মঙ্গলবার, ১৩ ডিসে ২০১৬ ০৭:১২ ঘণ্টা

টাকা আত্মসাত মামলার আসামী হযরত আলী গ্রেফতার

Share Button

টাকা আত্মসাত মামলার আসামী হযরত আলী গ্রেফতার

সিলেট রিপোর্ট:: টাকা আত্মসাতের মামলায় সিলেট এম.এ.জি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পিসি/ ক্যাম্প ইনচার্জ, গ্রেফতারী ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামী মোঃ হযরত আলীকে গত ১১ ডিসেম্বর রোববার সন্ধ্যায় সিলেট নগরীর কাজিবাজার ব্রিজের মুখ থেকে গ্রেফতার করেছেন এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ। হযরত আলী ১৪১/১৬ইং মামলার আসামী। গত ১২ ডিসেম্বর সোমবার এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ হযরত আলীকে আদালতে প্রেরণ করে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সিলেট সদর উপজেলার বাগবাড়ী নিবাসী মৃত নিয়ামত আলীর ছেলে আনছার আলীর সাথে একই বিভাগে চাকুরী সুবাদে হযরত আলী পরিচিত ও সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত ২৮ জুলাই আনছার আলীকে হযরত আলী সিলেট এম.এ.জি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরস্থ আনসার ক্যাম্প ইনচার্জ এর কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে যাওয়ার পর সে প্রস্তাব দেয় যে, তার তত্ত্বাবধানের বিমান বন্দর এলাকায় ৪টি দোকান ভাড়া দেয়া হবে ২ বছরের জন্য। প্রতি দোকান কোঠার মাসিক ভাড়া ৯ হাজার টাকা। সে হিসেবে ৪টি দোকান কোঠার ১ বছরের অগ্রিম ভাড়া বাবদ ৪,৩২,০০০ (চার লক্ষ বত্রিশ হাজার) টাকা ৩০০ টাকার স্ট্যাম্পে চুক্তিনামা সম্পাদন করে হযতর আলীদে প্রদান করা হয়। চুক্তি অনুযায়ী ১ জুলাই দোকান কোঠা সমজায়ে দেয়া কথা। ওই দিন অর্থাৎ ০১/৭/২০১৬ইং তারিখে তপশীল বর্ণিত বিমানবন্দর মার্কেটের দোকান গৃহে গিয়ে আনছার আলী জানতে পারে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সিলেটের ম্যানেজার কর্তৃক বর্ণিত দোকান গৃহাদি বিভিন্ন লোকজনদেরকে টেন্ডারের মাধ্যমে সমজাইয়া দিয়েছেন। বিষয়টি ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিন জানান, হযরত আলীর উক্ত দোকান গৃহ ভাড়া দেওয়ার কোন আইনানুগ অধিকার নেই। আত্মসাতের উদ্দেশ্যে হযরত আলী জালিয়াতির আশ্রয় গ্রহণ করে আনছার আলীর নিকট হতে ৪ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা নিয়েছে।

আনছার আলী টাকা ফের চাইলে দিমু দিচ্ছি বলে কালক্ষেপন শুরু করে। গত ১০/১০/২০১৬ইং তারিখে আনছারী আলী তার টাকার জন্য হযরত আলীর অফিসে গেলে সে উপস্থিত লোকজনের সামনে হুমকী প্রদান করে বলে, তার নিকট টাকা চাইলে সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা হত্যা করবে অথবা বিভিন্ন মামলায় জড়াইয়া জীবন নাশ করবে বলে হুমকী দিয়ে বিদায় করে দেয়। এই অবস্থায় আনছার আলী গত ১৯ অক্টোবর কোতোয়ালী মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করে, যার নং ১৩০৬ এবং ২০/১০/২০১৬ইং তারিখে ৪ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা ফিরে পাওয়ার জন্য সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ২নং আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং- ১৪১/২০১৬ইং।

এছাড়াও আনছার আলী তার জীবনের নিরাপত্তা ও টাকা ফিরে পাওয়ার জন্য বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, সিলেটের জেলা প্রশাসক, সিলেট রেঞ্জের পরিচালক, সিলেট দুর্নীতি দমন কমিশনের পরিচালক, সিলেট জেলা আনসার ও ভিডিপি কমান্ড্যান্ট ও ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের ম্যানেজার বরাবরে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন। বিজ্ঞপ্তি

এই সংবাদটি 1,038 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com