ঈদ নিয়ে ফখরুল যা বল্লেন

প্রকাশিত: ৩:২৯ পূর্বাহ্ণ, মে ১৫, ২০২১

ঈদ নিয়ে ফখরুল যা বল্লেন

ডেস্ক রিপোর্ট :

এবারের ঈদ ‘কষ্টের ও দুঃসময়ের’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারতের পর সাংবাদিকদের কাছে তিনি এই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে ঈদুল ফিতর পালিত হচ্ছে- অত্যন্ত একটা কষ্টের মধ্য দিয়ে, দুঃসময়ের মধ্য দিয়ে। একদিকে কোবিড করোনার ভয়াবহ আক্রমণ, অন্যদিকে ফ্যাসিবাদী সরকারের যে অত্যাচার- নির্যাতন-নিপীড়ন। এদের হাত থেকে এই দেশ যেন রক্ষা পায়, জনগন যেন রক্ষা পায় সেই দোয়া আমরা আল্লাহ‘তালার কাছে করেছি, তিনি(আল্লাহ‘তালা) যেন এই তৌফিক দেন যে আজকে সারা দেশে একটা ফ্যাসিবাদ, কর্তৃত্ববাদ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তার থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য আমরা সেই শক্তি অর্জন করতে পারি, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আমরা ফ্যাসিবাদকে পরাজিত করতে পারি সেই দোয়া আমরা করেছি। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ছাড়া দলের নেতা-কর্মী ও দেশবাসী ঈদ কেমন পালন করছে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ঈদ বলতে আমরা যেটা সবসময় বুঝি সেই ঈদ আমাদের শুধু তিন বছর নয়, সত্যিকথা বলতে কি গত একযুগ ধরেই আমাদের ঈদ নেই। কারণ আমাদের নেতা-কর্মীদের হত্যা করা মিথ্যা মামলা দেয়া-এমন একটা অবস্থায় নিয়ে পৌছিয়েছে যে, এই দেশে কমপক্ষে আমাদের নেতা-কর্মী শুধু ৩৫ লক্ষ লোক আসামী হয়ে আছেন। যারা আসামী হন তাদের পরিবারে কখনো ঈদ আসে না।

এটা বাস্তবতা। আর এই সরকারের এতো নির্মম তাদের অত্যাচার-নির্যাতন সেটা বর্ণনাতীত। সেই অবস্থার মধ্য দিয়ে আমরা চলছি।দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যখন আমাদের সাথে থাকেন তখন উজ্জীবিত হই, তিনি অনুপ্রাণিত করেন।

‘ঈদ বলতে কিছু নেই’
মির্জা ফখরুল বলেন, ঈদ বলতে তো এখন কিছু নেই আসলে। ঈদের যেটা আনন্দ বা ঈদ যে জন্য করা হয়..। আপনি দেখেছেন যে, সরকারের ভুল নীতির কারণে আজকে কিভাবে আপনার মানুষ বিভ্রান্ত হয়ে গেছে। এমনকি বাড়ী যাওয়ার পথে ইতিমধ্যে ৫ জন নিহত হয়েছে পথপৃষ্ট হয়ে। অন্যদিকে দেখুন যে, তাদের(সরকার) ভুল সিদ্ধান্তের কারণে একদিকে তারা বলছে লকডাউন কিন্তু কোনো লকডাউন পালন হচ্ছে না। গণপরিবহন বন্ধ করেছেন কিন্ত ‍বন্ধ হচ্ছে না। আজকে যদি আপনার এই ঘটনাগুলো না ঘটতো, সঠিকভাবে পরিকল্পনাগুলো করতেন তাহলে এমন হতো না। তিনি বলেন, আমরা বার বার করে বলছি, প্রণোদনার যে টাকা তা যদি সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে পৌঁছতো তাহলে এই অবস্থা হতো না। সাধারণ মানুষ সরকারের কাছ থেকে কোনো প্রণোদনা বা কোনো সাহায্য পায়নি-এটা বাস্তবতা। এটা আমার কথা নয়, অর্থনীতিবিদরা বলছেন।আমরা সেই কারণে বলি যে, সরকারের অবিলম্বে যে কাজটা করা দরকার- তাদের বাজেটের একটা বিরাট অংশ- মেগা প্রজেক্ট তারা করছে। এর একটা বড় অংশ জনগণতথা সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছানো দরকার-এটাই হওয়া উচিত সবার আগে কাজ।”

‘খালেদা জিয়ার ঈদ মোবারক’
এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আপনাদের মাধ্যমে দেশবাসীকে, জনগণকে ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক জানিয়েছেন। তিনি আপনাদের মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। তিনি শুধু নিজের জন্য নয়, সারাদেশের মানুষের জন্য দোয়া চেয়েছেন। দেশনেত্রী যেন সুস্থ হয়ে আবার আমাদের মাঝে ফিরে আসতে পারেন সেজন্য আমরাও আল্লাহর কাছে দোয়া চেয়েছি। বসুন্ধরার এভারকেয়ার হাসপাতালে গত ২৭ এপ্রিল থেকে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন।

এই সংবাদটি 74 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com