রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপ: বিএনপির ১০ নাম বঙ্গভবনে

প্রকাশিত: ২:০৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৬

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপ: বিএনপির ১০ নাম বঙ্গভবনে

ডেস্ক রিপোর্ট:  নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আগামী রবিবারের সংলাপে কারা অংশ নেবেন-সেই তালিকা বঙ্গভবনে পাঠিয়েছে বিএনপি। সকালে দলের তিন জন নেতা এই তালিকা নিয়ে রাষ্ট্রপতি ভবনে যান।

বিএনপি চেয়ারপারসন কার্যালয়ের প্রেস উইং এর সদস্য শায়রুল কবির খান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।  তিনি জানান, বিএনপির তিন সহদপ্তর সম্পাদক বেলাল হোসেন, মুনীর হোসেন এবং তাইফুল ইসলাম টিপু এই তালিকা নিয়ে বঙ্গভবনে গেছেন।

বিএনপির হয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে যারা আলোচনায় বসছেন-তাদের মধ্যে আটটি নাম পেয়েছে ঢাকাটাইমস। চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ছাড়া অন্য সাত নেতা হলেন, দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির ছয় সদস্য খন্দকার মোশাররফ, মওদুদ আহমদ, মাহবুবুর রহমান, জমিরউদ্দিন সরকার, নজরুল ইসলাম খান এবং আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

অন্য দুই নেতাও স্থায়ী কমিটিতে আছেন-এটাও নিশ্চিত করেছে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং এর সদস্যরা।

কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বে বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ শেখ হচ্ছে আগামী ফেব্রুয়ারির শুরুতে। তার আগেই নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে। সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি সার্চ কমিটি গঠন করে এই কমিশন গঠন করবেন। তবে তার আগে তিনি বিভিন্ন দলের সঙ্গে আলোচনার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

বঙ্গভবনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী রবিবার থেকে শুরু হবে এই আলোচনা। প্রথমেই বিএনপিকে ডেকেছেন রাষ্ট্রপতি। সব দলের সঙ্গে আলোচনা করে ঐক্যমতের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন গঠনের দাবি তোলা বিএনপি রাষ্ট্রপতির এই আহ্বানকে স্বাগত জানিয়ে সংলাপে অংশ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

এরই মধ্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা বৈঠক করে কারা কারা সংলাপে অংশ নেবেন-সেই বিষয়টি চূড়ান্ত করেছেন। এই তালিকাটিই রাষ্ট্রপতির দপ্তরে পাঠানো হয় সকালে।

নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া গত ১৮ নভেম্বর মোট ১৩ দফা প্রস্তাব দিয়েছেন। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ তাৎক্ষণিকভাবে প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে। তবে পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, রাষ্ট্রপতি যে সিদ্ধান্ত দেবেন-তাই তিনি মেনে নেবেন।

২০১২ সালেও বর্তমান নির্বাচন কমিশন দায়িত্ব নেয়ার আগেও রাষ্ট্রপতি বিভিন্ন দলের সঙ্গে আলোচনা করেছিলেন। সেই আলোচনাতেও বিএনপি অংশ নিয়েছিল। তবে কাজী রকিবের নেতৃত্বে কমিশনকে শুরু থেকেই মেনে নিতে পারেনি বিএনপি।

সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি নির্বাচন কমিশনে নিয়োগ চূড়ান্ত করলেও এ ক্ষেত্রে তাকে প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ মেনে চলতে হবে। কারণ, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর প্রধানমন্ত্রী এবং প্রধান বিচারপতি নিয়োগ ছাড়া অন্য সব কাজেই তাকে সরকার প্রধানের পরামর্শ মেনেই কাজ করতে হয়।

এই সংবাদটি 127 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com