সিলেটের গজুকাটা সীমান্তে মসজিদ নির্মাণে বিএসএফ’র বাঁধা

প্রকাশিত: ৭:২২ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০২১

সিলেটের গজুকাটা সীমান্তে মসজিদ নির্মাণে বিএসএফ’র বাঁধা

সিলেট রিপোর্ট : সিলেটের
বিয়ানীবাজারের গজুকাটা সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফ উত্তেজনা বিরাজ করছে। সীমান্ত এলাকার নো-ম্যান্স ল্যান্ডে বাঙ্কার খনন করে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবি জোয়ানরাও সীমান্তে শক্তি বৃদ্ধি অব্যাহত রেখেছে।
বিজিবি ৫২ ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং অফিসার লে: কর্ণেল মো: শাহ আলম সিদ্দিকী জানিয়েছেন, ভারতীয় বাহিনী জিরো লাইনের ১৫০ গজের ভেতরে প্রবেশ করে কোন ধরণের বাঁধা প্রদান করতে পারে না। তারা সীমান্ত আইন লংঘন করে ২শ বছরের পুরনো মসজিদ পুণ:নির্মাণে বাঁধা প্রদান করেছে।
জানা যায়, বিয়ানীবাজার উপজেলার গজুকাটা সীমান্ত এলাকার ১৩৫৭নং পিলারের ভিতরে বাংলাদেশ অংশে গজুকাটা গ্রামের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ২শ’ বছরের পুরনো পাকা ভবনটি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় এলাকাবাসী পুণ: নির্মাণের উদ্যোগ নেন।। দুবাগ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য আফতাব উদ্দিন বলেন, ২০১৮ইং সনে মসজিদ নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রামবাসী নেওয়ার পর তারা বিজিবি’র সহায়তা চান। তৎকালীন বিজিবি-৩২ ব্যাটলিয়ানের কমান্ডার বিএসএফ’র কমান্ডারের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে মসজিদ নির্মাণের সিদ্ধান্ত হলে তারা নির্মাণ কাজ শুরু করেন। কিন্তু নির্মাণ কাজের নিচ অংশের পিলারসহ আনুষাঙ্গিক কাজ শেষে ছাদ ঢালাইয়ের জন্য প্রস্তুতির এক পর্যায়ে বিএসএফ সরাসরি বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশ করে মসজিদ নির্মাণ কাজে বাধা প্রদান করে।
এদিকে দীর্ঘ ৩ বছর পর গত সপ্তাহে বিজিবি-৫২’র সাথে বিএসএফ’র বৈঠকে মসজিদটি পুণ:নির্মাণের বিষয়ে আলোচনা হয় এবং তা পুণ:নির্মাণ করতে বিএসএফ বাঁধা প্রদান করবে না বলে আশ্বস্থ্ করে। এতে মসজিদ নির্মাণের কাজ ফের শুরু করলে শনিবার বিকেলে বিএসএফ তাতে বাঁধা প্রদান করে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এ নিয়ে বিজিবি’র পক্ষ থেকে পতাকা বৈঠকের আহবান জানালেও বিএসএফ তাতে সায় না দিয়ে সীমান্ত এলাকায় শক্তি বৃদ্ধির পাশাপাশি ব্যাংকার খনন করে শক্ত অবস্থান নেয়। বিজিবি পাল্টা অবস্থান নিয়ে তাদের জবাবের প্রস্তুুতি নিয়ে সীমান্ত এলাকায় অবস্থান করছে।
মসজিদের ইমাম হাফিজ বিলাল আহমদ জানান, বিএসএফ এর বাধার পর থেকে নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে। তবে এলাকাবাসী জানিয়েছেন, যে কোন মূল্যে এবার তারা মসজিদ নির্মাণ করতে প্রস্তুত রয়েছেন।

দুবাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম বলেন, ২শ’ বছরের প্রাচীন এই মসজিদ নির্মাণ কাজে আমাদের সহযোগিতা রয়েছে। বিএসএফ মসজিদ নির্মাণ কাজে বাধা প্রদান ও নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়ায় ধর্মপ্রাণ মানুষের ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে বিজিবি-৫২’র কমান্ডিং অফিসার লে: কর্ণেল মো: শাহ আলম সিদ্দিকী জানিয়েছেন, বিএসএফ সীমান্তের ১৫০ গজের ভেতর মসজিদ নির্মাণ কাজে কোন ক্রমেই বাঁধা প্রদান করতে পারেন না। বিএসএফ এখানে বাঁধা দিয়ে অন্যায় করছে। তিনি বলেন, দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষার স্বার্থে যে কোন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করতে তারা প্রস্তুত রয়েছেন। তিনি জানান, গজুকাটা সীমান্তসহ তাঁর আওতাধীন সকল এলাকায় বিজিবি’র শক্তি বৃদ্ধি করা হয়েছে

এই সংবাদটি 144 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com