বৃহস্পতিবার, ২২ ডিসে ২০১৬ ০১:১২ ঘণ্টা

রোহিঙ্গা সহায়তা, আল্লামা শফীকে সামনে রেখে অর্থ জোগাড়

Share Button

রোহিঙ্গা সহায়তা, আল্লামা শফীকে সামনে রেখে অর্থ জোগাড়

সিলেট রিপোর্ট:  নির্যাতিত রোহিঙ্গা মুসলিম শরণার্থীদের জন্য অঢেল ত্রাণ সামগ্রী সংগ্রহ করেছে হেফাজতে ইসলাম। হেফাজতের আমীর হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক ও বেফাকের চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে সামনে রেখে ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে এসব সাহায্য জোগাড় করা হয়েছে। গত অক্টোবর থেকে মিয়ানমারের আরাকানে সেনাবাহিনী ও মগদস্যুদের বর্বরতম নির্যাতন শুরু হয় নিরপরাধ রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর। গণহারে নারী-শিশু-যুবকদের ধরে হত্যা করছে বার্মা সেনাবাহিনী ও সেদেশের মগদস্যুরা। জীবন বাঁচাতে হাজার হাজার রোহিঙ্গা মুসলমান বাংলাদেশসহ আশপাশের কয়েকটি দেশে আশ্রয় নিয়েছে।
আন্তর্জাতিক সংস্থা আইএমও’র হিসাবে বাংলাদেশে অক্টোবর থেকে এ পর্যন্ত ২১ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থী সীমান্ত জেলা কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও পাহাড়-জঙ্গলে আশ্রয় নিয়েছে। যদিও সরকারি তরফে এ সংখ্যা সর্বোচ্চ ৯ হাজার বলে দাবি করা হচ্ছে। পৌষের শীতে পাহাড়-জঙ্গলে থাকা সহায়-সম্বলহারা রোহিঙ্গা মুসলিম নর-নারীর করুণ আহাজারি চলছে উখিয়া-টেকনাফের বিভিন্ন এলাকায়।
মিয়ানমারে ইতিহাসের ভয়াবহতম মুসলিম নির্যাতন ও গণহত্যার বিরুদ্ধে বিশ্বের প্রতিটি বিবেকবান মানুষ ফুঁসে উঠেছে। হেফাজতে ইসলামসহ বাংলাদেশের ইসলামী সংগঠনগুলোর পাশাপাশি দল-মত নির্বিশেষে সব শ্রেণি পেশার মানুষ এ বর্বরতার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছে। ইসলামী আন্দোলন কক্সবাজার অভিমুখী লংমার্চ কর্মসূচি ঘোষণা করলেও সরকারি বাধায় তা পন্ডহয়ে গেছে।
অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামও শুরু থেকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে রাজপথে নামে। তারাও কক্সবাজারে মহাসমাবেশ এবং মিয়ানমার অভিমুখী লংমার্চের ঘোষণা দিয়ে পিছু হটে। হেফাজতের তরফ থেকে বলা হয়, সরকারের অনুমতি না পাওয়ায় তারা এসব কর্মসূচি থেকে সরে আসে। রাজপথের কর্মসূচি থেকে সরে গেলেও গোপনে নির্যাতিত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য আর্থিক সাহায্য সংগ্রহ শুরু করে হেফাজত।
চট্টগ্রাম মহানগরীর আছাদগঞ্জ, খাতুনগঞ্জ থেকে শুরু করে আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকা, হাটহাজারীসহ উত্তর চট্টগ্রাম, পটিয়া, আনোয়ারা থেকে শুরু করে দক্ষিণ চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা থেকে ত্রাণ সামগ্রী জোগাড় করার খবর পাওয়া গেছে। হেফাজতের প্রতি সহানুভূতিশীল ধনাঢ্য ব্যবসায়ী শিল্পপতিরাও সাহায্য-সহযোগিতা দিচ্ছেন। সিলেট,রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকেও রোহিঙ্গা মুসলমানদের জন্য ত্রাণ সামগ্রী, নগদ অর্থ সংগ্রহ করা হচ্ছে।
জানা গেছে, ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় হেফাজত নেতাদের রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য নগদ অর্থ এবং ত্রাণ সামগ্রী তুলতে দায়িত্বও দেয়া হয়। দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা হেফাজতের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে সামনে রেখে ব্যাপক ত্রাণ সামগ্রী জোগাড় করে।
হেফাজতের নেতারা বলছেন, প্রশাসনের অসহযোগিতা এবং কোথাও প্রতিবন্ধকতার কারণে নীরবে তারা ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছেন।
হেফাজত আমীরের প্রেস সচিব মাওলানা মুনির আহমদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, নির্যাতিত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ব্যাপকহারে ত্রাণ সামগ্রী জোগাড় করা হয়েছে। হেফাজতের আমীর হাটহাজারী মাদরাসাসহ কয়েকটি মাদরাসার দায়িত্বশীলদের এসব সামগ্রী সংগ্রহের দায়িত্ব দিয়েছেন। তিনি জানান, এ পর্যন্ত প্রায় ১৪ থেকে ১৫ লাখ টাকার কাপড়-চোপড় ও শুকনা খাবার কেনা হয়েছে। ইতোমধ্যে ১৪ ট্রাক ত্রাণ উখিয়া ও টেকনাফে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে প্রশাসনের বাধার কারণে পুরোদমে এসব সামগ্রী বিতরণ করা যাচ্ছে না। এ পর্যন্ত কি পরিমাণ আর্থিক সহযোগিতা কিংবা ত্রাণ সামগ্রী পাওয়া গেছে তার হিসাব এখনও চূড়ান্ত হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, যেহেতু ত্রাণ বিতরণ স্বাভাবিকভাবে করা যাচ্ছে না সেহেতু আপাতত নগদ অর্থ ও ত্রাণ সামগ্রী সংগ্রহ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন হেফাজতের আমীর।’  —দৈনিক ইনকিলাব এর অবলম্বনে

এই সংবাদটি 1,075 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com