দেশের ৬৬ জন শীর্ষ উলামার সেই বিবৃতির সমর্থনে মৌলভীবাজারের ওলামায়ে কেরামের বিবৃতি

প্রকাশিত: ৯:২৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ৮, ২০২০

সিলেট রিপোর্টঃ হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব মজলুম জননেতা আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর নামে জামায়াত সংশ্লিষ্টতার উক্তিকে জঘন্য অপবাদমূলক মিথ্যাচার উল্লেখ করে এর প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন দেশের ৬৬ জন শীর্ষ উলামা মাশায়েখ। সেই বিবৃতির সমর্থনে
৭জুলাই মঙ্গলবার সিলেট মৌলভীবাজার এর ওলামায়ে কেরাম এক যৌথ বিবৃতিতে আলেমগণ। তারা বলেন, ২০১৩ সালের ৫ ও ৬ই মে, ইসলাম ও মুসলমানদের জন্য দ্বিতীয় কারবালার একটি নির্মম, কালো ও রক্তাক্ত ইতিহাস। শুকরিয়া মাহফিল নয়, এর চাইতে বড় কিছু করেও তা ভুলানো যাবে না। হাজার বছর অতিবাহিত হলেও শাপলা চত্বরের শহীদদের বুকের তাজা রক্ত কথা বলবে।
সেই শাপলা ট্রাজেডির একজন মজলুম আলেম আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর নামে নির্জলা মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে আমরা নিন্দা জানাচ্ছি। সাথে সাথে এমন বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানাই।দেশে সর্ববৃহৎ অরাজনৈতিক ইসলামি সংগঠন হেফাজতে ইসলাম স্বচ্ছভাবে কোটি মুমিনের প্রতিনিধিত্ব করুক আমরা সেই প্রত্যাশা ব্যক্ত করি। বিবৃতিদাতা আলেমগণ হলেন-হাফিজ মাওলানা জামিল আহমদ আনছারী, শায়খুল হাদিস ইসমাঈল আলী মিঠিপুরি, শায়খ আবদুল মালিক শায়খে রুপষপুরি, মাওলানা বদরুল ইসলাম, মাওলানা জয়নুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল হাফিজ, মাওলানা আশরাফুল হক, মাওলানা নুরুল মুত্বাকীন জুনাইদ, মুফতি তালেব উদ্দিন, মাওলানা রমিজ উদ্দিন, মাওলানা হাবিবুর রহমান, মাওলানা তজম্মুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল হাই, মাওলানা ফারুক আহমদ, মাওলানা জিয়াউল ইসলাম, মাহতাব উদ্দিন, মাওলনা শায়খ খায়রুল ইসলাম, মাওলানা আল আমীন, মাওলানা আব্দুল গফফার, মাওলানা আব্দুল জব্বার, মাওলানা ইলয়াস, মাওলানা আবু ইসহাক, মাওলানা বদরুল ইসলাম, মাওলানা মুশাহিদ আলী ক্বাসিমী, মাওলানা ইমদাদুল হক, মাওলানা মারুফ আহমদ, মাওলানা আব্দুল করিম, মাওলানা জাকির হুসাইন, মাওলানা লুতফুর রহমান,মাওলানা তাফজ্জুল হক প্রমুখ।

তারা বলেন, কিন্তু আজ কিছু সংখ্যক কুচক্রী মহল আমীরে হেফাজতের সাথে মহাসচিবের মতপার্থক্য ও দূরত্ব খুঁজে বেড়াচ্ছেন এবং সর্বস্তরের মানুষের নিকট গ্রহণযোগ্য শক্তিশালী ঈমানী সংগঠন হেফাজতকে দুর্বল করার ও ভাঙ্গার হীন চক্রান্তে লিপ্ত রয়েছেন।

উলামায়ে কেরাম বলেন, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব মজলুম জননেতা আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে নিয়ে জনৈক ব্যক্তি ফোনালাপে যেই মিথ্যাচার করেছেন, তা অত্যন্ত জঘন্য ও নিন্দনীয়। আল্লামা বাবুনগরী হক্কানী উলামায়ে কেরামের আপোষহীন রাহবার। ফাঁস হয়ে পড়া ফোনালাপ পরিকল্পিত মিথ্যাচার এবং কোন অপশক্তির এজেন্ডা বাস্তবায়নে উদ্দেশ্য প্রণোদিত অপবাদ।

