মৌলভী মুসলিম আলী: কিছু স্মৃতি কিছু কথা … শাহিদ হাতিমী

প্রকাশিত: ১২:০০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০২০

মৌলভী মুসলিম আলী: কিছু স্মৃতি কিছু কথা   … শাহিদ হাতিমী

আলহাজ মৌলভী মুসলিম আলী:
একজন গর্বিত পিতার চিরবিদায় ও কিছু স্মৃতিকথা!

আমরা মরণশীল জাতি। একদিন সবাইকে দুনিয়ায় সকল মায়াজাল ছিন্ন করে চলে যেতে হবে। অনন্ত জীবনের ঠিকানায়, পরকালে। আমাদের চিরস্থায়ী ঠিকানা এ ধরাধাম নয়! কুরআনে কারীমে বর্ণিত হয়েছে- সকল প্রাণীকেই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে। কেউ আগে কেউ পিছে পার্থক্য শুধু এতটুকু।

গতদিন সকালে পোস্ট করি ঐতিহ্যবাহী জনপদ জৈন্তাপুর উপজেলার দুই বটমানবের সুস্থতার জন্য। কিন্তু কে জানতো, বিকেলে শুনবো একজন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন আর আরেকজন মহান আল্লাহর ডাকে সাড়া দিয়ে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। গতকাল শনিবার, ২৯ আগস্ট (২০২০) বিকেলে আমাদেরকে এতীম করে পরজীবনে চলে গেলেন আলহাজ মৌলভী মুসলিম আলী রহমাতুল্লাহি আলাইহি। ইন্নালিল্লাহি ও ইন্না ইলাইহি রা’জিউন।

বাদ এশা ছিল মরহুমের জানাজা। সুসম্পর্কের টানে যথাসময়ে তাঁর জানাজায় অংশগ্রহন করতে পেরে মহান আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করছি। বাদ জানাজা তাঁকে দাফন করা হয় নিজ গ্রামের মসজিদ সংলগ্ন কবরস্থানে। তাঁর ইন্তেকালে পুরো উপজেলায় নেমে আসে শোকের ছায়া। জানাজায় অংশ নেন সিলেট বিভাগের শীর্ষ পর্যায়ের শ্রেণিপেশার মানুষ। তিনি ছিলেন অনেক ইতিহাসের স্বাক্ষী। রব্বে খালিক তাঁকে জান্নাতের উঁচু মাকামে আসীন করুন। আমীন।

আমি যখনই কোনো কবরের পাশে দাঁড়াই তখনই আমার জনমদরদি মরহুম আব্বার কথা খুব মনে পড়ে। গতরাতে যখন মরহুম মুসলিম আলীর কবরে মাটি দিচ্ছিলাম, একদিকে চেয়ে দেখি মরহুমের সুপুত্র হাফিজ আব্দুল্লাহ সাহেব চোখের নোনাজল ভাসিয়ে তেলওয়াত করছেন আল কুরআন, আরেকদিকে চেয়েদেখি মরহুমের ভাতিজা হাফিজ তাজুল সাহেব পাঠ করছেন সুরা-কেরাত, আরো দেখি তেলাওয়াতরত অবস্থায় মাওলানা শিহাব উদ্দিন কোদাল দিয়ে এঁটেল মাটিগুলো টানছেন! আমিও সুরা ইয়াসিন, সুরা ইখলাস ও সুরা ফাতিহা পাঠ করি! আর স্মরণ করি আমার বাবাকে বিগত অক্টোবরের ১তারিখ এভাবেই পরজীবনে বিদায় জানানোর স্মৃতি।

ব্রিটিশ, পাকিস্তান এবং বাংলাদেশ-এ তিন রাজত্বের অভিজ্ঞতায় পোক্ত যে কয়েকজন ব্যক্তিকে আমরা পেয়েছিলাম, তাঁদের মধ্যে আমাদের এলাকায় তিনি ছিলেন অন্যতম একজন। মরহুম মুসলিম আলীর ছোট ছেলে, লেখক আব্দুল হাই আল হাদী তাঁর বাবার স্মৃতিচারণে উল্লেখ করেন জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের চাল্লাইন গ্রামে ১৯৩০ সালে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। চাল্লাইন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠশালা শেষ করে মরহুম মুসলিম আলী ভর্তি হন দারুল হাদিস মদিনাতুল উলুম খরিলহাট মাদরাসায়। এরপর সেন্ট্রাল জৈন্তা উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হলে তিনি এ বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। তিনি ছিলেন এ হাইস্কুলের প্রথম ব্যাচের ছাত্র। পরবর্তীতে তিনি গাছবাড়ী জামিউল উলুম কামিল মাদরাসায় ভর্তি হয়ে কৃতিত্বের সাথে ফাজিল (ডিগ্রি) পর্যন্ত অধ্যয়ন করেন। পরবর্তিতে তিনি পারিবারিক ব্যবসা ও গার্হস্থ কাজে মনোনিবেশ করেন।

১৯৩০ থেকে ২০২০ ইংরেজি। ৯০ বছর বয়সের একজন পরিপক্ব মানুষের ইন্তেকাল মানে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ইতিহাস হারিয়ে যাওয়ার নামান্তর। তিনি খুব সাদা মনের মানুষ হলেও রুচিশীলতা বুঝতেন! আলহাজ্ব মৌলভী মুসলিম আলীর সাথে আমার দীর্ঘসময় বসা এবং আলাপের সুযোগ হয়েছিল শায়খুল হাদীস মাওলানা ফয়জুল বারী মহিষপুরী রহমাতুল্লাহি আলাইহির ইন্তেকালের দিন। একসাথে দরবস্ত থেকে কানাইঘাট পর্যন্ত দীর্ঘপথ যাতায়াত করি। তখন কতো যে স্মৃতি, জীবনঘনিষ্ট হাসি কান্নার গল্প, ইতিহাস, রম্য ঘটনা, প্রবাদ কাহিনী ইত্যাদি শুনিয়েছেন তার কোনো ইয়ত্তা নেই! বিশেষ করে আল্লামা মুশাহিদ বায়মপুরী রাহ. সম্পর্কে অনেক অজানা তথ্য দিয়েছিলেন আমাকে। আল্লাহ পাক আমাদের মুরব্বি মরহুম আলহাজ্ব মোলভী মুসলিম আলীকে ভালোবাসুন।

লেখক শাহিদ হাতিমী-
বার্তা সম্পাদ, সিলেট রিপোর্ট ডটকম

এই সংবাদটি 316 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com