সোমালিয়া শান্ত হোক

প্রকাশিত: ২:২৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩১, ২০২২

ইমদাদুল হক নোমানী:

সোমালিয়াকে ইতালি ও ব্রিটিশ থেকে দখলমুক্ত করতে স্বাধীনতাকামী কয়েকটি ইসলামি দলের মুখ্য ভূমিকা ছিলো। এরমধ্যে ওয়াহদা আশ-শাবাব আল-ইসলামিয়া, জামাআত আহলুল-ইসলামী ও মুনাজামাত আন-নাহদা আল-ইসলামিয়া উল্লেখযোগ্য।

স্বাধীনতার পর ১৯৬০-এর দশকে যখন দেশে রাজনৈতিক সংকট তৈরি হয়, তখন এই দলগুলো ইসলামের আলোকে সৈয়দ বেরির কাছে একটি সমাধানের প্রস্তাব পেশ করে। কিন্তু তা কার্যকর হয় নি।

বর্তমানের আশ-শাবাবের ভিত্তি তখন ওয়াহদা আশ-শাবাব আল-ইসলামিয়া থেকে। পরে ওয়াহদা আশ-শাবাব আল-ইসলামিয়া ১৯৭৯ সালে সোমালিয়ার দক্ষিণে প্রতিষ্ঠিত ‘সিমাকা ইসলামিয়া’র সাথে একীভূত হওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু তখন উভয় দল চিন্তাধারা ও শর্তের ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কোন অবস্থানে পৌঁছাতে পারেনি। ফলে এই পক্রিয়ায় উভয় দলের মাঝে আর ঐক্য প্রতিষ্ঠা সম্ভব হয়নি।

৮০’র দশকের শুরুতে সোমালিয়ায় ক্ষমতালোভী সেক্যুলার দলগুলোর মাঝে ক্ষমতার লড়াই ও গৃহযুদ্ধ যখন তীব্র আকার ধারণ করে, তখন ১৯৮৩ সালে উপরোক্ত ৪টি ইসলামি দল নির্দিষ্ট কিছু বিষয়ের উপর ঐক্যমতে পৌঁছায়। যার ভিত্তিতে ঐবছর ওয়াহদা আশ-শাবাব আল-ইসলামিয়ার নেতৃত্বে জোট গঠন করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের সূচনা হয়। শুরু হয় সেক্যুলার রাজনীতির বিরুদ্ধে ইসলামি বিপ্লবের আন্দোলন।

সুন্নি মুসলিম অধ্যুষিত সোমালিয়া শান্ত হোক। নিরাপদ থাকুক সে দেশের মানুষ-মাখলুক। সুরক্ষা হোক দেশের সম্পদ ও সকল স্থাপনা। সেইসাথে প্রত্যাশা করি, প্রতিষ্ঠিত হোক একটি সুন্দর ইসলামি খিলাফাহ। আল্লাহ কবুল করুন।

এই সংবাদটি 50 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com