অন্তিম শয়ানে শায়খে গলমুকাপনী, জানাযায় মুসল্লীর ঢল

প্রকাশিত: ৬:০৮ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০২০

অন্তিম শয়ানে শায়খে গলমুকাপনী, জানাযায় মুসল্লীর ঢল

মুহাম্মদ রুহুল আমীন নগরীঃ হাজারো আলেম উলামা,ছাত্র,সাধারণ মুসল্লীর অংশগ্রহনে সিলেটের বরেণ্য আলেম, অসংখ্য মুহাদ্দিসের উস্তাদ,ওসমানীনগরের দারুস সুন্নাহ গলমুকাপন টাইটেল মাদ্রাসার মুহতামিম, প্রখ্যাত আলেম, শায়খুল হাদীস মাওলানা আব্দুশ শহীদ শায়খে গলমুকাপনীর নামাজে জানাযা সম্পন্ন হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটায় দিকে উপজেলার গলমুকাপন দারুস সুন্নাহ টাইটেল মাদ্রাসার মাঠে জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় অংশ নিতে সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে হাজার হাজার মানুষ গলমুকাপন এলাকায় জড়ো হতে থাকেন। জোহরের নামাজের পর গলমুকাপন মাদ্রাসার মাঠটি লোকে লোকারণ্য হয়ে জনসমুদ্রে পরিণত হয়। এরপর পারিবারিক কবর স্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। জানাযায় ইমামতি করেন মরহুমের ছেলে সিলেট নয়াসড়ক জামে মসজিদের ইমাম হাফিজ মাওলানা মোহাম্মদ হোসাইন।

গতকাল বুধবার দিবাগত রাত (২৫ জুন ‘২০ ২০) আড়াইটার দিকে সিলেট নগরীর একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রফীকে আ’লার ডাকে সাড়া দিয়ে চলে যান আমাদের ছেড়ে। ইন্না-লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রা-জিউন। তিনি দীর্ঘদিন যাবত প্রেসার, ডায়াবেটিসসহ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে হযরতের বয়স ছিল ৮০ বছর। ৪ ছেলে ও ৬ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন তিনি।

মাওলানা জুনাইদ আহমদ কিয়ামপুরী ও জামেয়ার শিক্ষক মাওলানা রুহুল আমীনের যৌথ পরিচালনায় জানাযা পুর্ব সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন গলমুকাপন মাদরাসার শায়খুল হাদীস মাওলানা মাসউদ আহমদ বাঘার হুজুর,শায়খুল হাদীস মুখলিসুর রহমান কিয়ামপুরী, মাওলানা রশীদুর রহমান ফারুক বর্ণভী, এদারার মহাসচিব মাওলানা শায়খ আব্দুলবছীর, রেঙ্গা মাদ্রাসার মহতামিম মাওলানা মুহিউল ইসলাম বুরহান, জমিয়তে উলামায়েইসলাম বাংলাদেশের সহসভাপতি সাবেক এমপি এডভোকেট মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধূরী, কৌড়িয়া মাদরাসার মুহতামিম হাফিজ মাওলানা মুহসিন আহমদ,মাওলানা ইমদাদুল্লাহ ছাহেবযাদায়ে কাতিয়া,গহরপুর মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মুসলেহ উদ্দীন রাজু, গলমুকাপন মাদরাসার নায়বে মুহতামিম মাওলানা ওহিদুল ইসলাম, মাওলানা মুজাক্কির আহমদ,মাওলানা আব্দুস সালাম প্রমুখ। পরে পারিবারিক কবরস্থানে অন্তিম শয়ানে সমাহিত করা হয়।

শায়খ আব্দুস শহীদ ১৯৪১ সালে সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার গলমুকাপন গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি প্রথমে গলমুকাপন মাদরাসায় ভর্তি হন। পরে জামেয়া হোসাইনিয়া গহরপুর থেকে দাওরায়ে হাদিস পাস করেন।
শায়খ আব্দুস শহীদ সিলেটের ঐতিহ্যবাহী জামেয়া দারুস সুন্নাহ গলমুকাপনের মুহতামিম ও শায়খুল হাদিস ছিলেন। ছিলেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি। ১৯৯৬ সালে সিলেট-২ আসন থেকে জমিয়তের প্রার্থী হিসেবে খেজুর গাছ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনও করেছিলেন।
প্রখ্যাত আলেম শায়খ লুৎফুর রহমান বর্নভী রাহ.-এর খলিফা ও বেয়াই ছিলেন তিনি। এছাড়া শায়খ আব্দুল করীম কৌড়িয়া রাহ. ও শায়খ তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী রাহ.-এরও বেয়াই ছিলেন শায়খ আব্দুস শহীদ।
১৩৮৪ হিজরি সন থেকে তিনি মৃত্যু পর্যন্ত গলমুকাপন মাদরাসায় শিক্ষকতার মহান পেশায় যুক্ত ছিলেন। প্রথমে নায়বে মুহতামিম পরে মুহতামিম নিযুক্ত হন।
তার চাচা মাওলানা ফখরুদ্দীন (র) এর ইন্তেকালের পর থেকে তিনি ওই মাদরাসার মুহতামিমের দায়িত্বপ্রাপ্ত হন। সহজ-সরল দুনিয়াবিমুখ ছিলেন শায়খ আব্দুস শহীদ। জীবনভর বিতর্কের উর্ধ্বে উঠে ইসলামের খেদমত করে গেছেন তিনি।
শায়খুল হাদীস আল্লামা আব্দুশ শহীদ গলমুকাপনী রাহ. দারস-তাদরিসের পাশাপাশি দেশ-বিদেশে এবং গ্রামে-গঞ্জে ওয়াজ-নসিহতের মাধ্যমে আপামর জনতার মাঝে দ্বীনের প্রচার-প্রসারে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। সদাহাস্যজ্বল, মাথায় আমামা বাধা একজন সাহসী, বিচক্ষণ আলেম হিসেবে সমাজ ও রাজনীতির ময়দানে রেখেছেন অনন্য ভূমিকা। তাঁর মৃত্যুতে সৃষ্ট শূণ্যতা পূরণ হবার নয়।
শায়খে গলমুকাপনীর ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা জিয়া উদ্দিন ও মহাসচিব মাওলানা নূর হোছাইন কাসেমী।
বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোক বার্তায় তারা বলেন- শায়খে গলমুকাপনী শুধু একজন মুহতামিম ও শায়খুল হাদীস ছিলেন না বরং বাংলাদেশের প্রাচীনতম ইসলামী সংগঠন জমিয়তের একজন অন্যতম মুরব্বী ছিলেন। জমিয়তের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণসহ এ জমিয়তের সাংগঠনিক কার্যক্রমে অত্যন্ত সক্রিয়ভূমিকা পালন করতেন। তার ইন্তেকালে জাতি একজন দ্বীনের একনিষ্ঠ খাদেমকে হারালো। তার চলে যাওয়াতে জমিয়ত পরিবারসহ গোটা দেশবাসী শোকাহত। তার শুণ্যতা অপূরণীয়।
জমিয়ত নেতৃবৃন্দ শোক সন্তপ্ত পরিবার, সহকর্মী ও দেশ-বিদেশে অবস্থানরত হযরতের সকল ছাত্র-শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন এবং মারহুমের মাগফেরাত কামনা করে করেন।

এই সংবাদটি 301 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com