ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন এমপিকে বিরল সম্মাননা প্রদান ও কাবার গিলাফ কারখানা পরিদর্শন

প্রকাশিত: ২:৫৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২১

ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন এমপিকে বিরল সম্মাননা প্রদান ও কাবার গিলাফ কারখানা পরিদর্শন

সিলেট রিপোর্ট :

চট্টগ্রাম -১৫ সাতকানিয়া লোহাগাড়া আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য, আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম এর বোর্ড অব ট্রাস্টিজ (বিওটি) এর চেয়ারম্যান, বরেণ্য ইসলামিক স্কলার প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী পবিত্র ওমরা পালনসহ সৌদি সরকারের শীর্ষ কর্মকর্তা, বিভিন্ন দাতা সংস্থা ও বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শন, সমঝোতা স্মারকের মতো পূর্ব নির্ধারিত বিভিন্ন কর্মসূচির পাশাপাশি প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ও মতবিনিময় সভায় যোগদানের মাধ্যমে ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করছেন। তারই অংশ হিসেবে ১৯ অক্টোবর মঙ্গলবার তাঁর নেতৃত্বে আইআইইউসি’র একটি প্রতিনিধি দল মসজিদুল হারম ও মসজিদুন নববীর খতিব এন্ড প্রেসিডেন্ট ড. শেখ আবদুর রহমান আস সুদাইসের সৌজন্যে পূর্ব নির্ধারিত দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে অংশ গ্রহন করেন। এতে আইআইইউসি’র বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য জনাব প্রফেসর ড. দ্বীন মুহাম্মদ উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে আইআইইউসি’র বিওটি চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী এমপি আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম এর আদ্যোপান্থ এবং ভবিষ্যত পরিকল্পনা সমূহ তুলে ধরেন। এতে উপস্থিত মসজিদুল হারমাইনের প্রেসিডেন্সিগণ অত্যন্ত সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং সম্ভাব্য সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন। দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে আইআইইউসি’র বিওটি চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী এমপিকে মসজিদুল হারামাইন প্রেসিডেন্সির প্রধান শেখ ড. আবদুর রহমান বিন আবদুল আজিজ আস সুদাইসের সম্মাননা ক্রেস্ট ও বিশেষ হাদিয়া প্রদান করা হয়। প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী এমপিও ড. শেখ আবদুর রহমান আস সুদাইসের জন্য বিশেষ হাদিয়া হস্তান্তর করেন। বৈঠক শেষে প্রতিনিধিদলকে পবিত্র কাবা শরিফের গিলাফ তৈরির কারখানা পরিদর্শনে নিয়ে যাওয়া হয়। রাষ্ট্রীয় এবং রাজকীয় গুরুত্বপূর্ণ অতিথিদের মসজিদুল হারম ও মসজিদুন নববীর খতিব এন্ড প্রেসিডেন্ট এর পক্ষ হতে অত্যন্ত মর্যাদাপূর্ণ এই কারখানা পরিদর্শনে নিয়ে যাওয়ার রেওয়াজ রয়েছে। দ্বিপাক্ষিক ও সৌজন্য বৈঠক এবং কাবা শরীফের গিলাফ তৈরির কারখানা পরিদর্শনের সচিত্র নিউজ সৌদি প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় ফলাও করে প্রকাশিত হয়। উল্লেখ্য, পবিত্র কাবা শরিফকে ঘিরে রাখা গিলাফের আর্ট ও সোনার সুতায় বোনা ক্যালিওগ্রাফি মুমিন মুসলমানের হৃদয়ে তৈরি হয় ভালোলাগা, ভালোবাসা ও অনুভূত হয় অন্যরকম এক মায়াবি আকর্ষণ। ১৩৪৬ হিজরিতে বাদশাহ আবদুল আজিজ আল সউদ মক্কা-মদীনার দুই পবিত্র মসজিদের দেখাশোনার দায়িত্বভার গ্রহণের কাবা শরীফের কিসওয়া বা গিলাফ তৈরির জন্য একটি বিশেষ কারখানা স্থাপনের নির্দেশ প্রদান করেন। মক্কার উম্মুল জুদ এলাকায় গিলাফ তৈরির এই বিশেষ কারখানা অবস্থিত। নতুন গিলাফ তৈরি করতে ১২০ কেজি সোনার সুতা, ৭০০ কেজি রেশম সুতা ও ২৫ কেজি রুপার সুতা লাগে। গিলাফটির দৈর্ঘ্য ১৪ মিটার এবং প্রস্থ ৪৪ মিটার। গিলাফে কুরআনের কিছু আয়াত শোভা পায়। অক্ষরগুলো সোনালী আভায় উদ্ভাসিত। গিলাফের সেলাই কাজে অংশগ্রহণ করে দেড় শতাধিক অভিজ্ঞ দর্জি। গিলাফ তৈরিতে ব্যবহার করা হয় বিশেষ মেশিন। একেকটি গিলাফ তৈরিতে খরচ হয় প্রায় ২০ মিলিয়ন সৌদি রিয়াল।

প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী এমপি রেয়াদ, জেদ্দা, মক্কা ও মদিনায় অবস্থানকালীন সৌদি বাদশার উপদেষ্টা, রাজকীয় পরিবারের সদস্য, সৌদি সরকারের পদস্থ কর্মকর্তা ছাড়াও সৌদি বাদশার নিজস্ব সাহায্য সংস্থা কিং সালমান সেন্টারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা, রাবেতা আল আলম আল ইসলামী (ওয়ার্ল্ড মুসলিম লীগ) এর সেক্রেটারি জেনারেল ও সৌদি বাদশার উপদেষ্টা ড. মুহাম্মদ বিন আবদুল করিম আল ঈসা, ওআইসির সেক্রেটারী জেনারেল ড. ইউসুফ বিন আহমদ আল ওতাইমিন, ইসলামিক সলিডারিটি ফান্ড অব ওআইসি প্রধান নির্বাহী ড. আবদুল্লাহ আল কুজাইম, আইডিবির ভাইস প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ মনসুর মুখতার, কিং সউদ বিন সালমান আলে সউদ এর ফাইন্যান্সিয়াল এডভাইজার ড. আবদুল কাদের আল মশহুর, শেখ সোলাইমান আর রাজেহী ফাউন্ডেশনের সেক্রেটারি জেনারেল, রেয়াদস্থ আল এহতেছাব সেন্টারের ডাইরেক্টর ড. আবদুল্লাহ আযযাহরানি ও মসজিদে নববীর খতিব ও ইমামের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন।

 

এই সংবাদটি 48 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com