ভাস্কর্যের নামে মূর্তি নির্মাণ করা হলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে তা’ বুড়িগঙ্গায় ফেলে দেয়া হবে’

প্রকাশিত: ৬:১৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০২০

ভাস্কর্যের নামে মূর্তি নির্মাণ করা হলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে তা’ বুড়িগঙ্গায় ফেলে দেয়া হবে’

ডেস্ক রিপোর্ট:
মসজিদের শহর ঢাকাকে ভাস্কর্যের নামে মূর্তির শহর বানাতে দেয়া হবে না। রক্ত দেবো তবু ঈমান বিক্রি করতে দেবো না। আমরা সবাই রসুল সেনা ভয় করি না বুলেট বোমা। জীবন থাকতে মুসলমানরা ভাস্কর্যের নামে মূর্তি বানাতে দেবে না। মূর্তি বানাতে হলে মন্দিরে গিয়ে বানান। জনগণ চিকিৎসা পাচ্ছে না, গরীব মানুষ খাবার পাচ্ছে না। আর জনগণের টাকায় মসজিদের নগরীতে মূর্তি নির্মাণ কোনো ভাবেই মেনে নেয়া হবে না। আল্লাহ আপনাকে অনেক সময় দিয়েছে মুসলমানের পাশে থাকুন। বিজাতীয় সংস্কৃতি পরিহার করে বঙ্গবন্ধুর রূহের শান্তি কামনায় আন্তরিক হোন। মা-বাবা এবং নিজের নামের ইজ্জত রক্ষায় সজাগ থাকুন।

রাজধানীর দোলাইপাড় চত্বরে ভাস্কর্যের নামে মূর্তি স্থাপনের পরিবর্তে বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর রূহের মাগফিরাত কামনায় আল্লাহর ৯৯ নাম অঙ্কিত স্মৃতিস্তম্ভ স্থাপনের দাবিতে আজ শুক্রবার বাদ জুমা নগরীর গোন্ডারিয়াস্থ ধূপখোলা মাঠে তৌহিদী জনতা ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত গণসমাবেশে শীর্ষ ওলামায়ে কেরাম এসব কথা বলেন। ভাস্কর্যের নামে মূর্তি নির্মাণ করা হলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে তা’ বুড়িগঙ্গায় ফেলে দেয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন নায়েবে আমীরুল মুজাহিদীন মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম চরমোনাই। বক্তব্য রাখেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি
আল্লামা আব্দুল হামিদ পীরসাহেব মধুপুর, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াজী, ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, নারায়ণগঞ্জ ডিআইটি জামে মসজিদের খতীব মাওলানা শাহ আব্দুল আউয়াল, মেরাজনগর বড় মাদরাসার মুহতামিম মাওলাান রশিদ আহমদ, মুফতী হাবিবুর রহমান মিসবাহ।

এই সংবাদটি 109 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com