তারা বলেন, ইতিমধ্যে আমরা লক্ষ্য করেছি, সম্প্রতি আধিপত্যবাদি শক্তির দোসর হিসেবে চিহ্ণিত গুটিকয়েক অনলাইন ও প্রিন্ট মিডিয়া নানা কল্পকাহিনী তৈরি করে মিথ্যা ও বানোয়াট কল্পকাহিনী সাজিয়ে দেশের শীর্ষ আলেম ও যুগশ্রেষ্ঠ মুহাদ্দীস আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে বিতর্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধ করার চক্রান্ত করে যাচ্ছে । আমরা এসব অপপ্রচারেরও তিব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

শীর্ষ উলামাগণ আরো বলেন, আল্লামা বাবুনগরী একমাত্র ব্যক্তি যিনি শাপলা চত্বরে ৫ মে’র রাতে ভয়াবহ আগ্রাসী হামলায়ও পিছপা হননি, বরং ৬ মে ভোরে চরম ঝুঁকির মধ্যেও তিনি আমীরের প্রতি আনুগত্যের পরাকাষ্ঠা প্রমাণ করে লালবাগে হেফাজত আমীরের নির্দেশনার জন্য তাঁর কাছে উপস্থিত হন এবং সেখানে গ্রেফতার হন। রিমান্ডে অমানুষিক নির্যাতনে চিরতরে পঙ্গু হয়েছেন। তারপরও সকল প্রকার ভয় ভীতি ও অপশক্তির রক্ত চক্ষুকে উপেক্ষা করে প্রতিটা অন্যায় জুলুম নির্যাতন এবং সকল ইসলাম বিরোধী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে জোরালো প্রতিবাদ করে আকাবীরে উলামায়ে দেওবন্দের ইতিহাসও ঐতিহ্য ও সম্মান উঁচু রাখতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। অতএব, গুটিকয়েক চিহ্ণিত ষড়যন্ত্রকারীদের ষড়যন্ত্রে ও অপপ্রচারে আল্লামা বাবুনগরীর ক্লিন ইমেজ বিনষ্ট করতে পারবে না, ইনশাআল্লাহ। তাই দেশ বিদেশের হেফাজত কর্মী সমর্থক ও শুভাকাঙ্খিদেরকে এসকল মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক কর্মকাণ্ড ও অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

