সোমবার, ১৮ নভে ২০১৯ ০৮:১১ ঘণ্টা

সিলেটে কর মেলায় ৫ম দিনে আদায় সাড়ে ৭ কোটি টাকা

Share Button

সিলেটে কর মেলায় ৫ম দিনে আদায় সাড়ে ৭ কোটি টাকা

সিলেট রিপোর্ট :
সিলেটে সপ্তাহ ব্যাপী আয়কর মেলার ৫ম দিনে সাড়ে ৭ কোটি টাকা কর আদায় হয়েছে। সোমবার (১৮ নভেম্বর) সিলেট বিভাগের চার জেলাসহ ৭টি স্থানে মেলা থেকে ৭ কোটি ৫১ লাখ ৮১ হাজার ৫৭৬ টাকা কর আদায় হয়। এদিন রিটার্ণ দাখিল করেন মোট ৪ হাজার ৩৫৩ জন, সেবা নেন ৬ হাজার ১০৭ জন এবং নতুন ইটিআইএন নিয়েছেন ২৮৭ জন।
এ নিয়ে গত ৫ দিনে মেলা থেকে আদায় হয়েছে মোট ২৮ কোটি ৩৪ লাখ ৬০ হাজার ৮৬৭ টাকা। রিটার্ণ দাখিলকারীর সংখ্যা মোট ১১ হাজার ৬৬৯ ও সর্বসাকুল্যে সেবা গ্রহিতা ২৩ হাজার ১৯০ জন এবং মেলায় এসে নতুন ইটিআইএন করেছেন ৭৫৯ জনে।
কর অঞ্চল সিলেটের উপ কর কমিশনার (সদর দপ্তর ও প্রশাসন) কাজল সিংহ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, সিলেটের চার জেলাসহ ৯টি স্থানে আয়কর মেলার আয়োজন হয়। এরমধ্যে ১৬ নভেম্বর সিলেটের বালাগঞ্জ ও ১৭ নভেম্বর গোলাপগঞ্জ উপজেলা পর্যায়ে ২ দিনের মেলা শেষ হয়েছে। এছাড়া সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ জেলা ও সুনামগঞ্জের ছাতক, মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল ও কুলাউড়া উপজেলার মেলা থেকে সর্ব সাকুল্যে এই কর আদায় হয়। এরআগে গত রোববার পর্যন্ত চারদিনে মেলায় ২০ কোটি ৮২ লাখ ৭৯ হাজার ২৯১ টাকা কর আদায় হয়েছে।
মেলা থেকে প্রাপ্ত তথ্যে মতে, সোমবার (১৮ নভেম্বর) সিলেট নগরের মোহাম্মদ আলী জিমনেশিয়ামে মেলা থেকে ৭ কোটি ১৯ লাখ ৭ হাজার ৫১২ টাকা আয়কর আহরণ করা হয়। এদিন রিটার্ণ দাখিণ করেন ২হাজার ৫৯৮ জন, সেবা গ্রহণ করেন ৩ হাজার ৩৫২ জন এবং ১২৯ জন নতুন ইটিআইএন গ্রহণ করেছেন। গত ৫ দিনে এখান থেকে কর আদায়ের পরিমাণ মোট ২৭ কোটি ৩১ লাখ ৭ হাজার ৩২৬ টাকা, রিটার্ণ দেন মোট ৭ হাজার ৫৭ জনে, সেবা নিয়েছেন ১৪ হাজার ৮৩৮ জন এবং ৩৯৫ জন নতুন ইটিআইএন নিয়েছেন।
মৌলভীবাজার জেলায় (১৫-১৮ নভেম্বর) চার দিনের মেলার শেষ দিনে সোমবার ১২ লাখ ৫৫ হাজার ৪৩০ টাকা আদায় হয়। এদিন রিটার্ণ দাখিল করেন ৩২১ জন, সেবা নেন ৪২০ জন এবং ৬১ জনে নতুন ইটিআইএন গ্রহণ করেন। এই মেলা থেকে গত চার দিনে মোট আদায়ের পরিমাণ ৫০ লাখ ২১ হাজার ১৪৫ টাকা। আর রিটার্ণ দেন মোট ১ হাজার ৯০৯ জনে, সেবা নিয়েছেন ২ হাজার ৬৭৫ জনে এবং সর্বসাকুল্যে নতুন ইটিআইএন নিয়েছেন ১২১ জন।
