ইউকে জমিয়তের উদ্যোগে সিলেটে অর্থ বিতরণ সম্পন্ন

প্রকাশিত: ১১:১৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৭, ২০২২

ইউকে জমিয়তের উদ্যোগে সিলেটে অর্থ বিতরণ সম্পন্ন

সিলেট রিপোর্ট : জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা শায়খ জিয়া উদ্দিন বলেছেন, “খাইরুন নাছি মান ইয়ান ফাউন নাছ” অর্থাৎ “যে মানুষের উপকার করে সেই সর্বোত্তম মানুষ”। সিলেটের আকস্মিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের দুঃখদুর্দশায় গোটা জাতি ব্যথিত, মর্মাহত ও দুঃখিত। উলামায়ে কেরামসহ গোটা জাতি আজ বনার্তদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। এই বন্যার সময়ে এমন কোনো স্থান নেই, যেখানে কওমি আলেমরা মানুষের পাশে দাঁড়ায়নি। জমিয়ত আদর্শিক রাজনৈতিক দল। জমিয়তের নেতাকর্মীরা এই দুর্যোগপূর্ণ সময়ে বন্যার্তদের পাশে ছিলেন এখনো আছেন।
সকলকে নিজেদের পাপাচার থেকে তাওবা করে এক ও নেক হয়ে আল্লাহ তাআলার দিকে ফিরে আসার আহবান জানিয়ে বলেন, বান্দার পাপাচারের কারণেই বিভিন্ন সময় আল্লাহ তাআলা মানব জাতিকে বিপদ-আপদ দিয়ে হুশিয়ার করে থাকেন। তিনিই মানুষকে বিপদ থেকে মুক্তি ও শান্তি দাতা। ইসলাম সহমর্মিতা ও মানবতার কল্যাণের ধর্ম। তিনি আরও বলেন, ইসলামের আদর্শই হচ্ছে একে অপরের সহযোগিতা করা, একজন আরেকজনের পাশে দাড়ানো। ইসলামের এই সু-মহান শিক্ষার চেতনার আলোকে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের পাশে সাধ্যমতো সাহায্যের হাত প্রসারিত করে যে অবিস্মরণীয় অবদান রেখে চলছে তা চিরস্বরণীয় হয়ে থাকবে।
রোববার (৭ আগষ্ট) বিকেলে সিলেট নগরীর দরগাহ গেইটস্থ কেমুসাসের শহীদ সুলেমান হলে অনুষ্ঠিত
বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে ইউকে জমিয়তের পক্ষ থেকে অর্থসহায়তা প্রদানকালে সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা জিয়া উদ্দিন উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, ইউকে জমিয়তের সেক্রেটারি মাওলানা সৈয়দ তামীম আহমদ।
আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জমিয়তের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহসভাপতি মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক, সহসভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসূফি, সহসভাপতি মাওলানা শায়খ আব্দুল বছির, দলের মহাসচিব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দি, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা বাহা উদ্দিন জাকারিয়া, মাওলানা তাফাজ্জুল হক আজিজ, ইউকে জমিয়তের সিনিয়র সহসভাপতি মুফতি আব্দুল মুন্তাকিম, জমিয়তের কেন্দ্রীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি নাছির উদ্দীন খান।
জমিয়তের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীন এবং ছাত্র জমিয়তের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মাওলানা আহমাদুল হক উমামার যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন,সিলেট জেলা জমিয়তের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা শায়খ আতাউর রহমান কোম্পানীগঞ্জী, মহানগর জমিয়তের সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান, কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক মাওলানা আব্দুল গফফার ছয়ঘরী, মাওলানা নজরুল ইসলাম, জমিয়তের ত্যাগী নেতা মাওলানা সৈয়দ ছালিম আহমদ কাসেমি, মাওলানা আলী নূর, মাওলানা শিব্বীর আহমদ বিশ্বনাথী, মাওলানা মশতাক গাজিনগরী, মাওলানা আখতারুজ্জামান তালুকদার, মাওলানা কবির আহমদ, মাওলানা আব্দুল হালিম সাতবাকী, মাওলানা রেজাউল কারীম, মাওলানা রায়হান আহমদ, মাওলানা লুৎফুর রহমান, হাফিজ মাওলানা ফরহাদ আহমাদ, মাওলানা শাহিদ হাতিমী, মাওলানা লুকমান হাকিম মাওলানা হাবিব ছালেহ প্রমুখ।

মহাসচিব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দি বলেন, মানবসেবা হচ্ছে জমিয়তের মৌলিক কর্মসূচীর একটি , খেদমতে খালক বা মানবসেবা। দেশের দুর্যোগপূর্ণ সময়ে জমিয়তের নেতাকর্মীরা মাঠে সরব ছিলেন। রাসূল সা. বলেছেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগের শিকার মানুষদের শান্তনা দিলে আল্লাহ তায়াল রেশমি রুমাল পরিয়ে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন।

তিনি লোডশেডিংসহ দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতির কথা উল্লেখ করে বলেন, আজ দেশের সাধারণ জনগণ নাগরিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে অথচ, সুইচ ব্যাংকে ক্ষমতাসীন নেতারা টাকা জমাচ্ছেন। বীজের দাম বাড়িয়ে সরকার কৃষি নির্ভর দেশের মানুষদের পেঠে লাথি মারছে।
যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা বাহা উদ্দিন যাকারিয়া বলেন, স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের মাঝে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম সর্বাগ্রে দাঁড়িয়েছে। এখনো জমিয়ত আছে বন্যা পরবর্তী সময়ে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের পাশে। ইউকে জমিয়তসহ প্রবাসী জমিয়ত নেতৃবৃন্দ সাহায্যের হাত বাঁড়িয়ে দিয়েছেন। আমি তাদেরকে মোবারকবাদ জানাই।

এই সংবাদটি 104 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com