যুগপৎ আন্দোলনে বিএনপি-গণফোরাম ঐকমত্য

প্রকাশিত: ৮:২৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২, ২০২২

যুগপৎ আন্দোলনে বিএনপি-গণফোরাম ঐকমত্য

ডেস্ক রিপোর্ট: বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে জাতীয় ঐক্য গড়ে সরকারের বিরুদ্ধে যুগপৎ আন্দোলনে বিএনপির সঙ্গে ঐকমত্য হয়েছে গণফোরামের। মঙ্গলবার (২আগস্ট) বিকেলে মোস্তফা মোহসিন মন্টুর নেতৃত্বাধীন গণফোরামের সঙ্গে দেড় ঘণ্টার সংলাপ শেষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একথা জানান।

তিনি বলেন, গণফোরামের সঙ্গে আলোচনা করে আামাদের এই বিশ্বাস জন্মেছে যে, সব রাজনৈতিক দল একমত হবে দেশে যে ভয়াবহ দানবীয় সরকার আছে, যারা আমাদের সব অর্জনকে ধ্বংস করে দিচ্ছে তাকে সরিয়ে আমরা জনগণের একটি সরকার প্রতিষ্ঠা করব এবং একটা পার্লামেন্ট তৈরি করব। এই ব্যাপারে আমরা ও গণফোরাম একমত হয়েছি। আমরা সব রাজনৈতিক দলকে নিয়ে যুগপৎ আন্দোলন করার ব্যাপারেও একমত হয়েছি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বৈঠকে গণতন্ত্রের নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি, ৩৫ লাখ নেতা-কর্মীর মামলা প্রত্যাহার, নির্বাচনকালীন সময়ে একটি তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠা করা, সব দলের মতামতের ভিত্তিতে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করা এবং সেই কমিশনের পরিচালনায় সবার কাছে গ্রহণযোগ্য, সবার অংশগ্রহনমূলক একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের বিষয় নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি। সেই নির্বাচনের পরে আন্দোলনে অংশগ্রহণকারীদের জাতীয় সরকার গঠনের মধ্য দিয়ে দেশে যে অব্যবস্থা রয়েছে, প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করা হয়েছে, সেই প্রতিষ্ঠানগুলোকে তৈরি করার ব্যাপারে অর্থাৎ রাষ্ট্রকে সংস্কারের জন্য আমরা একটা প্রস্তাবও দিয়েছি।

মোস্তফা মোহসিন মন্টু বলেন, অত্যন্ত সৌহার্দপূর্ণ পরিবেশে বিএনপির জাতীয় নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করেছি এবং ঐকমত্যে পৌঁছেছি। চলমান এই যে বিশৃঙ্খলা, জাতীয় পর্যায়ে আমরা ২০১৪ ও ২০১৮ সালে দুটি নির্বাচন দেখেছি, যা জাতির কাছে গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। আমি বিশ্বাস করি, এই সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। একটা অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে অতীতের অভিজ্ঞতার আলোকে আমরা একটা নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন চাচ্ছি। এই নির্বাচনটা জনগণের স্বার্থে, মুক্তিযুদ্ধ এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের যে চেতনার কথা আমরা বলি, সেই চেতনা বাস্তবায়নে আমরা কাজ করে যাব। এ বিষয়ে আমাদের তরফ থেকে সবাই ঐকমত্যে পৌঁছেছি, আমাদের মধ্যে দ্বিমত নেই।

তিনি বলেন, আগামীতে নিরপেক্ষ নির্বাচন ও ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনার জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে সারা জাতিকে আহ্বান জানাচ্ছি এখান থেকে এক হওয়ার জন্য এবং আমরাও ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করে যাব।

দৃশ্যমান কোনো আন্দোলনে আপনাদেরকে দেখছি না, এক সাংবাদিকের এমন প্রশ্নে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এটা ঠিক নয়। আমরা আন্দোলনের মধ্যেই আছি। আজকেও আমাদের বিক্ষোভ সমাবেশ হয়েছে। জনগণ এই আন্দোলনে সম্পৃক্ত হচ্ছে, আপনি খবর রাখেন না। আমরা মাঠে আছি। প্রত্যেকটা দলের সঙ্গে আলোচনার প্রেক্ষিতে আপনারা দেখেছেন সংলাপের পর সংবাদ সম্মেলনে প্রত্যেকটা দল বলেছে, আমরা যুগপৎ আন্দোলনে যাচ্ছি।

রাজধানীর আরামবাগের ইডেন গার্ডেনে গণফোরাম কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। বিকেল ৪টায় বিএনপি মহাসচিব ৪ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে গণফোরাম কার্যালয়ে যান।

প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন- স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য মনিরুল হক চৌধুরী ও মিডিয়া সেলের সদস্য জহির উদ্দিন স্বপন।

সংলাপে গণফোরাম সভাপতি মোস্তফা মোহসিন মন্টু ৮ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন- নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাইয়িদ, অ্যাডভোকেট মহসিন রশিদ, মহিউদ্দিন আব্দুল কাদের, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, সভাপতি পরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট আনসার খান ও অ্যাডভোকেট ফজলুল হক সরকার ও সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব খান ফারুক।

সরকার বিরোধী আন্দোলনে বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম গড়তে তুলতে বিএনপি গত ২৪ মে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ শুরু করে। এই পর্যন্ত ১৮টি দলের সঙ্গে সংলাপ শেষ করেছে তারা।

দলগুলো হচ্ছে- আসম আবদুর রবের জেএসডি, মাহমুদুর রহমান মান্নার নাগরিক ঐক্য, সাইফুল হকের বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি ও জোনায়েদ সাকির গণসংহতি আন্দোলন।

এছাড়া ২০ দলীয় জোটের শরিকদের মধ্যে বিএনপি সংলাপ করেছে জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর), লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি), ইসলামী ঐক্যজোট, লেবার পার্টি, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা), জাতীয় দল, মুসলিম লীগ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম, সাম্যবাদী দল, ডেমোক্রেটিক লীগ (ডিএল), ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এনডিপি), ইসলামিক পার্টি, পিপলস লীগ, এনপিপি ও ন্যাপ-ভাসানী।

এই সংবাদটি 38 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com