বিশিষ্ট লেখক,হাদীসবিশারদ আল্লামা শায়খ ইমদাদুল হক হবিগঞ্জী আর নেই

প্রকাশিত: ১০:৫১ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৬, ২০২০

বিশিষ্ট লেখক,হাদীসবিশারদ আল্লামা শায়খ ইমদাদুল হক হবিগঞ্জী আর নেই

মুহাম্মদ রুহুল আমীন নগরী: প্রখ্যাত শায়খুল হাদীস জাতীয় ঈদগাহের সাবেক খতিব,বিশিষ্ট লেখক শায়খুলহাদীস আল্লামা শায়খ ইমদাদুল হক হবিগন্জী আর নেই। তিনি গতরাতে (৬ ডিসেম্বর) ইংল্যান্ডের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাইহি রাজিউন। তিনি আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগন্জীর ছোট ভাই। মরহুমের ছেলে মাওলানা ক্বারী মুদ্দাসসীর আনোওয়ার সিলেট রিপোর্টকে মৃত্যুর সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন।
কিছু দিন আগে সিলেটের ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান জামেয়া তাওয়াক্কুলিয়া রেঙ্গা মাদ্রাসার শায়খুল হাদীস হিসেবে নিযুক্ত হন। বুখারী শরিফের আরবী ব্যাখ্যা গ্রন্থ “হিদায়াতুস সারী ইলা দিরাসাতিল বুখারী” সহ অনেক গ্রন্থের লেখক তিনি।

মাওলানা ইমদাদুল হক হবিগঞ্জী ১৫ মার্চ ১৯৪১ ঈসায়ি মোতাবেক ১৩৬১ হিজরিতে হবিগঞ্জ সদর থানার কাটাখালী গ্রামের এক দ্বীনী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মাওলানা আব্দুন নূর রহ. ও একজন বিজ্ঞ আলেম ছিলেন। ইমদাদুল হক হবিগঞ্জী প্রাথমিক শিক্ষা পিতার কাছে সম্পন্ন করেন।

অতঃপর ১৩৭৪ হিজরিতে জামেয়া সাদিয়া রায়ধর মাদরাসায় মুতাওয়াসসিতাহ ও সানোবিয়্যাহ পর্যন্ত পড়েন। ১৩৭৯ হিজরিতে দারুল উলুম মইনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসায় ভর্তি হন। সেখানে ফুনুনাত এবং দাওরায়ে হাদিস শেষ করে ইলমে হাদিস, তাফসির ও ফিকহ পড়েন।

১৩৮৫ হিজরিতে অত্যন্ত কৃতীত্বের সাথে লেখাপড়া সমাপ্ত করে কর্মজীবনে প্রথমে ময়মনসিংহে অতঃপর সিলেটের ঢাকা দক্ষিণ মাদরাসার শায়খুল হাদিস হিসেবে অত্যন্ত সুনামের সাথে অধ্যাপনা করেন।
তিনি একাধারে একজন বিজ্ঞ আলেম, গবেষক এবং লেখক। বোখারী শরীফের আরবি ভাষ্যগ্রন্থ ‘হিদায়াতুস সারী ইলা সাহিহিল বোখারী’ তাঁর অনন্য কীর্তি। এছাড়াও তিনি আরও বেশ কয়েকটি আরবি, বাংলা গবেষণালব্দ বই লিখেছেন।

বাংলাদেশের জাতীয় ঈদগাহের সাবেক খতীব, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ইউরোপের অন্যতম উপদেষ্টা, বিশিষ্ট হাদীস বিশারদ শায়খুল হাদীস আল্লামা শায়খ ইমদাদুল হক হবিগঞ্জী সিলেটের জামেয়া দরগাহে হজরত শাহজালাল রাহ. মাদরাসার শায়খুল হাদিস এবং নাইবে মুহতামিম হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। জাতীয় মসজিদের খতিবও ছিলেন কিছুদিন। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের হাদিস গবেষণা অনুষদের অন্যতম একজন সদস্য হিসেবে কাজ করেছেন। এছাড়াও তিনি মসজিদুল হারামে উস্তায হিসেবে সিহাহ সিত্তার দারস দিয়েছেন। তিনি জামিয়া মাদানিয়া বিশ্বনাথেও শায়খুল হাদীস ছিলেন। ১৯৮১ থেকে ৮৭ সাল পর্যন্ত দরগাহ মাদরাসায় ছিলেন।
প্রসঙ্গত, গত ১ জুন জামেয়া তাওয়াক্কুলিয়া রেঙ্গা মাদরাসার শায়খুল হাদিস আল্লামা শিহাবুদ্দীন চতুলী রহ. ইন্তেকাল করলে নতুন শায়খুল হিসেবে নিয়োগ পান বরেণ্য আলেম শায়খুল হাদিস আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী। তিনি মাত্র কয়েক মাস খেদমত করার সুযোগ পান। গত ৫ জানুয়ারি রোববার তিনি ইন্তেকাল করলে তাঁর স্থলাভিষিক্ত করা হয় তাকে।
পারিবারিক জীবনে তিনি ১৯৬৯ সালে মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর থানার মরিচা গ্রামের হাকিম মাওলানা আজিজুর রহমানের কনিষ্ঠা কন্যা বেগম রাবেয়া খাতুনের সাথে পরিনয় সূত্রে আবদ্ধ হন। তিনি ২ মেয়ে, ৩ ছেলের জনক।

এই সংবাদটি 545 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com