সুনামগঞ্জ জেলায় (১৬-১৯ নভেম্বর) চার দিনের মেলার তৃতীয় দিনে সোমবার ১৯ লাখ ১৬ হাজার ৭৪৮ টাকা কর আদায় হয়েছে। এদিন রিটার্ণ দেন ৬৫৮ জন, সেবা গ্রহণ করেন ৯২২ জন এবং ৪৭ জন নতুন কওে ইটিআইএন গ্রহণ করেন। তিন দিনে মেলা থেকে মোট আদায়ের পরিমাণ ২২ লাখ ৬৬হাজার ১৬৬ টাকা। মোট রিটার্ণ দাখিলকারী ৬৫৮ জন ও সেবা গ্রহণকারী ২ হাজার ৭৮০ জন এবং নতুন ইটিআইএন গ্রহণকারী ৯২ জন।
হবিগঞ্জ জেলায় (১৭-২০ নভেম্বর) পর্যন্ত চার দিনের মেলার ২য় দিনে সোমবার মেলা থেকে ১১ লাখ ৭২ হাজার ২৮৪ টাকা আদায় হয়েছে। এদিন রিটার্ণ দাখিল করেছেন ৬৭৮ জন এবং সেবা নিয়েছেন ৭৭০ জন ও ৩৬ জন নতুন ইটিআইএনধারী হয়েছেন। এখানে দুইদিনে মেলা থেকে আদায় হয়েছে ১৭ লাখ ১১হাজার ৪৮ টাকা, রিটার্ণ দিয়েছেন মোট ১০৩৬ জনে, ১হাজার ৩৯৫ জনে এবং ৭৬ জনে নতুন কওে ইটিআইএন খোলেছেন।
এছাড়াও ছাতক উপজেলায় (১৭-১৮ নভেম্বর) দুই দিনে মোট ৪৪হাজার ৫৮২ টাকা আদায় হয়। রিটার্ণ দেন মোট ৪৫ জন, সেবা নেন ১৫০ জনে এবং নতুন করে একজনে ইটিআইএন নেন। কেবল সোমবার মেলা থেকে আদায় ৩০ হাজার ৯৯৩ টাকা, রিটার্ণ দেন ৫০ জন, সেবা নেন ৮০ জন, এদিন নতুন কওে কেউ ইটিআইএন গ্রহণ করেননি।
শ্রীমঙ্গলে (১৭-১৮ নভেম্বও দুই দিনের মেলা থেকে মোট আদায় হয়েছে ৫ লাখ ৪১ হাজার ৩ টাকা। রিটার্ণ দেন ৪৭৬ জনে, সেবা নেন ৩৬২ জন এবং ২৪ জন নতুন ইটিআইএন নিয়েছেন। এ উপজেলায় শেষ দিনে (সোমবার) ২ লাখ ৫৭ হাজার ৩৬৭ টাকা, রিটার্ণ দেন ২৬৮ জন, সেবা নেন ২০৫ জন এবং নতুন ইটিআইএন নিয়েছেন ৮ জন।
কুলাউড়া উপজেলায় (১৮-১৯ নভেম্বর) দুই দিনব্যাপী মেলার প্রথম দিনে (সোমবার) ২১৮ জন রিটার্ণ দিয়েছেন, বিপরীতে ৩ লাখ ৫১ হাজার ২৪২ টাকা কর আদায় হয়েছে। আর সেবা নিয়েছেন ৩৫৮ জন, নতুন ইটিআইএন খোলেছেন ৫ জন।
এরআগে সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলায় (১৫ ও ১৬ নভেম্বর) দুই দিনের মেলা থেকে আদায় ছিল ১ লাখ ৩২ হাজার ৬৩৫ টাকা, রিটার্ণ দাখিল করেন ১৭৮ জনে, সেবা নেন ৫০১ জন এবং ৩ জন নতুন ইটিআইএন নেন। গোলাপগঞ্জ উপজেলায় (১৬-১৭ নভেম্বর) মেলা থেকে আদায় ২ লাখ ৮৫ হাজার ৭২০ টাকা। রিটার্ণ দাখিল করেন ৯২ জন, সেবা নেন ১৩১ জন এবং নতুন করে ইটিআএন নেন দু’জন।
“আমরা স্বাবলম্বী হব সকলে কর দেব” এই স্লোগানে সাত দিন ব্যাপী আয়কর মেলা গত বৃহস্পতিবার উদ্বোধন হয়। আগামি ২০ নভেম্বর পর্যন্ত মেলা চলবে। মেলায় সার্ভিস ডেস্ক, ইটিআইএন, রিটার্ন গ্রহণ, সঞ্চয়ী ব্যুরো, সামরিক-আধা সামরিক, সশস্ত্র বাহিনী ও মুক্তিযোদ্ধা বুথ, সিনিয়র সিটিজেন, আইনজীবী, মহিলা প্রতিবনন্দ্বি ও সাংবাদিকদের ব্যাংকসহ ২৫টি বুথের মাধ্যমে সেবা দেওয়া হচ্ছে।