বিবৃতিদাতা আলেমগণ হলেন- আল্লামা মুহিবুল্লাহ বাবুনগরী, আল্লামা নূরুল ইসলাম আদীব (ফেনী), আল্লামা আব্দুল হামিদ পীর সাহেব মধুপুর, আল্লামা হাফেজ আতাউল্লাহ হাফেজ্জী, আল্লামা মুনিরুজ্জামান সিরাজী (বি. বাড়ীয়া), আল্লামা নূরুল ইসলাম জিহাদী, আল্লামা নূরুল ইসলাম ওলীপুরী (হবিগঞ্জ), আল্লামা উবায়দুল্লাহ ফারুক, আল্লামা আরশাদ রহমানী, আল্লামা আব্দুর রহমান হাফেজ্জী (ময়মনসিংহ), অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান চৌধুরী (পীর সাহেব কাপাসিয়া), মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ সাদী (ময়মনসিংহ), মাওলানা আব্দুল আউয়াল (নারায়ণগঞ্জ), মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী, মাওলানা জুনায়েদ আল-হাবীব, মাওলানা খুরশিদ আলম কাসেমী, মাওলানা মামুনুল হক, মাওলানা বাহাউদ্দিন যাকারিয়া, মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী, মাওলানা আব্দুল বাসেত খান, মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়ূবী, মাওলানা হাসান জামিল, মাওলানা মুজিবুর রহমান চাঁদপুরী, মাওলানা ফজলুল করিম কাসেমী, মাওলানা মাসউদুল করিম (গাজীপুর), মাওলানা আবুল কালাম, মাওলানা জামিল আহমদ আনসারী (মৌলভীবাজার), মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, মাওলানা আনওরুল করিম (যশোর), মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন (খুলনা), মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা লোকমান মাযহারী, মাওলানা হামেদ জহিরী, মুফতী সাখাওয়াত হোসাইন রাজী, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়জী, মাওলানা ফজলুর রহমান (সাইনবোর্ড), মুফতী আজহারুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল মান্নান পাটোয়ারী (সাভার), মাওলানা আলী আকবর (সাভার), মুফতী কামরুজ্জামান (ফরিদপুর), মাওলানা সানাউল্লাহ মাহমুদী (বরিশাল), মাওলানা তাহের কাসেমী (নেত্রকোনা), মাওলানা মফিজুর রহমান (নেত্রকোনা), মাওলানা মুহাম্মদুল্লাহ জামী (কিশোরগঞ্জ), মাওলানা আবুল কাশেম (জামালপুর), মুফতি শামসুদ্দিন (জামালপুর), মাওলানা ইউনুস (রংপুর), মাওলানা মতিউর রহমান (দিনাজপুর), মাওলানা আমিনুল হাসান সিদ্দিকী (কেরানীগঞ্জ), মাওলানা বশির আহমদ (মুন্সীগঞ্জ), মুফতী শরিফুল্লাহ, মাওলানা আব্দুল হামিদ (কুষ্টিয়া), মাওলানা আব্দুল লতিফ খান (কুষ্টিয়া), মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান (নারায়ণগঞ্জ) প্রমুখ।
এছাড়া এব্যাপারে মাদানী কাফেলা বাংলাদেশের পক্ষ থেকে প্রথম বিবৃতি দেয়া হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, উম্মুল মাদারিস দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারীর সিনিয়র মুহাদ্দিস, হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব ক্বাঈদে মিল্লাত আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন মাদানী কাফেলা বাংলাদেশের নেতৃবৃন্দ। 
২ রা জুন মাদানী কাফেলা বাংলাদেশের সভাপতি মাওলানা রুহুল আমীন নগরী এবং সাধারণ সম্পাদক মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী এক বিবৃতিতে বলেন, আমরা উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে, সাম্প্রতিক সময়ে একটি বিশেষ মহল আমিরে হেফাজত খলিফায়ে মাদানী আল্লামা শাহ আহমদ শফী এবং হেফাজত মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর মধ্যে পরিকল্পিত ভাবে দূরত্ব সৃষ্টির হীন উদ্দেশ্যে নানান ভাবে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। চক্রান্তকারী গোষ্টি ঈমানী আন্দোলন খ্যাত ‘হেফাজতে ইসলাম’কে কলুষিত করতে সম্প্রতি একটি অডিও বার্তায় ‘শাপলা চত্ত্বরের নৃশংশ হত্যাকান্ড’র জন্য হেফাজত নেতৃদ্বয়কে অভিযুক্ত করার অপচেষ্টা চালিয়েছে, যা অত্যন্ত দুঃখ জনক। ষড়যন্ত্রকারীরা
অডিও বার্তায় আল্লামা বাবুনগরীর বিরুদ্ধে ‘জামায়াত’ কানেকশনের অভিযোগ এনে হাটহাজারী মাদরাসাকে কলুষিত করার অপচেষ্টার নিন্দা জানিয়েছেন বাবুনগরী। আমরা মনে করি, এসব মিথ্যাচার করে জনপ্রিয় মুহাদ্দিস আল্লামা বাবুনগরীকে হাটহাজারী জামিয়া থেকে অপসারণের নাটক তৈরী করা হচ্ছে, যা অত্যন্ত বেদনা দায়ক। এসব কর্মকান্ডে ইসলামপ্রিয় তৌহিদী জনতা উদ্বিগ্ন। সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব আল্লামা বাবুনগরীর পাশে দাঁড়াতে সর্বস্থরের আলেম উলামাদের এগিয়ে আসার আহবান জানাচ্ছি।

এই সংবাদটি 26 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com