মালয়েশিয়ায় ঐক্য, সুশাসন, শিক্ষা, গবেষণায় প্রিন্সিপাল মাওলানা শোয়াইবের গুরুত্বারোপ

প্রকাশিত: ১২:৩৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২০, ২০১৯

মালয়েশিয়ায়  ঐক্য, সুশাসন, শিক্ষা, গবেষণায় প্রিন্সিপাল মাওলানা শোয়াইবের গুরুত্বারোপ

সিলেটরিপোর্টঃ

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে আমন্ত্রিত হয়ে ‘কুয়ালালামপুর সামিট-২০১৯’ এ যোগদান করতে গত ১৭ ডিসেম্বর জমিয়ত নেতা প্রিন্সিপাল মাওলানা শোয়াইব আহমদ মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালমপুর পৌঁছেছেন। পর দিন ১৮ থেকে ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কুয়ালালামপুরে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় মুসলিম রাষ্ট্রপ্রধান ও নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে শুরু হওয়া গুরুত্বপূর্ণ এই সম্মেলনে তিনি যোগদান করেন।

সম্মেলনের মূল পর্বে অংশগ্রহণ ছাড়াও ইতিমধ্যেই কয়েকটা সাইট গোলটেবিল আলোচনায় বিশ্ব মুসলিমের সংকট ও সমাধানের উপায় নিয়ে আলোচনায় তিনি অংশগ্রহণ করেছেন।

কুয়ালালামপুর সামিট-২০১৯ এর শীর্ষ নেতৃবৃন্দের সম্মেলনে প্রিন্সিপাল মাওলানা শোয়াইব আহমদ।
উম্মাহ ২৪ ডটকমকে টেলিফোনে মাওলানা শোয়াইব জানিয়েছেন, “আজ (১৮ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় সকালে হোটেল মান্দারিনে বিশ্বনেতৃবৃন্দের সাথে সকালের নাস্তা শেষে সম্মেলনের প্রথম দিনের মূল অনুষ্ঠানে যোগদান করেছি। এ মুহূর্তে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মুহাম্মদ বক্তব্য দিচ্ছেন। ইতিমধ্যেই কয়েকটা সাইট গোলটেবিল বৈঠকে বিশ্ব মুসলিমের সংকট ও সমাধানের উপায় নিয়ে আলোচনায় শরীক হয়েছি। মূল সম্মেলনের বাইরে আমাদের আরো কয়েকটি বৈঠক ও মতবিনিময় সভা আছে”।

তিনি আরো জানিয়েছেন, “প্রতিটি বৈঠকেই মুসলিম উম্মাহ’র সংকট নিরসন, সুদৃঢ় ঐক্য প্রতিষ্ঠা, পারস্পরিক যোগাযোগ ও সুসম্পর্ক গড়া, সংকট মোকাবেলায় সম্মিলিত অবস্থান এবং শিক্ষা ও গবেষণায় মুসলমানদের আরো বেশি সম্পৃক্ত ও মনোনিবেশের উপর গুরুত্বারোপ করা হয়”।

বিশ্ব মুসলিম নেতৃবৃন্দের সাথে ডিনারে শরীক হয়েছেন প্রিন্সিপাল মাওলানা শোয়াইব আহমদ।
মাওলানা শোয়াইব আরো জানিয়েছেন, প্রায় প্রতিটি গোল টেবিল বৈঠকেই মুসলিম নেতৃবৃন্দের কণ্ঠে এটাই উচ্চারিত হয়েছে যে, “বর্তমান মুসলিমবিশ্বের সংকটের জন্য সুশাসন-সুবিচারের অভাব যেমন দায়ী, তেমনি শিক্ষা, গবেষণা থেকে পিছিয়ে পড়াও সমানভাবে দায়ী। এসবের ফলে সমাজে ষড়যন্ত্রকারীরা অনৈক্যের বিজ বুনন ও বিভ্রান্তিতে জড়ানোর সুযোগ পায়। ভোগবাদ ও আত্মকেন্দ্রিক বিস্তার ঘটিয়ে পারস্পরিক সন্দেহ ও অবিশ্বাস তৈরি করে পরিবার ও সমাজ ব্যবস্থা ভেঙ্গে দেয়। তারপর তারা স্বার্থ উদ্ধার করে”।

কুয়ালালামপুরে অবস্থানকালীন অন্যান্য বিশ্ব নেতৃবৃন্দ ও আমন্ত্রিত ডেলিগেটদের সাথে হোটেল মান্দারিন ওরিয়েন্টালে মাওলানা শোয়াইব অবস্থান করবেন। আগামী কাল ২২ ডিসেম্বর সম্মেলন শেষ হবে। পরদিন তিনি মালয়েশিয়া ত্যাগ করবেন।

এই সংবাদটি 17 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com