আগামী বিশ্ব হবে “ডিগ্লোবালাইজেশনের বিশ্ব”

প্রকাশিত: ৩:৪৮ অপরাহ্ণ, মে ২৭, ২০২০

আগামী বিশ্ব হবে “ডিগ্লোবালাইজেশনের বিশ্ব”

এম শামছুল আলমঃ নিজেদের উন্মুক্ত সীমান্ত এবং পলিসি পাল্টে “বন্ধ দরজা” পলিসিতে যাবে অনেক দেশ :

১.প্রথম নরমাল হলো যে কারোই করোনা হতে পারে।

২.দ্বিতীয় নরমাল এখনো সার্বজনীন কোনো ভেকসিন বাজারে নেই,তাই ঝুঁকি সবার জন্যেই একই।

৩.এই প্রথম মানুষের অর্থ ক্ষমতা বিদেশে চিকিৎসা কাজে আসছে না। সবাই সমান।

৪.একটা কথা খুব পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে মানুষ নিজেদেরকে যতটা এই গ্রহের ফুডচেইনের সবচেয়ে উপরে ভাবছিলো আদতে সেটা সত্য নয়।

৫.আমাদেরকে আরো অনেকটা সময় এভাবে কিছুটা দিকভ্রষ্ট হয়েই জীবন যাপন করতে হবে।

৬.সামাজিক প্রাণী মানুষকে সামাজিক এবং শারীরিক দুরুত্ব বজায় রেখেই চলতে হবে।

৭.গবেষণা এবং স্বাস্থ্য খাতে যে জাতি যত কম মনোযোগ দিবে তাদের দূর্ভোগ তত বাড়বে।

৮.স্বাস্থ্য বিধি না মানলে অদৃশ্য এই ভাইরাস আপনাকে সাদরে খুঁজে নেবেই।

৯.এয়ারলাইন্স হোটেল ,রিটেইল পর্যটন শিক্ষা বিনোদনের মত সেক্টরে যে আর্থিক ক্ষত সৃষ্টি হচ্ছে তা থেকে উত্তরণের জন্যে মাস নয় একাধিক বছর লেগে যাবে।

১০.আর্থিক প্রণোদনার সার্বজনীন বন্টন যে জাতি যত সুচারু রূপে করতে পারবে তাদের নাগরিকরা ততটা স্বস্তিতে থাকবে।

১১.করোনার দ্বিতীয় ধাক্কা প্রথম ধাক্কার চেয়েও ভয়াবহ হতে পারে।

১২.সবচেয়ে বিপদে পরবে শরণার্থীরা ,তাদরেকে গ্রহণ করার মত উদারতা দেখানোর সাহস করবে খুব কম কিছু দেশ বা নেতৃত্ব।

১৩.চাকরি হারিয়ে আর প্রথমবারের মত অতি দারিদ্রের মুখোমুখি হয়ে মানসিক ভারসাম্য হারাবে অনেকেই।

১৫. চায়না থেকে ব্যবসা গুটিয়ে অন্য কোথায় যাবার চেষ্টা করা কোম্পানিগুলোকে যারা যত দ্রুত নিজেদের দেশে নিয়ে আসতে পারবে বেকারত্ব সামাল দিতে তারাই সফল হবে অনেকটা।

১৬.এশিয়ানরা ভাইরাস রেসিজমের শিকার হবে সামনের দিনগুলোতে।

১৭.স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক ও শারীরিক দুরুত্ব যে জাতি যত উদাসীনভাবে নেবে তাদের ক্ষতিটা হবে সবচেয়ে ভয়াবহ।

তারপরও মানুষ সবকিছু কাটিয়ে উঠবে নতুন বোধ আর বুদ্ধি নিয়ে। মানুষ অনেকদিন পর কিছুটা হলেও বুঝতে পারবে কোথায় তার আসল মনোযোগ দেয়া দরকার।

সবার প্রতি অনুরোধ নিজ নিজ অবস্থান থেকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলুন। সময়টা মানুষের পক্ষে নয় এখন।

এই সংবাদটি 266 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com