের এমন অনেক ইসলামিক স্ট্যাচু দেখেছি। তখন থেকেই আমার মনের ইচ্ছে ইসলামের চারুশিল্প এমন কিছু একটা করার পরিকল্পনা ছিল। ইচ্ছা আছে, আমি আমার দায়িত্ব পালন কালিন সময়ের মধ্যেই লালবাগ ও আজিমপুর এলাকার মধ্যে পরিবেশ উপযোগী সৌন্দর্য স্বরূপ একটি স্থানে বড় করে পবিত্র কোরআন রাখার রেহেলের আদলে একটি স্তম্ভ তৈরি করবো।

এলাকাবাসীর পক্ষে আবদুল মালেক বলেন- জমি দখল, খাল ভরাটের বিরুদ্ধেও অত্যন্ত সোচ্চার কাউন্সিলর মানিক। সম্প্রতি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) আওতাধীন অত্র এলাকার রাস্তার মোড়ে অবৈধ উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে এই উচ্ছেদ কর্মসূচি সমন্বয় করেছেন কাউন্সিলর মানিক। মালেক বলেন আমাদের কাউন্সিলের উন্নয়ন কাজকে প্রতিহিংসা বশত হয়ে একটি গোষ্ঠী মিথ্যা ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে তাহার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এলাকা বাসির পক্ষ থেকে।

মোঃ চান মিয়া বলেব মানিক ভাই পুরো ঢাকা শহরের যুবক রাজনীতিকদের জন্য এক অনুসরণীয় ব্যক্তিত্ব। যার জনপ্রিয়তা আকাশ ছোঁয়া।
সেই জন্য কিছু কুচক্রী মহল উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে যাহা কোন ভাবেই আমরা অত্র ওয়ার্ড বাসিন্দারা মেনে নিতে পাচ্ছি না।

এলাকা সূত্রে জানা গেছে, মাদকের বিরুদ্ধেও সোচ্চার জনতার এই কাউন্সিলর। যে সমস্ত জায়গায় মাদকসেবীদের আড্ডা ছিল, দুর্গন্ধের কারণে সেদিকে আশেপাশে যাওয়াও কঠিন ছিল। কিন্তু কাউন্সিলর মানিক সেই মাদকসেবিদের আড্ডা ধূলিসাৎ করে দিতে সক্ষম হয়েছেন।

এই সংবাদটি 160 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com