শনিবার, ২৯ ফেব্রু ২০২০ ১১:০২ ঘণ্টা

১৪ মাসের মধ্যে আফগানিস্তান ছেড়ে যাবে মার্কিন সৈন্যরা

Share Button

১৪ মাসের মধ্যে আফগানিস্তান ছেড়ে যাবে মার্কিন সৈন্যরা


ডেস্ক রিপোর্টঃ
আমেরিকা ও আফগান তালেবানদের মধ্যে ১৯ বছরের দীর্ঘ যুদ্ধের অবসান ঘটাতে ঐতিহাসিক শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) কাতারের রাজধানী দোহায় শান্তিচুক্তি অনুষ্ঠানে তালেবানের পক্ষে মোল্লা আবদুল গণী বেরাদর এবং আমেরিকার পক্ষে বিশেষ প্রতিনিধি জালমাই খালিলজাদ চুক্তিটি স্বাক্ষর করেছেন।

দোহার চুক্তির আওতায় আফগানিস্তান থেকে মার্কিন ও ন্যাটো বাহিনী প্রত্যাহার হবে আগামী ১৪ মাসের মধ্যে, যার প্রতিক্রিয়া হিসাবে তালেবানদের নিশ্চয়তা দিতে হবে যে আফগান মূল ভূখণ্ডটি আল-কায়েদাসহ অন্য সংগঠনগুলির ব্যবহারের অনুমতি দেবে না।

আমেরিকা এবং আমেরিকা সমর্থিত আফগান সরকার কর্তৃক জারি করা একটি যৌথ বিবৃতি অনুসারে, মার্কিন বাহিনী আগামী ১৪ মাসের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সরে যাবে, এবং এই পরিকল্পনাটি তালেবানদের একটি শান্তিচুক্তির সাপেক্ষে হবে।

আমেরিকা ও আফগান তালেবানদের মধ্যে এই শান্তিচুক্তির পর আমেরিকা সমর্থিত আফগান সরকার ও আফগান তালেবানদের মধ্যে আলোচনা শুরু হবে, যাকে আন্তঃ আফগান আলোচনার নামে অবহিত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ৯/১১ এর কয়েক সপ্তাহ পরে আমেরিকা ২০০১ সালের সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তান আক্রমণ করে। এ আক্রমনে এখন পর্যন্ত যুদ্ধে ২৪ হাজার এরও বেশি মার্কিন সৈন্য নিহত হয়েছে, এবং ১২ হাজার এরও বেশি এখনো আফগানে রয়েছে।

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতা গ্রহণের পরে আফগান যুদ্ধ শেষ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশী সহ ৫০ টি দেশের প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেলেন, আমেরিকা এবং তালেবানরা কয়েক দশকের দ্বন্দ্বকে সমাপ্ত করছে। ঐতিহাসিক আলোচনার আয়োজন করার জন্য তিনি কাতারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

মাইক পম্পেও আরও বলেন, তালেবান ও আমেরিকার মধ্যে শান্তি চুক্তি আফগানিস্তানে শান্তি বয়ে আনবে এবং তালিবান যদি এই চুক্তি মেনে চলে তবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতিক্রিয়া ইতিবাচক হবে।

অনুষ্ঠানে ভাষণে আফগান তালেবান নেতা মোল্লা আবদুল গণি বেরাদর বলেন, ইসলামিক আমিরাত আফগানিস্তান আমেরিকার সাথে চুক্তি বাস্তবায়নে বদ্ধপরিকর। আমরা সমস্ত দেশগুলির সাথে আরও ভাল সম্পর্ক চাই, সমস্ত আফগান দলকে একটি সম্পূর্ণ ইসলামী ব্যবস্থা বাস্তবায়নের জন্য একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

কাতারের রাজধানী দোহায় আমেরিকা ও তালেবানদের মধ্যে যে চুক্তি হয়েছে তা কেবল ঐতিহাসিকই নয়; আফগানিস্তানে শান্তি, সুরক্ষা ও সমৃদ্ধির জন্যও সেরা মাইলফলক হিসাবে প্রমাণিত হবে।

সূত্র : আল জাজিরা জিও নিউজ

এই সংবাদটি 1,035 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com