মোহনগঞ্জ থেকে সুনামগঞ্জ-সিলেট পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণ করা হবে: রেলমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১:৪২ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৬, ২০২১

মোহনগঞ্জ থেকে সুনামগঞ্জ-সিলেট পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণ করা হবে: রেলমন্ত্রী

মোহনগঞ্জ প্রতিনিধি:

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ থেকে সুনামগঞ্জ হয়ে সিলেট পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী এড. নুরুল ইসলাম সুজন।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার রেলপথকে গুরুত্ব দিয়ে ঢেলে সাজাচ্ছে। দেশের ৫৬টি রেল লাইনের উন্নয়ন কাজ চলমান করা আছে। এ ছাড়া চট্রগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত নতুন রেলপথ নির্মাণ সহ দেশের অনেকে জেলাকে রেল যোগাযোগের আওতায় আনা হচ্ছে।

শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) বিকেলে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে বই প্রকাশ উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

মোহনগঞ্জের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ভিত্তিক বই ‘মুক্তিযুদ্ধে মোহনগঞ্জ: মহেশখলা ইয়ুথ ক্যাম্প ও ডা. আখলাকুল হোসাইন আহমেদ’ এর মোড়ক উন্মোচন করে তিনি। ডা. আখলাকুল হোসাইন আহমেদ মেমোরিয়াল ট্রাস্ট এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ১৫ আগস্ট ডা. আখলাকুল হোসাইন আহমেদ এর ৯৫তম জন্মদিন উপলক্ষে বইটির মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

ট্রাস্টের চেয়ারম্যান সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব ও বিমান পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান সাজ্জাদুল হাসান। অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন সাইফুল হাসান।

সম্প্রতি মোহনগঞ্জে রেল স্টেশনের উন্নয়ন কাজ চলছে। ফলে নতুন প্ল্যাটফর্ম নির্মাণসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের স্বার্থে অবৈধ দোকানপাট, ঘরবাড়ি উচ্ছেদে অভিযান পরিচালনা করেছে রেলকর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে রেলমন্ত্রী বলেন, এখানে রেলওয়ে সুপার মার্কেট করার পরিকল্পনা আছে। উচ্ছেদ অভিযানের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সেখানে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দোকান বরাদ্দ দেওয়া হবে। তবে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় ভুয়া ক্ষতিগ্রস্তদের নাম অন্তর্ভুক্ত না করার বিষয়ে সর্তক করেন তিনি। এছাড়া মোহনগঞ্জ-থেকে চট্টগ্রাম যাওয়ার একটি ট্রেন চালু করার আশ্বাস দেন মন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, রেলের জায়গা দখল করে অন্যর কাছে ভাড়া দিয়ে সুবিধা নেয় অনেকে। এতে রেল কিছুই পায় না, সুবিধা পায় তৃতীয় পক্ষ। এভাবে রেলের জায়গা দখল করে ভাড়া দিয়ে তৃতীয় পক্ষকে কোনো সুবিধা নিতে দেওয়া হবে না।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বইয়ের প্রসঙ্গ টেনে রেলমন্ত্রী বলেন, ৭৫ এ বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর স¦াধীনতা বিরোধী শক্তি মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতির চেষ্টা করেছে।  পরে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর সেই অবস্থা থেকে অনেকটা উত্তরণ ঘটিয়েছেন। তবে তরুণ প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানাতে মুক্তিযুদ্ধের গঠনাগুলো বই আকারে প্রকাশ করা দরকার।

এ সময় আরও বক্তব্য দেন, সমাজ কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু, বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম, একাত্তর টিভির প্রধান নির্বাহী মোজাম্মেল বাবু, ড. কামাল চৌধুরী প্রমূখ।

এই সংবাদটি 48 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com