রবিবার, ২৩ ফেব্রু ২০২০ ১০:০২ ঘণ্টা

ধর্মের নামে অধর্ম আর কতো!

Share Button

ধর্মের নামে অধর্ম আর কতো!

মাজহারুল ইসলাম জয়নালঃ

বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে ধর্মের নামে অধর্মের বাজার জমজমাট।যিনি যতো বেশি বানোয়াট,মিথ্যা কিচ্ছা- কাহিনী বলতে পারেন তিনি ততো বড়ো হুজুর।কেরামতের নামে যত্তোসব আজগুবি মিথ্যা কথা! বাঘ নাকি পীর সাহেবকে এসে সালাম দেয়!সাপ পীরের মুরিদ!কিয়ামতের দিন পীর সাহেব জাহাজ নিয়ে মুরিদেদের রক্ষা করবেন!পীরের সামনে বাঘ আর সাপ হাজির করলে পীরাকি বাঘের পেটে গিয়ে ডুকলো অনে।
বর্তমানে ওয়াজের মার্কেট ধর্ম ব্যবসায় রুপ নিয়েছে,একেকজন হুজুরের হাদিয়া নিম্নে ১০ হাজার আর উপরে ৫০/১ লক্ষ টাকা। ওয়াজ কমিটি রিক্সা চালক,দিনমজুরকেও ছাড় দিচ্ছেন না ধর্মের নামে লক্ষ-কোটি সওয়াবের অফার দিয়ে চাঁদাবাজি করে যাচ্ছেন। (আর ভাড়াটিয়া ধর্মব্যবসায়ী এজন্য বললাম, তাদের পেশাই হচ্ছে ধর্মকে ব্যবহার করে বিনাপঁুজিতে কোটিপতি হওয়া)। চিন্তাকরুন, এক/ দুইঘন্টার আওয়াজে ৫০ হাজার ইনকাম,প্রফেশনাল ওয়াইজ নামক ব্যবসায়ীরা বছরে ধর্মকে পুঁজি করে কোটিকোটি টাকার মালিক হচ্ছেন। তাদের বাসাবাড়ি,মার্কেট, ব্যাংক ব্যালেন্স দেখলে আপনি অবাক হবেন, অথচ ধর্মব্যবসায়ী হুজুর কোনদিনও তার প্রতিবেশীর অসহায়, দরিদ্র মানুষের কোনো খবর রাখেন না! এগুলোতে তার সময় নেই।অথচ তিনি ওয়াজে মাত্র ৮০০০ টাকার বিনিময়ে ৮ জনকে ৮ টা জান্নাতও বিক্রি করে দেন !
এর নাম কি ধর্ম না অধর্ম?
কোনটা ধর্ম আর কোনটা অধর্ম তা তফাৎ করা কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে।ধর্ম মানুষকে নীতি- নৈতিকতা,মানবসেবার শিক্ষা দেয়।প্রিয়নবী সা: সবসময় তার প্রতিবেশির খোঁজ-খবর নিতেন আর ধর্মব্যবসায়ী হুজুর প্রতিবেশির খোঁজ- খবর নিতে পারেন না; কারণ তিনি প্রতিদিন ওয়াজের মার্কেট নিয়েই ব্যস্ত।
অধর্ম মানুষকে সন্ত্রাসী ও ধর্মের নামে ধর্মব্যবসায়ী বানায়। আমি একজন মুসলমান ধর্ম পালন করি, ধর্ম মানি। কিন্তু ধর্মের নামে অধর্ম কখনো মানতে পারি না।
এখানে একটি বিষয় স্পষ্ট যে, ধর্ম আর ধর্মের নামে অধর্ম এক নয়। ধর্মের নামে অধর্ম বা ব্যবসা করা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের চেয়েও জগণ্য। যদিও ধর্মব্যবসায়ী হুজুরদের দাবি তারা ধর্ম রক্ষা করছেন। কিন্তু বাস্তবে তারা ধর্মের সত্যকেই অস্বীকার করে চলেছেন। ধর্মকে ব্যবসায় পরিণত করেছেন।রাত ১২ টার পরে তাদের আওয়াজের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ জনসমাজ। কুরান- হাদীসের প্রকৃত শিক্ষা না থাকার কারণে তারা ধর্মকে বাণিজ্যের পণ্য হিসেবে গ্রহণ করেছেন। আল্লাহ তাদেরকে হেদায়ত দান করুন।

আসুন,এই সমস্থ ধর্মব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলি। সত্যিকার নায়েবে – রাসুল আল্লাহওয়ালা আলেমদের কে সম্মান করি, যারা টাকার জন্যে নয় বরং একমাত্র আল্লাহতালার সন্তুষ্টির জন্যেই কথা বলেন।

এই সংবাদটি 1,555 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com