এই সংবাদটি 1,001 বার পড়া হয়েছে

বিশ্বের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস ম্যাগজিন। এই তালিকার শীর্ষ একশ নারীর মধ্যে প্রথম অবস্থানে রয়েছেন জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। তালিকার ২৯তম অবস্থানে রয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  বাংলাদেশের ইতিহাসে দীর্ঘকালীন সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি চতুর্থবারের মতো জয়ী হয়ে টানা তিনবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত নির্বাচনে তার দল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সংসদের ৩শ আসনের মধ্যে ২৮৮টিতেই জয় লাভ করে।  ১৯৮১ সাল থেকে টানা প্রায় ৩৮ বছর ধরে বাংলাদেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের দলীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালের ২৩ জুন প্রথমবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি। এরপর থেকেই শক্ত হাতে দলকে নিয়ন্ত্রণ করছেন শেখ হাসিনা। দেশের খাদ্য নিরাপত্তা, শিক্ষার উন্নয়ন এবং স্বাস্থ্যসেবার প্রতি জোর দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী।  ফোর্বসের তালিকায় প্রভাবশালী শীর্ষ ১০ নারীর তালিকায় আছেন অ্যাঙ্গেলা মেরকেল, ক্রিস্টিনে লেগারদে, নেন্সি পেলোসি, আরসুলা ভন দের লেয়েন, মেরি বারা, মেলিন্ডা গেটস, আবিগেইল জনসন, আনা পেট্রিসিয়া বোটিন, গিনি রোমেটি এবং মেরিলিন হিউসন। ২০১৮ সালে ফোর্বসের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকায় শেখ হাসিনার অবস্থান ছিল ২৬তম।
বিশ্বের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস ম্যাগজিন। এই তালিকার শীর্ষ একশ নারীর মধ্যে প্রথম অবস্থানে রয়েছেন জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। তালিকার ২৯তম অবস্থানে রয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের ইতিহাসে দীর্ঘকালীন সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি চতুর্থবারের মতো জয়ী হয়ে টানা তিনবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত নির্বাচনে তার দল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সংসদের ৩শ আসনের মধ্যে ২৮৮টিতেই জয় লাভ করে। ১৯৮১ সাল থেকে টানা প্রায় ৩৮ বছর ধরে বাংলাদেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের দলীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালের ২৩ জুন প্রথমবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি। এরপর থেকেই শক্ত হাতে দলকে নিয়ন্ত্রণ করছেন শেখ হাসিনা। দেশের খাদ্য নিরাপত্তা, শিক্ষার উন্নয়ন এবং স্বাস্থ্যসেবার প্রতি জোর দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। ফোর্বসের তালিকায় প্রভাবশালী শীর্ষ ১০ নারীর তালিকায় আছেন অ্যাঙ্গেলা মেরকেল, ক্রিস্টিনে লেগারদে, নেন্সি পেলোসি, আরসুলা ভন দের লেয়েন, মেরি বারা, মেলিন্ডা গেটস, আবিগেইল জনসন, আনা পেট্রিসিয়া বোটিন, গিনি রোমেটি এবং মেরিলিন হিউসন। ২০১৮ সালে ফোর্বসের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকায় শেখ হাসিনার অবস্থান ছিল ২৬তম।
WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com