বৃহস্পতিবার, ২৯ ডিসে ২০১৬ ১০:১২ ঘণ্টা

বালাগঞ্জে চেয়ারম্যান ও ইউএনও‌’র বিরুদ্ধে মামলা

Share Button

বালাগঞ্জে চেয়ারম্যান ও ইউএনও‌’র বিরুদ্ধে মামলা

সিলেট রিপোর্ট:  জেলা পরিষদ নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে সিলেটের বালাগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আনহার মিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে।
বুধবার বিকেলে সিলেটের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো: নজরুল ইসলামের আদালতে এই মামলাটি দায়ের করেন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো: আতিকুল হায়দার। মামলার নং বালাগঞ্জ সিআর ৯২/১৬।
মামলায় ইউএনও এটিএম আজহারুল ইসলাম, উপজেলা চেয়ারম্যান আবদাল মিয়া এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বোয়ালজুড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনহার মিয়াকে আসামী করা হয়েছে।
বালাগঞ্জ থানার ওসিকে মামলাটি এফআইআর হিসেবে রুজু করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট আমল গ্রহনকারী আদলতের বিচারক মো: নজরুল ইসলাম।
মামলায় সাক্ষী করা হয়েছে চারজনকে। তারা হলেন, পুলিশের এএসআই আকতার হোসেন, কনস্টেবল নজরুল ইসলাম, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট-১ম আদালতের অফিস সহায়ক জুয়েল মিয়া ও একই আদালতের বেঞ্চ সহকারী তপু দে।
মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, বুধবার জেলা পরিষদ নির্বাচন চলাকালে সকাল ৯টায় বালাগঞ্জের ডিএন উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোট প্রদানের সময় উপজেলা চেয়ারম্যান এবং আওয়ামী লীগ নেতা আচরণ বিধি লঙ্ঘন করেন। তাদের সাথে ইউএনও আজহারও যোগ দেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।
এসময় তাদের ভোটকেন্দ্র থেকে চলে যেতে বললে উপজেলা চেয়ারম্যান আবদাল মিয়া এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনহার মিয়া মামলার বাদী ম্যাজিস্ট্যাটকে ঘিরে ধরেন এবং ইউএনও তার সাথে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন বলেও এজাহারে অভিযোগ করা হয়।
বালাগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আবদাল মিয়া বলেন, ‘‘ভোটকেন্দ্র থেকে ভোট দিয়ে বেরিয়ে আসার সময় একজন এজেন্ট আমার দিকে হাত বাড়িয়ে দেন। এসময় আমি তার সাথে হাত মেলালে একজন ব্যক্তি আমাকে ধমক দিয়ে ভোটকেন্দ্র ছেড়ে চলে যেতে বলেন। তার পরিচয় জানতে চাইলে তিনি আরো রেগে যান। পরে ইউএনও ও আওয়ামী লীগ নেতা আনহার এসে আমার পরিচয় দিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করতে চাইলে ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল হায়দার আরো ক্ষেপে গিয়ে আমাদের তিনজনের সাথেই দুর্ব্যবহার করেন।’’
বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আনহার মিয়া বলেন,‘‘ ভোট দিয়ে বেরিয়ে আসার সময় দেখতে পাই উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে এক ব্যক্তির কথাকাটাকাটি হচ্ছে। এসময় আমি এগিয়ে গিয়ে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করি। এসময় কোনো আচরণবিধি লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেনি।’’
মামলা দায়েরের কথা শুনেছেন বলে জানান বালাগঞ্জের উপজেলো নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম আজহারুল ইসলামও।
বালাগঞ্জ থানার ওসি তরিকুল ইসলাম বলেন, আদালত থেকে মামলা সংক্রান্ত একটি কাগজ এসেছে বলে শুনেছি। তবে এ ব্যাপারে এখনো বিস্তারিত জানতে পারিনি।

এই সংবাদটি 1,041 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com